CCTV ক্যামেরার ব্যবসা | সুরক্ষা সিস্টেম ব্যবসা | Successfully trade CCTV cameras, no1 Right now

বর্তমান সময়ে সুরক্ষা সিস্টেম ব্যবসা বা CCTV ক্যামেরার ব্যবসা খুবই জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। প্রত্যেকটা পরিবারের নিরাপত্তা এবং দোকান অফিসের নিরাপত্তার কারণে সবাই CCTV ক্যামেরা লাগানোর দিকে বেশি করে আগ্রহী হচ্ছেন। আধুনিক যুগের ব্যবসায়ীদের ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে ক্যামেরার ব্যবসা এক দুর্দান্ত কৌশল অবলম্বন করছে। এই ব্যবসা আপনি অত্যন্ত বিনা পুঁজি নিয় শুরু করতে পারেন আবার অল্প পুঁজি নিয়েও শুরু করা যায়।এই ব্যবসাতে লাভ হয় প্রত্যেকটা কাজে কম করে 5 হাজার টাকা। তাই বেশি দেরি না করে আপনি এখনই শুরু করুন আধুনিক পদ্ধতিতে ক্যামেরার ব্যবসা। এই ব্যবসা করার জন্য যাবতীয় তথ্য দেওয়া হল।

CCTV camera business
CCTV ক্যামেরার ব্যবসা

Table of Contents

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে? (How much does it cost to run a CCTV camera business?)

প্রতিটা ব্যবসার মতো এই ব্যবসা করতে বেশি পুঁজি খরচ হয় না। কারণ সুরক্ষা সিস্টেম ব্যবসা বিনা পুঁজিতে ও শুরু করা যায়। বিনা পুঁজিতে শুরু করার জন্য একটু বুদ্ধি দরকার হয় আর কিছু আধুনিক মার্কেটিং পদ্ধতি প্রয়োজন পড়ে। তবে সাধারণত CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে হলে আপনাকে ন্যূনতম 20 হাজার টাকা থেকে 25 হাজার টাকা খরচ করতে হবে। আর আপনি যদি এই ব্যবসা বড় করে শুরু করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে 1 লক্ষ টাকা থেকে 2 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

সুরক্ষা সিস্টেম ব্যবসায় কি কি জিনিস লাগে? (What do security system businesses need?)

সুরক্ষা সিস্টেম ব্যবসার প্রয়োজনীয় কাঁচামাল বলতে যে জিনিস গুলো লাগে সেগুলো হলো-

  • CCTV ক্যামেরা
  • তারের কেবিল
  • কানেক্টর
  • হার্ড ড্রাইভ

CCTV ক্যামেরার ব্যবসায় প্রয়োজনীয় জিনিস গুলি কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

এই ব্যবসায় প্রয়োজনীয় জিনিস গুলি বলতে সিসিটিভি সহ বাকি সব সরঞ্জাম যা আপনি খুবই কম দামে কিনতে পারেন আপনার এলাকার বড় হোলসেল মার্কেট থেকে। যেমন আপনি চাইলে পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার বড়বাজার হোলসেল মার্কেট থেকে খুব অল্প দামে CCTV ক্যামেরা সহ সকল সরঞ্জাম কিনতে পারেন। এছাড়াও আপনি বাংলাদেশের চকবাজার পাইকারি মার্কেট থেকে খুবই অল্প মূল্যে সিসিটিভি ক্যামেরা সহ বাকি সব সরঞ্জাম কিনতে পারেন। এছাড়াও আপনি চাইলে অনলাইনে যেকোন ই-কমার্স ওয়েবসাইট থেকে সকল প্রকার সরঞ্জাম কিনতে পারেন। অ্যামাজন, আলিবাবা, ফ্লিপকার্ট, ইন্ডিয়ামার্ট এই ধরনের ওয়েবসাইট খুলিতে অনেক অল্প মূল্যে CCTV ক্যামেরা সহ সমস্ত যন্ত্রপাতি এবং সরঞ্জাম পাওয়া যায়।

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে কি কি মেশিন লাগে? (What machines are needed to do CCTV camera business?)

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে খুব বেশি মেশিনের প্রয়োজন পড়ে না। তবুও আপনাকে কয়েকটা যে মেশিন কিনতে হবে সেগুলি হল-

  • ড্রিল মেশিন
  • তাতাল
  • ওয়ারিং যন্ত্রপাতি

CCTV ক্যামেরার ব্যবসায় অফিস নির্মাণ (CCTV Camera Business Office Construction)

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে কোনো একটি জায়গাতে একটা অফিস তৈরি করতে হবে। এমন একটি জায়গাতে অফিস তৈরি করতে হবে যেখান থেকে আপনি খুব সহজেই আপনার ব্যবসাকে পরিচালনা করতে পারবেন। এর জন্য আপনি একটা জনবহুল এলাকার বাজার অঞ্চলে অফিস তৈরি করতে পারেন অথবা শহরের কোন একটি ভালো জায়গাতে অফিস বানাতে পারেন। মনে রাখবেন যে এলাকাতে অফিস তৈরি করবেন তার পার্শ্ববর্তী সমস্ত এলাকাতেই আপনাকে ব্যবসা করতে হবে। তাই জন্য সবচেয়ে ভালো যে অঞ্চলে আপনি ব্যবসা পরিচালনা করছেন সেই অঞ্চলের মধ্যেই কোন একটি জায়গাতে অফিস তৈরি করা।

অবশ্যই পড়ুন- অটোমোবাইল পার্টস এর ব্যবসা

বিনা পুঁজিতে CCTV ক্যামেরার ব্যবসা কিভাবে করা হয়?

বিনা পুঁজিতে CCTV ক্যামেরার ব্যবসা শুনে হয়ত অনেকেই অবাক লাগতে পারে কিন্তু এটা সম্ভব। আপনাকে ব্যবসার শুরুতে 100 টাকা খরচ করে একটা ডিজিটাল ভিজিটিং কার্ড বানিয়ে নিতে হবে। এই ভিজিটিং কার্ডে আপনি সিসিটিভি ক্যামেরার যাবতীয় ইনফর্মেশন এবং আপনি যে ব্যবসাটি করছেন তার লেখা থাকবে। তারপর আপনাকে যে এলাকাতে ব্যবসা করতে চান সেই এলাকার প্রতিটা দোকানে একটা করে ভিজিটিং কার্ড দিতে হবে। এছাড়াও আপনি চাইলে অনলাইনে ফেসবুক ইউটিউব অথবা গুগলের মাধ্যমে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করতে পারেনা ওই এলাকার মধ্যে। ওই এলাকাতে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য আপনি নির্বাচন করতে পারেন শুধুমাত্র পুরুষ এবং কুড়ি বছরের উপরের বয়স্ক মানুষদের।

ইতি করে অনলাইনে বিজ্ঞাপনগুলি শুধুমাত্র ওই একটা এলাকায় বিশেষ এই দেখানো হবে। এরপর যখন কোন দোকান থেকে আপনার কাছে অর্ডার আসবে CCTV ক্যামেরা লাগানোর, তখন আপনি আপনার এলাকায় পরিচিত সিসিটিভি ক্যামেরার ব্যবসায়ীদের ওই দোকানে ক্যামেরা লাগানোর কথা বলবেন। ক্যামেরা লাগানো হয়ে গেলে আপনি দোকানদারের কাছ থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণের টাকা নিয়ে সিসিটিভি ক্যামেরার ব্যবসায়ীদের দেয়ার পরেও আপনার কাছে ভাল অঙ্কের কমিশন থেকে যাবে। ফলে বিনা পুঁজি ইনভেস্ট করে একটু বুদ্ধি খাটিয়ে ব্যবসা করলেই খুব ভালোভাবেই ব্যবসা করা যায়।

CCTV cameras
CCTV ক্যামেরা

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্স লাগে?

প্রতিটা ব্যবসার মতো CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে হলে আপনাকে কয়েকটি লাইসেন্স নিয়ে নিতে হবে। ব্যবসার প্রথমে আপনাকে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে। ট্রেড লাইসেন্স এর মধ্য দিয়ে আপনার ব্যবসার সরকারের কাছে নথিভূক্ত করতে হবে। এর সাথে সাথে আপনাকে জিএসটি নাম্বার নিয়ে নিতে হবে।
এই সমস্ত লাইসেন্স আপনি চাইলে আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অফিস অথবা বিডিও অফিস কিংবা কর্পোরেশন অফিস থেকে পেয়ে যাবেন। আবার আপনি চাইলে বর্তমানে অনলাইন এর ওয়েবসাইটে এপ্লাই করে ও সরাসরি অনলাইনের মাধ্যমেই সকল প্রকার লাইসেন্স সংগ্রহ করতে পারেন। ট্রেড লাইসেন্স এবং GST নাম্বার এর জন্য আপনার খরচ হবে দুই থেকে তিন হাজার টাকা।

সুরক্ষা সিস্টেম ব্যবসা কি জন্য দরকারি?

আপনার ব্যবসার প্রতিষ্ঠান কাঁচামাল এবং ব্যক্তিগত সম্পদ যেমন অর্থ আসবাবপত্র এই সমস্ত জিনিস গুলি দেখভাল করার জন্য সবচেয়ে ভালো হলো CCTV ক্যামেরা। তাই জন্য একটা ছোট্ট দোকান থেকে বড় মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির অফিস পর্যন্ত সমস্ত জায়গাতেই বর্তমানে ক্যামেরা লক্ষ্য করা যায়। একটা পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেখা গেছে 60% চুরি এবং জালিয়াতি সেই কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের কর্মী দ্বারাই হয়ে থাকে। এই সকল কারণে এই ব্যবসা আপনাকে অনেক লাভবান করতে পারে।

আরো পড়ুন- বেকারি ব্যবসা শুরু করুন

CCTV ক্যামেরার ব্যবসায় উপযুক্ত কর্মচারী নিয়োগ

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে উপযুক্ত কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে। উপযুক্ত কর্মচারী বলতে ছোট ব্যবসা হলে আপনার একটা ইলেকট্রিক টেকনিশিয়ান বড় ব্যবসা হলে একাধিক টেকনিশিয়ান নিয়োগ করতে হবে। এই টেকনিশিয়ানরা নিজেরাই সিসিটিভি দোকানে লাগিয়ে দেবে এবং চালু করে দেবে। আপনাকে শুধুমাত্র একের পর এক অর্ডার ধরতে হবে এবং এই টেকনিশিয়ানদের দিয়েই কাজ করিয়ে নিতে হবে। একজন টেকনিশিয়ান কে আপনি ন্যূনতম বেতন হিসেবে বর্তমানের 8 থেকে 10 হাজার টাকা দিতে পারেন। এরপরেও আপনার লাভ থাকবে অনেক অনেক টাকা।

সিসিটিভি ক্যামেরার কোথায় মার্কেটিং করবেন?

এই ব্যবসা করতে হলে সর্বপ্রথম আপনাকে মাথায় রাখতে হবে যে ব্যবসাটি কোন এলাকাতে এবং মার্কেটিং কোথায় কোথায় করা যায়। এর জন্য আপনি সর্বপ্রথম একটু মার্কেট রিসার্চ করতে পারেন। তবে সাধারণত আপনি যে সকল জায়গাতে CCTV মার্কেটিং করতে পারবেন সেটা হল-

  • স্কুল ও কলেজ
  • হাসপাতাল
  • ওষুধের দোকান
  • রেস্টুরেন্ট
  • শপিং মল
  • বিভিন্ন রকমের অফিস
  • ফ্যাক্টরি বা কারখানা
  • নতুন আবাসিক বাড়ি
  • এছাড়াও কারোর পার্সোনাল বাড়ি
  • সরকারি বিভিন্ন অফিস এবং রাস্তা

এই সমস্ত জায়গাতে সিসি.টিভি ক্যামেরার প্রয়োজন পড়ে, তাই আপনি এই সকল জায়গাতে যোগাযোগ করে অর্ডার নিয়ে CCTV ক্যামেরা বসানোর কাজ করতে পারেন।

অবশ্যই পড়ুন- 1 হাজার টাকায় ভিনিগার তৈরির ব্যবসা

How to install CCTV camera
সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানোর পদ্ধতি

CCTV ক্যামেরার সুবিধা

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে কাস্টমারকে সিসিটিভি ক্যামেরার সুবিধা সম্পর্কে বোঝাতে হবে। এর জন্য আপনাকেও জানতে হবে যে CCTV ক্যামেরার কি কি সুবিধা পাওয়া যায়।

  • Real-time লাইভ মনিটরিং
  • মোবাইল মনিটরিং
  • অনলাইন রিমোট মনিটরিং
  • রেকর্ড প্লেব্যাক
  • ভিডিও ব্যাকআপ

এছাড়াও প্রতিটা ক্যামেরার ওপরে আপনি তিন বছরের ওয়ারেন্টি এবং ফ্রি সার্ভিস গ্যারান্টি প্রোভাইড করতে পারেন। কারণ একবার ক্যামেরা লাগানো হয়ে গেলে তিন বছরের মধ্যে সেই ক্যামেরা কোনভাবেই খারাপ হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকেনা। যদি কোন কারণে ভুলবশত খারাপ হয়ে যায় তাহলে আপনি সেটা সেরে দেবেন ফ্রিতে এইরকম ওয়ারেন্টি দিতে পারেন। এতে করে আপনার কাস্টমার সংখ্যা অনেক বেড়ে যাবে। এমনিতেই আপনি যখন একটা সিসিটিভি ক্যামেরা কিনবেন দোকান থেকে তখন আপনাকে 3 বছরের ওয়ারেন্টি দিয়ে দেবে সরাসরি কম্পানি। তাই আপনিও কাস্টমারকে এই ভাবেই 3 বছরের ওয়ারেন্টি দিতে পারেন এবং আকর্ষনীয় অফার দিতে পারেন।

CCTV ক্যামেরার ব্যবসায় লাভ কত? (What is the profit of CCTV camera business?)

CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে খুব যেমন অল্প পুঁজি বিনিয়োগ করতে হয় তেমন এই ব্যবসাতে লাভের পরিমাণ হয় অনেক বেশি। সিসিটিভি কেনার খরচ টা আপনি সরাসরি দোকানদারের কাছ থেকেই তুলে নিতে পারেন। দোকানের সমস্ত সিসিটিভি লাগানোর পরে আপনার খরচ হবে ন্যূনতম কুড়ি হাজার টাকা। আপনি একটা সিসিটিভি বসানোর পরের দোকানদারের কাছ থেকে সবচেয়ে কম হলেও 25 থেকে 30 হাজার টাকা নিতে পারেন।

অর্থাৎ প্রতি টা দোকানে সিসিটিভি বসানোর পরে আপনার লাভ থাকবে 5 হাজার থেকে 10000 টাকা কম করে। আপনি যদি প্রতি সপ্তায় কম করে পাঁচটা দোকানে CCTV ক্যামেরা বসাতে পারেন তাহলে আপনার ন্যূনতম এক সপ্তাহে লাভ হবে 30 থেকে 50 হাজার টাকা। অর্থাৎ একজন CCTV ক্যামেরার ব্যবসায়ী প্রতিমাসে লাভ করতে পারেন কম করে 1 লক্ষ টাকা থেকে 2 লক্ষ টাকা পর্যন্ত। বুঝতেই পারছেন এই ব্যবসাতে কত বেশি পরিমাণে লাভ হতে পারে।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

প্রশ্ন: CCTV ক্যামেরার ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

উত্তর: 20 হাজার টাকা থেকে 30 হাজার টাকা। আবার বিনা পুঁজিতে ও করা যায়।

প্রশ্ন: কত রকমের সিসিটিভি ক্যামেরা হয়?

উত্তর: CCTV ক্যামেরা প্রধানত দুই প্রকার। বুলেট ক্যামেরা ও ডোম ক্যামেরা। এছাড়াও প্রতিটি ক্যামেরা কয়েকটি ভাগে বিভক্ত থাকে সেগুলি হল-

  • মশান ট্রাকিং ক্যামেরা (Motion tracking camera)
  • নাইট ভিশন ক্যামেরা (Night Vision Camera)
  • আইপি ক্যামেরা (IP camera)

প্রশ্ন: সিসিটিভি ক্যামেরার ব্যবসায় লাভ কত?

উত্তর: ন্যূনতম লাভ থেকে প্রতিমাসে 50 হাজার টাকা থেকে 1 লক্ষ টাকা পর্যন্ত।

প্রশ্ন: ভারতের সেরা দশটি সিসিটিভি কোম্পানি কি কি? (Top ten CCTV companies in India)

উত্তর: ভারতের সবচেয়ে বড় বড় দশটা সিসিটিভি কোম্পানি হলো –

  1. CP Plus
  2. Dahua
  3. Hikvision
  4. Zicom
  5. Vivotek
  6. Panasonic
  7. Videocon
  8. D-Link
  9. Godrej
  10. Axis communication

প্রশ্ন: সিসিটিভি ক্যামেরা কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

উত্তর: যে কোন ইলেকট্রনিক্স দোকানে আপনি CCTV ক্যামেরা পেয়ে যাবেন। এছাড়াও অনলাইনের যেকোনো ইকমার্স ওয়েবসাইট থেকে যেমন অ্যামাজন ফ্লিপকার্ট ইন্ডিয়ামার্ট ইত্যাদি ওয়েবসাইটগুলি থেকে খুব কম দামে CCTV ক্যামেরা পেয়ে যাবেন।

আমাদের এই পোষ্টে যদি কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে জানাবেন। আর আপনার ব্যবসা করার ক্ষেত্রে যদি কোনো অসুবিধা হয় তাহলেও আমাদের কমেন্ট করতে ভুলবেন না, আমরা দ্রুত সম্ভব আপনাকে সঠিক পরামর্শ দেব

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

পেপার প্লেট বিজনেস আইডিয়া

হাওয়াই চপ্পল তৈরির ব্যবসা

Leave a Comment