হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং কি? হোয়াটসঅ্যাপের সাহায্যে কিভাবে ব্যবসা করা যায়? | What is WhatsApp Marketing?,1 no successful marketing

আমরা সবাই বর্তমান সময়ে অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করি, আর অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করা মানেই তাতে হোয়াটসঅ্যাপ রাখা। কারণ হোয়াটস অ্যাপের সাহায্যে খুব সহজেই আমরা একে অপরের সাথে যোগাযোগ করতে পারি, ছবি বিনিময়, ভিডিও কল সমস্ত কিছুই আমরা করতে পারি। ধীরে ধীরে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং ব্যবহার করার মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। ইম্পর্টেন্ট কিছু ইনফরমেশন শেয়ার করা এবং দূরের কোনো মানুষের সাথে যোগাযোগ করার কারণে হোয়াটসঅ্যাপ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া মধ্য প্রথম সারিতে অবস্থান করে

বর্তমান সময়ে প্রতিটা স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরা তাদের পড়াশোনা চালানোর জন্য অনলাইনে হোয়াটসঅ্যাপ টা খুব ব্যবহার করে থাকছে। পড়াশুনা নোট আদান প্রদান কিংবা অনলাইন ক্লাস বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপে হচ্ছে। আবার এখন হোয়াটসঅ্যাপ অনলাইনে বিল মিটানো থেকে শুরু করে টাকা আদান প্রদানের মাধ্যমে শুরু করেছে। তাই অনেক মানুষ জন যারা কোন জিনিস কিনতে অর্ডার করছে হোয়াটসঅ্যাপ এর মধ্য দিয়েই। মানুষের সময় কে কাজে লাগানোর জন্য হোয়াটসঅ্যাপ তারমধ্য বিভিন্ন ধরনের ফিচারস যুক্ত করছে।

বর্তমানে ওষুধপত্র থেকে খাবার যেকোনো জিনিস হোয়াটসঅ্যাপ এর মধ্য দিয়েই অর্ডার করা যায় শুধু একটা ক্লিকের মাধ্যমে। আর হোয়াটসঅ্যাপে এখন অনেক ব্যবসায়ী তার ব্যবসা কে নিয়ে চলে এসেছে। এখান থেকেই শুরু হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর কাজ। তবুও এখনো অনেক মানুষ জন আছে যারা হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর নাম শোনেনি। কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে ব্যবসা করা যায় আর কিভাবে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে ব্যবসা করা যায় চলুন সেটা দেখা যাক। তাই সবার প্রথমে আমাদের জানতে হবে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং কি?

What is WhatsApp Marketing
WhatsApp Marketing

হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং কি? (What is WhatsApp Marketing?)

হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং অন্যান্য বাকি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মতই একটি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। বর্তমানে অনেক ব্যবসায়ী আছেন যারা টার্গেটিং কাস্টমার পাওয়ার জন্য হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং কে ব্যবহার করে থাকে। হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর মধ্য দিয়ে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে টার্গেটেড কাস্টমার পাওয়া যায়। অর্থাৎ আপনি যে ধরনের প্রোডাক্ট পছন্দ করেন সেই ধরনের প্রোডাক্ট আপনার কাছে পৌঁছে দেবে হোয়াটসঅ্যাপ এর মধ্য দিয়ে কিছু ব্যবসায়ী। বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং খুব জনপ্রিয়তা লাভ করেছে টার্গেটিং কাস্টমার ধরার ক্ষেত্রে। হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং অন্যান্য মার্কেটিং সাইটগুলির থেকে কোন ব্যতিক্রম কিছু না, আমরা প্রত্যেকেই হোয়াটসঅ্যাপ প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করি তাই সেই হোয়াটসঅ্যাপ প্লাটফর্মে হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট ইন্সটল করে সেখান থেকে আমরা শুরু করতে পারি হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং ব্যবসা।

হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট কিভাবে খোলা যায়? (How to open a WhatsApp Business Account?)

আমরা অনেকেই জানিনা হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট কিভাবে খোলা যায়। কিন্তু আমরা প্রত্যেকেই হোয়াটসঅ্যাপ পার্সোনাল একাউন্ট তৈরি করে রেখেছি। আরসি পার্সোনাল একাউন্টে স্ট্যাটাস এর মধ্য দিয়ে বিভিন্ন স্ট্যাটাস আমরা দিয়ে থাকি। হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট খোলার জন্য অবশ্যই আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে আপনার ফোনে। ঠিক যেমন ভাবে আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন ঠিক তেমন পদ্ধতিতেই হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট খুলতে হবে।

বিজনেস একাউন্ট খোলার পর, আপনার আত্মীয় স্বজন, বন্ধু বান্ধব দের নিয়ে যে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ রয়েছে সেই গ্রুপের ভেতরে আপনাকে বিভিন্ন প্রোডাক্ট ছবি সহ দাম পোস্ট করতে হবে। দেখবেন অনেক মানুষ জন আছে যারা আপনার পোস্টগুলো দেখে নাম্বার তার সম্পর্কে বিভিন্ন জিনিস জানতে চাইবে এখান থেকেই আপনি তাদেরকে সেই প্রোডাক্ট গুলি বিক্রি করতে পারেন এবং এই ভাবে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করতে পারেন।

হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট টা অবশ্যই আপনার পার্সোনাল নাম্বার না হলে সেটা ভালো হয়। অর্থাৎ অল্টারনেটিভ কোন নাম্বার দিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। যাতে বিজনেস সম্পর্কিত যাবতীয় সমস্যা এবং ইনফর্মেশন আপনার পার্সোনাল নাম্বারে না আসে, বিজনেস একাউন্ট এর বিজনেস নাম্বারেই এসে থাকে। আসলে কাস্টমারদের সামনে আপনার পার্সোনাল লাইফ টা না প্রদর্শন করাটাই শ্রেয় হবে।

help of WhatsApp marketing
হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং সাহায্যে ব্যবসা

বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপ দু’ধরনের ভার্সন প্রকাশ করেছে একটা WhatsApp Messenger আর একটা WhatsApp Business। আমরা সবাই হোয়াটসঅ্যাপ মেসেঞ্জার এর সাহায্যে আমাদের পার্সোনাল কথাবার্তা এবং পার্সোনাল মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে থাকি। আর হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস এর সাহায্যে আমরা হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করে থাকি। হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট আপনি আপনার প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন। আপনি যদি আইফোন ইউজার হয়ে থাকেন তাহলে অ্যাপেল স্টোর থেকে অ্যাপটি আপনি ডাউনলোড করতে পারেন।

হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট এর অনেক নতুন নতুন সুবিধা রয়েছে যেগুলি হোয়াটসঅ্যাপ মেসেঞ্জারে দেখতে পাওয়া যায় না। তাই জন্য হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস অ্যাকাউন্ট টি আপনি খুললে আপনার ব্যবসাকে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে। আর আপনি খুব ভালোভাবে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করতে পারবেন।

কিভাবে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করবেন?

হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করার আগে অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে যে বিজনেস অ্যাকাউন্ট আপনি ওপেন করছেন সেটি অবশ্যই আপনার পার্সোনাল নাম্বার না হয় যেন প্রফেশনাল নাম্বার হয়ে থাকে। যাতে ব্যবসায়ীক কোন যোগাযোগের জন্য কোন কাস্টমার যোগাযোগ করলে আপনাকে পেতে পারে। এরপরে হোয়াটসঅ্যাপ প্রোফাইল পিকচার হিসেবে আপনি আপনার কোম্পানির লোগো ব্যবহার করতে পারেন অথবা এমন কিছু ছবি ব্যবহার করতে পারেন যেটা আপনার ব্যবসাকে বোঝার জন্য মানুষের কাছে সুবিধা তৈরি করবে।

হোয়াটসঅ্যাপ মেসেঞ্জার এর মত আপনি চাইলে এখানে আপনার কন্টাক্ট লিস্ট এর সমস্ত মানুষজনকে দেখতে পাবেন, আবার আপনি চাইলে এদের মেসেজ এর সাথে সাথে কাস্টমারের কল পাওয়ার জন্য একটি ফোন নাম্বার যোগ করতে পারেন, যাতে ফোন করলে আপনাকে সহজেই পাওয়া যায়। কোন ফোন নাম্বার অ্যাটাচ এই কারণেই করতে হবে যখন আপনাকে কোন কাস্টমার এসএমএস করে পাবেনা তখন কল করবে। আর এই পদ্ধতি করতে হলে আপনার কাছে একটি OTP আসবে সেই ওটিপি টা ওই APP এর সঙ্গে যোগ করতে হবে।

এছাড়াও হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্টে আপনি আরও অনেক কিছু যুক্ত করতে পারেন। যেমন আপনার বিজনেস স্টোরের অ্যাড্রেস, অফিসের অ্যাড্রেস, কোন প্রোডাক্ট এর দাম ইত্যাদি। চলুন দেখা যাক কিভাবে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করবেন-

আরো পড়ুন- ব্যবসা শুরু করে 10 লাখ টাকা আয়

WhatsApp marketing করার পদ্ধতি

হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করার অনেক ধরনের পদ্ধতি রয়েছে সেইসব পদ্ধতি গুলো দেওয়া হল, একটু মনোযোগ সহকারে দেখবেন-

  1. যেহেতু হোয়াটসঅ্যাপে আপনার পরিচিত মানুষজনের রয়েছে তাই সবাই আপনাকে বিশ্বাস করে বলে ধরে নেওয়া যেতে পারে। আর একজন ব্যবসায়ীর কাছে বিশ্বাস জিনিসটা খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে। আপনার হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর ক্ষেত্রেও টার্গেটেড কাস্টমারদের বিশ্বাস অর্জন করাটা আপনার কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।
  1. সারা পৃথিবীতে 60 বিলিয়ন এসএমএস প্রতিদিন হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে পাঠানো হয়ে থাকে। যা পুরো পৃথিবীর জনসংখ্যার 8.5 গুণ বেশি। হলে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর প্রবণতা দিন দিন হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে বেড়ে যাচ্ছে। আর বিভিন্ন ব্যবসায়ী হোয়াটসঅ্যাপ কে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং হিসেবে ব্যবহার করছে।
  2. হোয়াটসঅ্যাপ এর মধ্য দিয়ে ক্রেতা এবং বিক্রেতা দের মধ্যে কথাবার্তার জন্য দু’জনের সম্পর্ক খুব ভালো হয় ফলে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করার সুবিধাও অনেক বেশি থাকে।
  3. বর্তমানে দেখা যায় 18 থেকে 29 বছরের মধ্য তরুণ-তরুণীদের হোয়াটস অ্যাপ ব্যবহারের প্রবণতা বেশি, এবং এইসব তরুণ প্রজন্মকে ব্যবসার দিকে আকর্ষণ করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  4. স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছেলে মেয়েরা তাদের whatsapp-এ বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর স্ট্যাটাস দিতে থাকে যাতে তার পরিচিত মানুষজনকে তাদের কাছ থেকে সেই সব প্রোডাক্ট গুলি কেনে এইভাবে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে বাড়িতে-বাড়িতে, শহরে-শহরে, মানুষেমানুষে।
  5. এছাড়াও একটি সমীক্ষা থেকে দেখা গেছে হোয়াটসঅ্যাপে মানুষের ইংগেজমেন্ট অনেক বেশি থাকে। প্রতিদিনের করা 98% মেসেজ 3 সেকেন্ডের মধ্যে ওপেন করা হয়।

এবারে বুঝতেই পারছেন কি কারনে প্রতিটা ব্যবসায়ী তার ব্যবসাকে হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর মধ্য দিয়ে আরও বৃদ্ধি করতে পারছে। আপনিও যদি এখনও আপনার ব্যবসাকে হোয়াটসঅ্যাপের মধ্যে না নিয়ে আসেন তাহলে এখনই নিয়ে চলে আসুন, হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে বড় করে তুলুন।

অবশ্যই পড়ুন- ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করুন

হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর পরবর্তী ধাপ কি?

হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর পরবর্তী ধাপ বলতে যখন আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপের প্রতিটা কনটাক্ট লিস্টের মানুষদের আপনার ব্যবসা সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য প্রদান করতে থাকবেন, তখন তারা ধীরে ধীরে আপনার কাছ থেকে সেই সব প্রোডাক্ট গুলি কিনতে থাকবে। এতে আপনার ব্যবসার উন্নতি সাধন হবে। আপনাকে মাথায় রাখতে হবে প্রতিদিনের প্রতিদিন নিত্যনতুন পোস্ট আপডেট করতে করতে মানুষদের মধ্যে এঙ্গেজমেন্ট বজায় রাখতে হবে।

এছাড়াও আপনাকে কুইক সাপ্লাইয়ের এবং কুইক রিপ্লাইয়ের ব্যবস্থা রাখতে হবে। অর্থাৎ আপনার হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর মধ্য দিয়ে যেসকল কাস্টমার আপনার কাছ থেকে প্রডাক্ট কিনবে তাদেরকে দ্রুত সাপ্লাই এর ব্যবস্থা করে দিতে হবে এবং তাদের করা এসএমএস এর রিপ্লাই আপনাকে দিতে হবে। আপনি চাইলে হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট এর অটোমেটিক এসএমএস ব্যবহার করতে পারেন। আর আরেকটা জিনিস আপনাকে বেশি করে মাথায় রাখতে হবে প্রতিটা কাস্টমারের করা প্রশ্নের জবাব আপনাকে সহজ-সরল ভাবে তাদের কাছে উপস্থাপন করতে হবে যাতে তারা আপনার প্রতি বিশ্বাস বজায় রাখে।

Business with the help of WhatsApp
হোয়াটস অ্যাপের সাহায্যে ব্যবসা

ব্যবসা অনুযায়ী হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করা

আপনাকে প্রথমে ঠিক করতে হবে আপনি কি ধরনের ব্যবসা করছেন সেটি, বা কি ধরনের ব্যবসা করতে চান সেটি। আপনি যখন নির্ধারণ করে ফেলবেন আপনি কি ধরনের ব্যবসা করতে চান তারপরে আপনার প্রথম কাজ হবে আপনার হোয়াটসঅ্যাপে ধাকা প্রতিটা কন্টাক্ট লিস্ট এর মধ্য কাদেরকে সেই ব্যবসার প্রোডাক্ট গুলি বিক্রি করতে পারবেন। বুঝি বুঝি সেই ধরনের ইন্টারেস্টেড মানুষদের আলাদা আলাদা করে গ্রুপে এড করুন। যখন আপনার কন্টাক্ট লিস্ট এর প্রতিটা মানুষ আলাদা আলাদা ইন্টারেস্টের গ্রুপে যুক্ত হয়ে যাবে। তারপর আপনার প্রধান কাজ হবে সেই সব গ্রুপের আলাদা আলাদাভাবে নিত্য নতুন পোস্ট করার।

কন্টাক লিস্টে থাকা প্রতিটা ব্যক্তিকে আপনি আলাদা আলাদা গ্রুপে ভাগ করে দেওয়ার ফলে আপনার বোঝার সুবিধা হবে যে কোন গ্রুপের মানুষের চাহিদা কেমন। এর ফলে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করার সুবিধা অনেক বেড়ে যাবে এবং দ্রুত আপনার ব্যবসার ও সুনাম বৃদ্ধি পাবে। কারণ আপনি যদি মেয়েদের গ্রুপে গিয়ে লুঙ্গি বিক্রি করতে চান তাহলে বিক্রি হবে না। তাদের গ্রুপে যদি আপনি বিভিন্ন জুয়েলারি মেকাপের প্রোডাক্ট বিক্রি করেন তাহলে খুব দ্রুত তারা সেগুলো কিনে নেবে এবং তাদেরও ভালো লাগবে। এইসব কারণগুলোর জন্য হোয়াটসঅ্যাপে থাকা কন্টাক্ট লিস্ট এর প্রতিটা মানুষকে আলাদা আলাদা গ্রুপে ভাগ অবশ্যই করতে হবে।

আপনাকে অবশ্যই প্রতিটা জিনিসের দাম এবং কোয়ালিটি ওপরের নজর দিতে হবে। হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং এর শুরুতে আপনার অনেক সমস্যা আসতে পারে কিন্তু সেই সব সমস্যা গুলোকে আস্তে আস্তে সমাধান করে এগিয়ে যেতে হবে। ব্যবসার শুরুতে কাস্টমারদের বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করতে একটু সময় লাগতে পারে তবে ধীরে ধীরে আপনি বিশ্বাসযোগ্যতা অনেক অর্জন করতে পারবেন। প্রডাক্ট নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদের অর্ডার গুলি তাদের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।

সুতরাং আর দেরি না করে এখনি আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপ কন্টাক্ট লিস্টে থাকা প্রতিটা মানুষদেরকে আলাদা আলাদা গ্রুপে ভাগ করে, হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস একাউন্ট খুলে, শুরু করে ফেলুন হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং। তবে আপনার সবচেয়ে যে জিনিসটা দরকার পড়বে সেটা হচ্ছে ধৈর্য কারণ হোয়াটসঅ্যাপ মার্কেটিং করতে হলে ধৈর্য্য অনেক দরকার লাগে।

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

ইলেকট্রিক সাইকেলের ডিলারশিপ ব্যবসা 

ব্যাগ তৈরির ব্যবসা করে মাসে আয় 1 লক্ষ টাকা

Leave a Comment