লবণের ব্যবসা শুরু করুন মাত্র 10 হাজার টাকায় | Make your own company by trading salt,Right now

পৃথিবীর প্রতিটা মানুষের খাদ্য তালিকায় লবণ এক আলাদা জায়গা দখল করে রেখেছে। তাই জন্য সর্বদা লবণের ব্যবসা প্রতিটা লবণ ব্যবসায়ীকে লাভবান করে তুলেছে। আপনি ভারতে থাকুন কিংবা বাংলাদেশ আপনিও যদি শুরু করেন অল্প পুঁজি নিয়ে লবণের ব্যবসা তাহলে আপনিও সফলতা পাবেন। আমরা সবাই জানি অল্প পরিমাণ এর লবণ খাদ্যের স্বাদ এর মাত্রা বহুগুণ বাড়িয়ে দেয়। প্রতিটা পরিবারেই লবণের চাহিদা সর্বদাই থেকে থাকে। তাই জন্য লবণের ব্যবসা দ্রুততার সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং সফলতা অর্জন করছে। লবনের ব্যবসা সম্বন্ধিত সকল তথ্য নিয়ে আজকের এই পোস্ট।

Table of Contents

লবণের ব্যবসা করতে কত পুঁজি বিনিয়োগ করতে হবে?

লবণের ব্যবসা আপনি যদি ছোট করে শুধু করেন তাহলে আপনি 10 থেকে 15 হাজার টাকা বিনিয়োগ করে শুরু করতে পারেন। আবার আপনি যদি 1 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে ব্যবসা করেন তাহলে একাধিক আধুনিক প্রযুক্তির মেশিনসহ আপনার ব্যবসা ও ভালোভাবে করতে পারবেন। ফলে আপনার কাছে যেমন পরিমাণ পুঁজি রয়েছে সেই অনুযায়ী আপনি বিনিয়োগ করে লবণের ব্যবসা করতে পারেন। লবণের ব্যবসা খুবই অল্প পুঁজির ব্যবসার মধ্যে একটি কিন্তু এই ব্যবসায় লাভের পরিমাণ 60% থেকে 70% হতে পারে। ফলে ব্যবসার শুরুতে একটু বেশি পরিমাণ পুঁজি বিনিয়োগ করে যদি আপনি শুরু করেন কাজ তাহলে আপনার লাভের পরিমাণ বহুগুণ বেড়ে যেতে পারে।

লবণের ব্যবসায় কি কি কাঁচামাল লাগে? (What are the raw materials used in salt business?)

লবণের ব্যবসায় সাধারণত কাঁচামাল হিসেবে প্রধানত যে জিনিসটা ব্যবহৃত হয় সেটা হল কাঁচা লবণ। কাঁচা লবণ ছাড়াও প্যাকেজিং এর জন্য একাধিক সাইজের প্লাস্টিক প্যাকেট এর প্রয়োজন। বিশুদ্ধ কাঁচা লবণ আপনাকে সংগ্রহ করতে হবে এই ব্যবসা করতে গেলে।

লবণের পাইকারি বাজার কোথায়?

লবণের ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে কাঁচা লবণ সংগ্রহ করতে হবে সরাসরি পাইকারি বাজার অথবা বড় লবণের কোম্পানি থেকে। আবার আপনি সরাসরি যেখানে লবণ উৎপাদিত হয় সেই লবণ উৎপাদক চাষীদের কাছ থেকেও কিনতে পারেন। আপনি যদি পশ্চিমবঙ্গে থেকে থাকেন তাহলে আপনি কোথা থেকে লবণ কিনবেন এবং কোন কোম্পানির কাছ থেকে লবণ কিনলে কম দামে লবণ পাবেন তার নাম ফোন নাম্বার নিচে দেওয়া হল।
বাংলাদেশ থেকে থাকলে আপনি লবনের পাইকারি বাজার হিসেবে কক্সবাজারের লবণ উৎপাদক চাষীদের কাছ থেকে অল্প দামে সংগ্রহ করতে পারেন। এছাড়াও বাংলাদেশের কক্সবাজারে একাধিক যে লবণের বড় বড় কোম্পানি রয়েছে যারা লবণ পরিশুদ্ধ করে থাকে তাদের যোগাযোগ নাম্বার নিচে দেওয়া হলো, আপনি প্রয়োজন অনুযায়ী তাদের কল করে লবণ কিনতে পারেন।

কলকাতা

  • Bharat Bhusan and Company Posta, kolkata, West Bengal, India Contact:- 03322591396 Mob:- +919331315004 +929331034470
  • Roy Chemfood Products Pvt Ltd Kolkata, India Mob:- 9874545170
  • Shree Durga Salt Company Barabazar, Kolkata GPO Contact:- 03322590241 Mob:- +919163949999

বাংলাদেশে লবন কিনতে যোগাযোগ করুন

  • Molla Salt Industry Limited Dhaka, Narayanganj Highway, Fatullah, Bangladesh Mob:- +88029899862
  • ACI Salt Limited Rupganj, Bangladesh

কিভাবে লবণ তৈরি হয়? (How is salt made?)

লবণের ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে সেই লবণ কিভাবে তৈরি হচ্ছে এবং কোথায় থেকে আসছে। বর্তমানের লবণ তৈরি করার জন্য চাষিরা দুই ধরনের পদ্ধতি অবলম্বন করে থাকেন।

  • মাটির যে স্তরে লবণাক্ত জল পাওয়া যায় সেই স্তর পর্যন্ত বড় একটি কুয়া খোলা হয়।
  • কুয়ার লবণাক্ত জল পাম্পের সাহায্যে তুলে ফাঁকা জমিতে ঢেলে সংরক্ষণ করা হয়।
  • তারপর সেই ফাঁকা জমি থেকে আরেকটি জমিতে জল পাঠানো হয়।
  • কিভাবে লবণাক্ত জল একের পর এক সংরক্ষিত জায়গায় যেতে যেতে হালকা জল সূর্যের তাপে এবং বাতাসের জন্য বাষ্পীভূত হয়ে যায়।
  • ভারী লবণ মাটিতে বসতে থাকে, তখন লবণ চাষীরা সেই লবণ আস্তে আস্তে সংগ্রহ করেন।
  • সংগ্রহ করা লবণ কোম্পানিতে পাঠানো হয় পরিশুদ্ধ করার জন্য।
  • কোম্পানিতে লবণ পরিষ্কার জলে ধোয়া হয় এবং পরিশুদ্ধ করে পেশাই করা হয়।
  • তারপর আমাদের খাবার জন্য পরিশুদ্ধ লবণ প্যাকিং হয়ে বাজারে বিক্রি হয়।

অনেক জায়গায় সমুদ্রের লবণাক্ত জলকে ঠিক একই রকম পদ্ধতিতে প্রতিটা লবণচাষী কঠোর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে লবণ উৎপাদন করে থাকেন। বাংলাদেশের কক্সবাজারে মূলত সমুদ্রের জল থেকে লবণ উত্পাদিত করা হয়। ভারতের রাজস্থানে ভূগর্ভস্থ লবণাক্ত জল থেকে লবণ তৈরি করা হয়। আবার উত্তর ভারতের একাংশে সমুদ্রের জল থেকে লবণ তৈরি করা হয়।

কিভাবে লবণের ব্যবসা করা যায়? (How to start salt business?)

লবণের ব্যবসা করার জন্য আপনাকে কাঁচা লবণ কিনতে হবে প্রথমে। নুনের বস্তা আপনি 200 টাকা থেকে 220 টাকা দামে কিনতে পারেন। প্রতিটি বস্তায় 50 কেজি করে নুন থাকে। তারপর আপনাকে পরিমাণ মত লবণ প্রতিটা প্যাকেটের ভর্তি করে সিল করতে হবে। অটোমেটিক মেশিনের হলে নির্দিষ্ট পরিমাণের লবণ প্রতিটা প্যাকেটে ভর্তি হয়ে সিল্ড হয়ে বাইরে আসবে। তারপর আপনি প্রতিটা প্যাকেট বাজারে বিক্রি করার জন্য নির্দিষ্ট অবস্থায় কিংবা কার্টুন এ ভর্তি করে রেখে দিতে পারেন। যে প্যাকেটে আপনি লবণ ভর্তি করবেন তা আপনি আপনার কোম্পানির নাম এর ব্র্যান্ড তৈরি করে ভর্তি করতে পারেন।

অবশ্যই পড়ুন- ফেলে দেওয়া জামা কাপড় থেকে 1 লক্ষ টাকা আয়

লবণের ব্যবসা করতে কি কি মেশিন লাগে?

আপনি যখন লবণের ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে মেশিন কিনতে হবে। ছোট করে ব্যবসা করলে আপনি ছোট মেশিন কিনবেন। আপনি যদি বড় করে কোম্পানি তৈরি করে ব্যবসা করেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে অটোমেটিক ভালো মেশিন কিনতে হবে। লবণের ব্যবসা করার জন্য মূলত চিপ মেশিন বলি আপনাকে কিনতে হবে সেগুলি হল-

হ্যান্ড পাউজ সিলিং মেশিন6 হাজার টাকা থেকে 10 হাজার টাকা
অটোমেটিক পাউচ প্যাকিং মেশিন80 হাজার টাকা থেকে 1.5 লক্ষ টাকা
ওয়েট মেশিন2 হাজার টাকা
লবণের প্যাকেজিং মেশিন

লবণ প্যাকিং মেশিন কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

লবণের ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে অল্প দামে মেশিন কিনতে হবে। লবণের প্লাস্টিক প্যাকিং মেশিন তা আপনি কিনতে পারেন আপনার নিকটবর্তী যেকোনো মেশিন নির্মাতা কোম্পানির কাছ থেকে। আবার আপনি অনলাইনে অ্যামাজন, ইন্ডিয়ামার্ট, আলিবাবার মত ওয়েবসাইটগুলি থেকে অল্প দামে মেশিন কিনতে পারেন। ভারত এবং বাংলাদেশের মেশিন নির্মাতা কোম্পানি নাম ও যোগাযোগ নাম্বার নিচে দেওয়া হলো আপনারা চাইলে সেখান থেকে ফোন করে মেশিন অর্ডার দিতে পারেন কিংবা কোন ইনফরমেশন থাকলে জানাতে পারেন।

  • Rising Industries Tanushree Apartment (Ground Floor) Jhowtala, Near Lokenath Mandir Dutta Para Lane, Kolkata-700157 contact- +919830260440
  • Modern Flexi Packaging Systems Pvt Ltd Kolkata, India Mob:- 8048762692
  • Spectrum Packaging Kolkata, India Mob:- 8048725403
  • Creation Graphics Kolkata, India Mob:- 8048008050
  • Tirupati Traders Kolkata, India Mob:- 8048708679
  • P P Printing Kolkata, India Mob:- 8048568900

বাংলাদেশে ফুল অটোমেটিক প্যাকেজিং মেশিন

  • BL Machineries Cha- 59, North Dhaka- 1212, Bnagladesh Mob:- +8801307722733
  • Packman Bangladesh Limited 132, Tejgaon Industrial Area, Dhaka- 1208 Bangladesh Mob:- +8801704738475
  • Falcon Packaging Solution House No- 436, Road no 30, Dhaka- 1205, Bangladesh Mob:- +8801971647005
Salt packing machine
লবণ প্যাকিং মেশিন

নুনের ব্যবসা কোথায় করা যায়?

সাধারণত নুনের ব্যবসা করার জন্য নির্দিষ্ট কোন স্থান নেই। শহর কিংবা গ্রামের আপনি যেখানে বসবাস করেন সেখান থেকেই আপনি এই ব্যবসা করতে পারেন। আবার যে অঞ্চলে লবণ উৎপাদিত হয় সেই অঞ্চলেই আপনি কোথাও ঘর ভাড়া নিয়ে এই ব্যবসার কাজ চালিয়ে যেতে পারেন। এতে করে আপনার যাতায়াত খরচ অনেক কমে যাবে ফলে ব্যবসায় লাভের পরিমাণ বেড়ে যাবে। আবার আপনি লবণ যেকোনো জায়গা থেকে কিনে এনে ঘরেতেই প্যাকিং করে দোকানে সেল করতে পারেন। সেই জন্য আপনি যেখানেই বসবাস করেন সেখানেই ব্যবসা করুন সফলতা আপনি পাবেন, যেহেতু প্রতিটা জায়গাতেই লবণের চাহিদা আছে সেই কারণে।

আরো পড়ুন- গিফ্ট শপের ব্যবসা করুন 10 হাজার টাকায়

লবণের গোডাউন কেমন হওয়া উচিত?

লবণের ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে গোডাউন বানাতে হবে। আপনি যদি ছোট করে ব্যবসা শুরু করেন সেক্ষেত্রে আপনার গোডাউন না বানালেও চলবে। কিন্তু যারা লবণের ব্যবসা বৃহৎ আকারে নিয়ে যেতে চান এবং প্রতিমাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করতে চান তাদের অবশ্যই গোডাউন বানাতে হবে।

  • গোডাউন রাস্তার ধারে হতে হবে।
  • গোডাউনে চারটে রুম অবশ্যই থাকতে হবে।
  • গোডাউনে দেওয়াল ও মেঝে নুন থেকে রক্ষা করার জন্য কাঠের পাটাতন করে প্লাস্টিক দিয়ে ঢাকতে হবে।
  • ডেলিভারির সুবিধার জন্য ইমারজেন্সি গাড়ির ব্যবস্থা রাখতে হবে।

গোডাউন যদি রাস্তার ধারে হয়ে থাকে তাহলে আপনি অনেক সুবিধা পাবেন। যেমন কোম্পানি থেকে লবণ কিনে আনার পর তা গোডাউনের ঢুকাতে সুবিধা হবে । আবার গোডাউন থেকে তৈরি হওয়া প্যাকেট বাজারে বিক্রির জন্য গাড়ি লোড করতে সুবিধা হবে। কিন্তু গোডাউনের দেয়াল লবণ থেকে রক্ষা করার জন্য আপনাকে কাঠের পাটাতন তৈরি করতে হবে আর প্রতিটা কাঠের পাটাতনের ওপর এ প্লাস্টিক দিয়ে ভালো করে ঢেকে রাখতে হবে। তারপর আপনি তার ওপরে লবণের বস্তায় রাখতে পারেন কোন সমস্যা হবেনা দেওয়ালের। আর গোডাউনে চারটে রুম রাখার এটা আইনত নিয়ম। চারটে রুমের মধ্যে একটা হবে অফিস, একটা স্টোররুম, কোম্পানির কর্মচারীদের কাজের এর জন্যে একটি রুম, কাঁচা মালের গোডাউন একটা রুম।

নুনের ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্স লাগে?

প্রতিটা ব্যবসার মতো আপনি যখন নুনের ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে বেশ কয়েক প্রকারের লাইসেন্স নিতে হবে। ব্যবসার শুরুতেই আপনাকে FSSAI লাইসেন্স নিতে হবে। তো আপনি খাদ্যদ্রব্যের জিনিস বানাচ্ছেন তাই এই লাইসেন্স আপনার প্রয়োজনীয়। এরপরে আপনাকে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে। আর নিতে হবে জিএসটি নাম্বার।

  • FSSAI লাইসেন্স
  • ট্রেড লাইসেন্স
  • GST নাম্বার
  • কারেন্ট ব্যাংক একাউন্ট
  • ফায়ার ডিপার্টমেন্ট রেজিস্ট্রেশন
  • পরিবেশ দপ্তর এর রেজিস্ট্রেশন

এই সমস্ত লাইসেন্স এবং রেজিস্ট্রেশন করার জন্য আপনাকে প্রতিটা দপ্তরের অফিসে গিয়ে আবেদন করতে হবে। আপনি চাইলেই কয়েকটি লাইসেন্স আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অফিস অথবা বিডিও অফিস থেকে পেয়ে যেতে পারেন। এছাড়াও বর্তমানের অনলাইনের যুগে আপনি অনলাইনে আবেদন করেও প্রতিটা লাইসেন্স পেতে পারেন সহজ পদ্ধতিতে।

Salt packaging business
লবণের প্যাকেজিং ব্যবসা

লবণের প্যাকেজিং ব্যবসায় কর্মচারী নিয়োগ

লবণের প্যাকেজিং ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে। যেকোনো ব্যবসা একার পক্ষে করা সম্ভব না তা আপনিও জানেন তাই ব্যবসার কাজের সুবিধার্থে একাধিক কর্মচারীকে আপনাকে নিয়োগ করতে হবে। যারা প্যাকেজিং করায় হেল্প করবে এবং মার্কেটিং করার ক্ষেত্রেও হেল্প করবে। বিনিয়োগের পরে তাদেরকে আপনাকেই শেখাতে হবে একইভাবে লবণের প্যাকেজিং করতে হয় এবং মার্কেটিং করতে হয়। তুমি চাইলে দক্ষ শ্রমিক নিয়োগ করতে পারেন, তবে দক্ষ শ্রমিকের মজুরি অনেক বেশী হয়ে থাকে।

অবশ্যই পড়ুন- টিফিন পরিষেবার ব্যবসা

লবণের মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

লবণের ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই লবণ প্যাকেজিং এর পর তা মার্কেটে বিক্রি করার ব্যবস্থাও করতে হবে। আপনি যেমন অল্প দামে লবণ কিনছেন তেমন যদি আপনি অল্প লাভ রেখে লবণ বাজারে বিক্রি করতে পারেন তাহলে বিক্রির পরিমাণ অনেক গুন বেড়ে যাবে। যে পদ্ধতিতে আপনি মার্কেটিং করতে পারবেন তা হল-

  • আপনার এলাকার প্রতিটা মুদিখানা দোকানে লবণ বিক্রি করতে পারেন।
  • বড় বড় হোলসেলারদের কাছে লবণ বিক্রি করা যায়।
  • আপনার এলাকার পাইকারি বাজারে আপনি বিক্রি করতে পারেন।
  • বিভিন্ন এলাকা তে একাধিক ডিস্ট্রিবিউটার তৈরি করে তাদের মধ্যে বিক্রি করতে পারেন।
  • অনলাইনে নিজস্ব ওয়েব সাইট তৈরি করে সেই সাইটের মধ্য দিয়ে লবণের বিক্রি বাড়াতে পারেন।
  • অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট, ইন্ডিয়ামার্ট এর মত ই-কমার্স ওয়েবসাইট গুলিতে বিজনেস একাউন্ট খুলে লবণ বিক্রি করতে পারেন।
  • আরো নিত্য নতুন পদ্ধতিতে আপনি কিভাবে ব্যবসা করবেন তা আপনি মার্কেট রিসার্চ করেই বুঝতে পারবেন। তাই ব্যবসা শুরু করার আগেই একটু মার্কেটে রিচার্জ করে দেখে নিন।

লবণের ডিলারশিপ ব্যবসা কিভাবে করবেন?

আপনি যদি লবণ এর ডিলারশিপ ব্যবসা করতে চান তাহলে আপনাকে বাজারে বেশি বিক্রি হওয়া লবণ কোম্পানির কাছ থেকে ডিলারশিপ নিতে হবে। বড় লবণ কোম্পানির কাছ থেকে ডিলারশিপ নিতে গেলে আপনাকে সেই কোম্পানির অফিসে যোগাযোগ করতে হবে কিংবা আপনি চাইলে তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ও যোগাযোগ করতে পারেন। অফিশিয়াল ওয়েবসাইট যোগাযোগ করার পর মার্কেটিং ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলে সেই কোম্পানির ডিলারশিপ সম্পর্কিত সকল তথ্য জেনে ডিলারশিপ নেবেন।

প্রতিটা কোম্পানির ডিলারশিপ দেওয়ার জন্য তারা বিভিন্ন প্রকার শর্ত আরোপ করে। তাদের সকল প্রকার শর্ত যদি আপনি মেনে নিয়ে ব্যবসা করতে পারেন তাহলেই আপনি ডিলারশিপ পেয়ে যাবেন যে কোন কোম্পানির। এছাড়াও আপনাকে ডিপোজিট মানি হিসাবে নির্দিষ্ট পরিমাণের অর্থ কোম্পানির কাছে জমা রাখতে হবে ডিলারশিপ নেওয়ার আগে। আরো ডিলারশিপ ব্যবসা সম্পর্কিত তথ্যের জন্য দেখতে পারেন এই লিংকে-

লবণের ব্যবসায় লাভ কত?

লবণের প্যাকেজিং ব্যবসা আপনি যখন শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনার লাভ অনেকগুণ বেড়ে যাবে অন্য ব্যবসায়ীদের থেকে। কারণ লবণ প্রতি কুইন্টাল আপনি কিনতে পারবেন 400 টাকা থেকে 450 টাকা দামে। অর্থাৎ প্রতি কেজি 4 টাকা করে আপনার খরচ হচ্ছে লবণ কিনতে। তারপর প্যাকেজিং এবং মজুরি হিসাবে এক টাকা খরচ হবে প্রতি কেজি লবণ। সম্পূর্ণ লবণ প্যাকেজিং হয়ে যাবার পর তা আপনার পড়বে 5 টাকা থেকে 6 টাকায়।

বাজারে বিক্রি করতে পারবেন আপনি 10 টাকা থেকে 15 টাকা পাইকারী দামে। প্রতিদিন খুব ভালোভাবেই আপনি 100 কেজি থেকে 200 কেজি লবণ দোকানে বিক্রি করতে পারবেন। অর্থাৎ প্রতিদিন আপনি আর 1000 টাকা থেকে 2 হাজার টাকা লাভ করতে পারছেন লবণ বিক্রি করে। প্রতি মাসে 30 হাজার টাকা থেকে 60 হাজার টাকা ইনকাম হতে পারে একদম ছোট লবণ প্যাকিং ব্যবসায়ীর।

আপনার ব্যবসা এগিয়ে যদি কোন তথ্যের দরকার হয় তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। এই পোষ্টে যদি কোন ভুল থেকে থাকে তাহলেও কমেন্ট করুন এবং যদি ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট করে জানান এবং বন্ধুদের কাছে শেয়ার করুন। আরো নতুন কোন ব্যবসার আইডিয়া দিতে হলেও আমাদের এই ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও F.A.Q

লবণের প্যাকেজিং ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

উত্তর: 15 হাজার টাকা থেকে 1 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে এই ব্যবসা করতে।

কাঁচা লবণ 1 কুইন্টাল এর দাম কত?

উত্তর: 400 টাকা থেকে 450 টাকা।

লবণের প্যাকেজিং ব্যবসায় কতজন কর্মচারী লাগে?

উত্তর: ছোট ব্যবসা হলে 2 জন কর্মচারী লাগবে। বড় ব্যবসা হলে ব্যবসা অনুযায়ী 5 থেকে 15 জন কর্মচারী লাগবে।

লবণের মেশিনের দাম কত?

উত্তর: লবণের প্যাকেজিং মেশিনের দাম 15 হাজার টাকা থেকে 1.5 লক্ষ টাকা হতে পারে।

লবণের ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন?

উত্তর: 100 বর্গমিটার থেকে 1 হাজার বর্গমিটার জায়গার প্রয়োজন পড়বে ব্যবসা অনুযায়ী।

লবণের প্যাকেজিং ব্যবসায় লাভ কত?

উত্তর: 30 হাজার টাকা থেকে 2 লক্ষ টাকা পর্যন্ত লাভ করতে পারেন প্রতিমাসে

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

চা দোকানের ব্যবসা শুরু করুন আধুনিক পদ্ধতিতে

পপকর্ন তৈরির ব্যবসা

Leave a Comment