মোমবাতি তৈরির ব্যবসা করে লাভ করুন 50000 টাকা | Start a candle making business RIGHT NOW

মোমবাতি প্রতিটা পূজা-অর্চনা থেকে শুরু করে প্রতিটি ধর্মের মানুষের কাছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মধ্যে একটি। তাই মোমবাতি তৈরির ব্যবসা সারাবছর আপনি করতে পারবেন এবং সারা বছর এই ব্যবসা করে আপনি ইনকাম করতে পারবেন হাজার হাজার টাকা এবং ব্যবসা বড় হলে যা আপনি লক্ষাধিক টাকা তেও পৌঁছে যাবে প্রতি মাসে ইনকাম।

Table of Contents

অল্প পুঁজির ব্যবসা আইডিয়া | কম টাকা দিয়ে ব্যবসা করার আইডিয়া

কম টাকা দিয়ে ব্যবসা করার আইডিয়া যদি আপনি পেতে চান তাহলে আমার দেওয়া নিচে অনেক ব্যবসার আইডিয়া পাবেন যেখানে আপনি মাত্র 10 হাজার টাকা খরচ করে মাসে ইনকাম করতে পারবেন 30-40 হাজার টাকা । আগার খুব অল্প পরিশ্রম করে আপনি মাসে ইনকাম করতে পারবেন 1 লক্ষ টাকা এই রকম ব্যবসার অনেক আইডিয়া যা আপনি পাবেন আমার এই সাইটে।

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা
মোমবাতি তৈরির ব্যবসা

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা করতে কত টাকা খরচ হয়?

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা করতে গেলে আপনার খরচ হবে মাত্র 10 হাজার টাকা। 10 হাজার টাকা খরচ করে আপনি যদি এই ব্যবসা শুরু করেন তাহলে প্রতি মাসে আপনি 30 হাজার থেকে 40 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনি চাইলে আরেকটু বেশি টাকা যদি আপনার ব্যবসায় ইনভেস্ট করেন তাহলে অটোমেটিক মেশিন দ্বারা আপনার ব্যবসা করতে পারবেন এবং তাতে আপনার লাভ হবে প্রতি মাসে 1 লক্ষ থেকে দেড় লক্ষ টাকা।

মোমবাতি তৈরি করতে কাঁচামাল কি কি লাগে?

মোমবাতি তৈরি করতে কাঁচামাল লাগে –
1: প্যারাফিন মোম-115 টাকা কেজি
2: ক্যাস্টর অয়েল– 250 টাকা কেজি
3: মোমবাতি জন্য সাদা সুতো
5: বিভিন্ন রং– 80 টাকার মধ্যে হয়ে যাবে
6: সুগন্ধি যা মোমবাতিতে ব্যবহার করতে হবে
7:মোমবাতি গলানোর জন্য পাত্র

এইসকল কাঁচামাল গুলো হলেই আপনি আপনার ঘরেই মোমবাতি তৈরি করতে পারবেন।

মোমবাতি তৈরির কাঁচামাল কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

মোমবাতি তৈরি করার জন্য যে সকল কাঁচামাল লাগে সমস্ত জিনিসই আপনি আপনার লোকাল মার্কেট থেকে কিনতে পারেন । এছাড়া আপনি চাইলে পাইকারি মার্কেট থেকে বেশি বেশি মাল কিনতে পারেন যা আপনার রেট আরো অনেক কমিয়ে দেবে প্রতি মালের পার কেজিতে।

আপনি পশ্চিমবঙ্গে থাকলে কলকাতার বড় বাজার সবচেয়ে বড় পাইকারি মার্কেট যেখান থেকে আপনি প্রতিটা কাঁচামাল একটু বেশি পরিমাণে যদি নিতে পারেন তাহলে অনেক অনেক কম দামে আপনি পেয়ে যাবেন তাতে আপনার খরচ অনেক কম হবে।
বাংলাদেশ আপনি যদি থাকেন তাহলে চকবাজার পাইকারি মার্কেট একটি বড় মার্কেট যেখান থেকে আপনি আপনার মাল কিনতে পারবেন অনেক কম দামে এবং সমস্ত কাঁচামালের রেট ওই চকবাজার পাইকারি মার্কেট এ অনেক কম।

মোমবাতি তৈরির ডাইস
মোমবাতি তৈরির ডাইস

মোমবাতির ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন?

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা আপনি আপনার ঘরের ভিতরেই শুরু করতে পারেন। অর্থাৎ আপনার ঘরের সাইজে 10/12 ফুটের এক কামরা ঘর হলেই আপনি এই ব্যবসা নিঃসন্দেহে করতে পারবেন এর জন্য আলাদা করে কোনো বড় ঘরের দরকার হয় না। তবে ব্যবসা যখন আপনার অনেক বড় হয়ে যাবে তখন আলাদা ঘরের দরকার হবে, কারণ তখন ইলেকট্রিক মেশিন এবং বেশি লোক কাজ করবে আপনার কোম্পানিতে।

মোমবাতি বানানোর মেশিন কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

মোমবাতি বানানোর জন্য দু’রকম মেশিন প্রধানত ব্যবহার হয় একটা হ্যান্ড মেড ,আরেকটি ইলেকট্রিক ম্যানুয়াল মেশিন। এই দুই প্রকার মেশিন আপনি কিনতে পারেন কিছু ব্যবসায়ীর কাছে । নিচে আমি সেই সকল কোম্পানির নাম ফোন নাম্বার দিয়ে দিলাম। এই সকল কোম্পানির ফোন নাম্বারে ফোন করে আপনি অনলাইনে অর্ডার দিতে পারেন আবার আপনি চাইলে আগেই ব্যবসাটি শিখে ভালোভাবে বুঝে নিয়ে তারপরে মেশিন অর্ডার দিতে পারেন।

মোমবাতি তৈরির মেশিন
মোমবাতি তৈরির মেশিন

■ বন্ধু, মোমবাতি তৈরির ডাইস বা ছাঁচ কিনতে কলকাতায় বড়বাজারে, ক্যানিং স্ট্রিট যোগাযোগ করতে পারেন। বাংলাদেশে ঢাকায় চক বাজার মার্কেটে পাবেন।এছাড়া পুরানো ঢাকায় মেশিন মার্কেটে কয়েকটি দোকানে পাবেন।

এছাড়া নিচের ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারেন:-

● Ajit Kumar Ray & Co. Howrah, West Bengal Mob:- 9831531370/ 9831357725

● Oriental Machinery Pvt Ltd Lal Bazar, Kolkata Mob:- 9830391326

●Akhtar Machinery Dhaka, Bangladesh Mob:- 01786086428

● Mitul Machinery Bangladesh Mob:- 01639352581

বন্ধু মোম কিনতে বড়বাজারে ও বনফিল্ড লেনে যোগাযোগ করতে পারেন। নিচের ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারেন:-

● Sri Krishna Suppliers BBD Bagh, Kolkata Mob:- 8049673553

বন্ধুরা, মোমবাতি তৈরি ও ব্যবসার ট্রেনিং নিতে যোগাযোগ করতে পারেন:-

● Alokesh Roy Super Art Sonarpur, Kolkata, South 24 Parganas Mob:- 9002886369/ 8335815276

মোমবাতি তৈরির মেশিনের দাম কত?

মোমবাতি বানানোর মেশিনের দাম শুরু হয় 10 হাজার টাকা থেকে দু লক্ষ টাকা পর্যন্ত।
10 হাজার টাকার মেশিনে আপনি প্রতিদিন 2 হাজার মোমবাতি তৈরি করতে পারবেন।
আর ইলেকট্রিক মেশিনে আপনি প্রতিদিন 10 হাজার মোমবাতি তৈরি করতে পারবেন।

কিভাবে মোমবাতি তৈরি হয়?( mombati toirir babsa)

প্যারাফিন মম প্রথমে একটি পাত্রে নিয়ে গরম করতে হবে তারপর যে ডাইস রয়েছে সেই ডাইস নিয়ে তার খোলটা খোলার পরে মাঝখানের অংশটাই সুন্দর করে হোল্ড করে সুতো পড়াতে হবে তার জন্য ঘাট কাটা থাকে এবং এই প্রতিটা ঘাটে সুতো গোল করে ঘুরিয়ে দিলেই হয়। অর্থাৎ ডাইসের তিনখানা ভাগ থাকে একসাথে দুদিকেই মোমবাতি তৈরি হয় 15 টা করে 30টা মোমবাতি একটা ডাইস থেকে তৈরি করতে পারবেন।


সুতা পড়ানো হয়ে গেলে ডাইস টা লাগিয়ে নিয়ে তার ওপরে গোলানো মোম ঢেলে দিন এবং মিনিট 10-15 জন্য ঠান্ডা হবার সময় দিন, যাতে মোম শক্ত হয় । 10-15 মিনিট পরে আপনি খুললেই সাথে সাথে আপনার সামনে চলে আসবে তিরিশটা মোমবাতি। এইরকম ডাইস আপনি একসাথে অনেকগুলো তৈরি করে রাখতে পারেন যাতে একটু বেশি পরিমাণে মোমবাতি আপনি তৈরি করতে পারেন। কিন্তু ব্যবসার শুরুতে আপনি একটা ডাইস দিয়েই শুরু করুন এতে অনেক অল্প টাকা খরচ হবে। কারণ একটা ডাইস কিনতে আপনাকে খরচ হয়ে যাবে প্রায় 4-5 হাজার টাকার মতো।

কিভাবে মোমবাতি তৈরি
কিভাবে মোমবাতি তৈরি

ইলেকট্রিক মেশিনে মোমবাতি তৈরি-

ইলেকট্রিক মেশিন আপনার ঘরের টু-টোয়েন্টি ইলেকট্রিক্যাল চলবে। এই মেশিন চালিয়ে মেশিনের ডাইস রয়েছে ডাইসে প্রথমে আপনি মন দিয়ে দিলেন মেশিন অটোমেটিক গরম করে ফেলবে মোমটা এবং সেই সমস্ত দেশে ভর্তি হয়ে যাবে মোম । এবং ইলেকট্রিক মেশিনে সুতা পড়ানোর আলাদা জায়গা রয়েছে এবং সেই জায়গায় সুতো রেখে দিলে মেশিন খুব সহজেই সমস্ত সূত্র গুলো নিয়ে মোমবাতি তৈরি করে দেবে চোখের নিমেষে।

কত রকমের মোমবাতি হয়? (Koto rokomer mombati hoi?)

বাজারে বিক্রি হয় সাধারণত 4 ইঞ্চির মোমবাতি গুলি যেটা বেশি পরিমাণে বিক্রি হয়ে থাকে। এছাড়া 6 ইঞ্চির মোমবাতি বিক্রি হয়। 8 ইঞ্চি থেকে 1 ফুট 2 ফুট পর্যন্ত মোমবাতি আপনি তৈরি করতে পারেন বাজারের চাহিদা অনুযায়ী। বড় বড় পূজা এবং খ্রিষ্টানদের গির্জায় ব্যবহৃত হয় দুই ফুট থেকে তিন ফুটের মোমবাতি।
এখন বাজারে অনেক ডিজাইন করা ও মোমবাতি তৈরি হয়।

কত রকমের মোমবাতি হয়
কত রকমের মোমবাতি হয়

মোমবাতির ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্স লাগে?(mombati babsa korte ki ki License lage?)

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা শুধু নয় যে কোনো ব্যবসা যদি আপনি করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমেই ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে।
এই ট্রেড লাইসেন্স আপনি আপনার পঞ্চায়েত, বি ডি ও কিংবা কর্পোরেশন থেকে পেয়ে যাবেন এখন ট্রেড লাইসেন্স অনলাইনে এপ্লাই করে পাওয়া যায়।
তারপর আপনার ব্যবসা একটু বড় হলে যখন আপনি মাসে দু লক্ষ থেকে চার লক্ষ টাকা ইনকাম করবেন তখন আপনাকে GST লাইসেন্স নিতে হবে।

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা সরকারি লোন কি পাওয়া যায়?

আপনি যদি ব্যবসা শুরু করেন তাহলে এখন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার আপনাকে কুটির শিল্পের জন্য লোন দিচ্ছে তার জন্য আপনাকে ব্যবসার শুরুতেই বি ডি ও তে যোগাযোগ করতে হবে বিডিও অফিস থেকে আপনি আপনার লোন পেতে পারেন।

মোমবাতি ব্যবসায় কি ইন্সুরেন্স করতে হয়?

যে কোন ব্যবসা করার আগে ব্যবসার ইন্সুরেন্স করা অত্যন্ত জরুরি। কারণ কখন ব্যবসায় কোন ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয় তা কেউই জানে না। সেই জন্য সেই ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার আগে যদি ইন্সুরেন্স করা থাকে তাহলে ব্যবসায় ক্ষতি হয়ে গেলেও ইন্সুরেন্স থেকে টাকা পাওয়া যায়।

মোমবাতির মার্কেটিং কিভাবে করবেন

আপনাকে ব্যবসার শুরুতে প্রতিটা দোকানে দোকানে আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে যেতে হবে এবং তাদেরকে তুলনামূলকভাবে বাকি অন্য কোম্পানিগুলো যে রেটে মোমবাতি দেয় তার থেকে সামান্য কম রেটে মোমবাতি দিতে হবে।
এছাড়া আপনি আপনার কোম্পানির নাম লোগো লাগানো ব্র্যান্ডের পোশাক তৈরি করুন এবং প্রতিটা কোস্টার মন্দির এরিয়া চত্বরে লাগিয়ে দিন দেখবেন লোকেরা যত আপনার পোস্ট দেখে তো তো সেই মন্দির এরিয়া এবং মসজিদ এরিয়ার দোকানগুলোতে আপনার মোমবাতি খুঁজবে। এতে আপনার মার্কেটিং অনেক ভালোভাবে হবে।

মোমবাতির অনলাইন মার্কেটিং-

মোমবাতি তৈরি করে সুন্দরভাবে প্যাকেজিং করার পরে আপনি আপনার মোমবাতি গুলি অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট এইরকম যত অনলাইন সাইট আছে বাংলাদেশেও অনেক অনলাইন ই কমার্স সাইট আছে সেই ই-কমার্স সাইট গুলোতে আপনি আপনার প্রোডাক্ট দিয়ে দিন। দেখবেন অনলাইনে আপনার যথেষ্ট পরিমাণে সেল শুরু হয়ে গেছে।

মোমবাতি প্যাকেজিং কিভাবে করা হয়?

মোমবাতি প্যাকেজিং করার জন্য আপনি চাইলে বাজার থেকে রেডিমেড মোমবাতি স্টিকার লাগানো প্লাস্টিক অথবা কাগজের বাক্স কিনতে পারেন।
সবথেকে ভালো হচ্ছে মোমবাতির প্যাকেজিং করার আপনার নামের ব্র্যান্ডের যদি প্যাকেট এগিয়ে নিতে পারেন খুবই অল্প খরচে ছাপানো যায় তারপর সেই প্যাকেটে আপনি মোমবাতি ধরে যদি মার্কেটে বিক্রি করতে পারেন সেটাই হবে সবচেয়ে ভালো প্যাকেজিং এবং মার্কেটিং ।
আরজি প্রোডাক্ট যত বেশি পরিমাণে মানুষের সুন্দর লাগবে দেখতে সেই প্রোডাক্ট ততো বেশি পরিমাণে মানুষ কিনবেন।

মোমবাতি তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?(What are the benefits of candle making business?)

মোমবাতি তৈরীর ব্যবসায় লাভ হয় 30 % থেকে 40%। অর্থাৎ আপনি 100 টাকার মাল বিক্রি করতে পারেন 130 টাকা দামে । যদি আপনার মোমবাতি ডিজাইন এবং কালার ফুল হয়ে থাকে তাহলে তার রেট আরেকটু বেশি পরিমাণে বেড়ে যায় তখন আপনার লাভ করতে পারেন 100 টাকার জিনিস 150 টাকা থেকে 160 টাকা পাইকারি রেটে। এইভাবে প্রতিদিন আপনি 2000 টাকার মত লাভ রাখতে পারেন হ্যান্ড মেড একক ভাবে ব্যবসা করে। অর্থাৎ মাসে 30 থেকে 60 হাজার টাকা ইনকাম করা একজনের কাছে কোন ব্যাপারই হবে না। এ ব্যবসাতে যদি আপনি বেশি টাকা ইনভেস্ট করেন এবং বেশি পরিমাণে লোক নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন তাহলে এক লক্ষ টাকা লাভে পৌঁছে যেতে পারেন।।

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা
মোমবাতি তৈরির ব্যবসা

মোমবাতি ব্যবসায় কি কি প্রবলেম আসতে পারে?

বাজারে যেহেতু অনেক কোম্পানি অলরেডি মার্কেটিং করছে তাই আপনাকে প্রথমে মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হলেও হতে পারে। তাই আপনাকে প্রথমেই আপনার কোয়ালিটি এবং প্রোডাক্ট এর দাম এর উপরে নজর দিতে হবে অর্থাৎ আপনার কোয়ালিটি একটু বেশি ভালো পরিমাণে রাখতে হবে এবং দাম টা তুলনামূলকভাবে লাভ কম রেখে সস্তায় মোমবাতি যদি আপনি বাজারে বিক্রি করতে পারেন তাহলে খুব সহজে মার্কেটে আপনি জায়গা করতে পারবেন।

আরো অনেক অল্প টাকায় ব্যবসার আইডিয়া দেখতে পারেন

১টি অল্প টাকায় ব্যবসার আইডিয়া,পেন তৈরির ব্যবসা,ধূপকাঠির বিজনেস