ফেলে দেয়া প্লাস্টিক বোতল থেকে 2 লাখ টাকা আয় করুন | প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা | Pet Plastic bottle scrap business now

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা হল এমন একটি ব্যবসা যা আপনাকে প্রতিমাসে লাখ টাকারও বেশি ইনকাম করে দেবে। আপনি যে পুঁজি বিনিয়োগ করবেন এই ব্যবসায় তার বহুগুণ বেশি টাকা ইনকাম আপনি করে নিতে পারবেন প্রতিমাসে। আমরা সবাই জানি প্লাস্টিকের ব্যবহার যেভাবে দিনে দিনে বাড়ছে তাতে বর্তমান প্রজন্ম তো প্লাস্টিকের ওপর নির্ভরশীল আর ভবিষ্যৎ প্রজন্মও প্লাস্টিকের ওপর নির্ভর করবে। তাই আপনি যদি শুরু করেন প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা তাহলে খুব দ্রুততার সাথে আপনি ইনকাম করবেন অনেক টাকা।

আপনি কোথা থেকে প্লাস্টিকের বোতল কিনবেন এবং এই বোতল দিয়ে কি কি প্রোডাক্ট আপনি তৈরি করবেন এবং তা কোথায় বিক্রি করবেন এইসব নিয়ে যাবতীয় তথ্য প্রদান করা হচ্ছে আজকের এই প্রতিবেদনে। বর্তমানে যে ব্যবসায়ীরা পেট বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করছে তারা সবাই প্রতি মাসে কোটি কোটি টাকা ইনকাম করতে পারছে। আপনি ব্যবসার শুরুতেই বেশি টাকা ইনকাম না করলেও ব্যবসা করতে করতে পাঁচ ছয় বছরের অভিজ্ঞতা যখন অর্জন করবেন তখন থেকে আপনিও প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Table of Contents

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা কিভাবে শুরু করা যায়? (How to start a plastic bottle scrap business?)

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা শুরু করতে গেলে আপনাকে প্রথমে প্লাস্টিকের বোতল কিনতে হবে অল্প দামে। আর প্লাস্টিকের বোতল কেনার জন্য আপনাকে যেতে হবে আপনার এলাকার কাবারির দোকানে। বা যারা পাড়া গ্রাম থেকে প্লাস্টিক বোতল সংগ্রহ করে কাবাডিতে বিক্রি করে তাদের কাছ থেকে সরাসরি এই বোতল কিনতে হবে। সাধারণত ফেলে দেওয়া নোংরা বোতলের দাম অনেক কম হয় তাই আপনি চাইলেই একসাথে অনেক বেশি বেশি পরিমাণে প্রতিদিন প্লাস্টিক পুরনো বোতল কিনতে পারেন।

কেনার পর আপনি তার বিভিন্ন রঙের বোতল আলাদা করে মেশিনের সাহায্যে ছোট ছোট টুকরো করে প্রোডাক্ট তৈরি করতে পারেন। প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ সাধারণত 100 কেজি বা 1 টন হিসাবে বিক্রি হয়ে থাকে, তাই আপনাকে আগে থেকে তৈরি করে সংগ্রহ করে রেখে দিতে হবে এবং এক টন হয়ে গেলে তা আপনি কোম্পানিকে বিক্রি করতে পারবেন।

Pet plastic bottle scraping machine
প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ মেশিন

প্লাস্টিক বোতল কোথায় পাবেন?

প্লাস্টিক বোতল কেনার জন্য আপনাকে যেতে হবে আপনার এলাকার বিভিন্ন কাবারির দোকানে। যেসব কাবারি দোকানগুলি প্লাস্টিক বোতল সংগ্রহ করে এবং কলকাতার বড় হোলসেল মার্কেটে বিক্রি করে তাদের কাছ থেকে আপনাকে কিনতে হবে অল্প দামে পুরনো প্লাস্টিক বোতল। খুবই সহজ কাজ এইটি কারণ যে কোন দোকান থেকেই আপনি প্রতিদিন 100 কেজির ও বেশি প্লাস্টিক বোতল পেয়ে যাবেন। ব্যবসার শুরুতে আপনি যখন মার্কেট ঠিক করে ধরবেন তারপরেই আপনি প্রতিদিন 100 কেজির বেশি বোতল কিনে তা থেকে প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ বানাতে পারবেন। এই এই প্লাস্টিক বোতলগুলি সাধারণত বিভিন্ন প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসায়ীরায় কিনে নিয়ে যান। এই প্লাস্টিক বোতল থেকেই আবার নতুন নতুন প্লাস্টিকের বিভিন্ন আইটেম তৈরি হয়। তাই প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা দিনে দিনে এত জনপ্রিয়তা লাভ করছে।

অবশ্যই পড়ুন- ফেলে দেওয়া জামা কাপড় থেকে 1 লক্ষ টাকা আয়

পেট প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ তৈরির মেসিনের দাম কত? (What is the cost of pet plastic bottle scrap making machine?)

আপনি যখন প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা শুরু করবেন তখন আপনাকে অবশ্যই পেট বোতল স্ক্র্যাপ মেসিন কিনতে হবে। বর্তমানে বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্ন দামে নানা কোয়ালিটির মেশিন মার্কেটে বিক্রি করে। আপনি কি ধরনের মেশিন দিয়ে ব্যবসা শুরু করবেন তা নির্ভর করবে আপনার কাছে থাকা পুঁজির ওপর। সাধারণত বাজারে 80 হাজার টাকা থেকে 2.5 লাখ টাকায় বিভিন্ন কোয়ালিটির মেশিন পাওয়া যায়। আপনি ব্যবসার শুরুতে 80 হাজার টাকার মেশিন অথবা 1 লাখ টাকার মেশিন দিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন।

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ মেশিন কোথায় পাওয়া যায়? (Where to find plastic bottle scraping machine?)

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই কিনতে হবে প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ মেশিন। আর এই মেশিন কেনার জন্য আপনাকে সরাসরি মেশিন ম্যানুফ্যাকচার কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে হবে। বর্তমানে অল্প দামে মেশিন কেনার জন্য সবথেকে আদর্শ জায়গা হল মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি। এছাড়াও আপনি পেয়ে যাবেন ইন্ডিয়া মার্ট, অ্যামাজন ও আলিবাবা ওয়েবসাইট থেকে। তবে আপনার এলাকার কাছাকাছি যদি বড় কোনো মেশিন ম্যানুফ্যাকচার কোম্পানি থেকে থাকে তার কাছ থেকে আপনি সরাসরি বোতল স্ক্র্যাপ মেশিন কিনতে পারেন।

ভারতের প্রতিটি রাজ্যের একাধিক মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি যারা বিভিন্ন দামে বিভিন্ন কোয়ালিটির মেশিন তৈরি করে আপনারা চাইলে এইসব মেশিন তৈরির কোম্পানির কাছ থেকে মেশিন কিনতে পারেন। বাংলাদেশের ঢাকাতেও একাধিক মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি রয়েছে। আপনাদের সুবিধার্থে কিছু মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানির যোগাযোগ নাম্বার দেওয়া হল, যা আপনারা ফোন করে মেশিনের অর্ডার দিতে পারেন এবং মেশিন চালানোর প্রশিক্ষণও নিতে পারেন।

  • S.k industries- 9929157142,7665294126
  • INDIA ADDRESS KANCHAN ENGINEERING 22.N.S ROAD CANNING ST,B. B. D BAGH KOLKATA=700001 CONTACT= 9831000613, 033-22312407, 98311 10613
  • BANGLADEDH ADDRESS ABC ENGINEERING LTD. RAJENDRA BAZAR (UNDERGROUND MARKET) DHAKA,BANGLADESH, WHATSAPP/IMO/VIBER CONTACT= +88 01977886660.

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন?

আপনি যখন প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে একটু বড় জায়গায় ব্যবসা করতে হবে। যদিও প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ মেশিনের আয়তন খুব বেশি বড় হয় না। তবুও কাঁচামাল হিসেবে প্লাস্টিক বোতল রাখার জায়গা এবং তৈরি হওয়া প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ রাখার মত একটু বড় জায়গার প্রয়োজন পড়বে। এই কারণে আপনার প্লাস্টিক বোতলস স্ক্র্যাপ কারখানাটি তৈরির জন্য কমপক্ষে 800 বর্গফুট থেকে 1 হাজার বর্গফুট জায়গার প্রয়োজন পড়বে। আপনি চাইলে আরো ছোট জায়গাতেও শুরু করতে পারেন, তবে সেটা নির্ভর করবে আপনি কেমন ভাবে ব্যবসাটি করছেন তার ওপর।

প্লাস্টিক রিসাইক্লিং ব্যবসা করতে কি ধরনের ইলেকট্রিকের প্রয়োজন?

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ মেশিন সাধারণত 3 ফেজ ইলেকট্রিকে চলে। কারণ এই মেশিনের মোটর থ্রী ফেজ ইলেকট্রিক সম্পন্ন। সাধারণ বাড়ির তে ব্যবহার করার টু-টোয়েন্টি ভোল্টের ইলেকট্রিকের আপনি এই মেশিন চালাতে পারবেন না। তাই ব্যবসা শুরুর আগেই আপনাকে কমার্শিয়াল ইলেকট্রিক এর জন্য আবেদন করতে হবে ইলেকট্রিক দপ্তরে। কমার্শিয়াল ইলেকট্রিক পাওয়ার পরেই আপনি শুরু করতে পারবেন প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা। আপনি যেখানে কারখানা করবেন সেই খানেই আপনাকে নিতে হবে কমার্শিয়াল ইলেকট্রিক। প্রতিটা ব্যবসায় কি তার ব্যবসা করার জন্য সাধারণ ইলেকট্রিকের পরিবর্তে কমার্শিয়াল ইলেকট্রিক নিতে হয়।

আরো পড়ুন- ঘাসের ব্যবসা করে প্রতিমাসে 1 লক্ষ টাকা আয়

কিভাবে প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরি হয়? (How is plastic scrap made?)

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে জানতে হবে প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ কি করে তৈরি করা হয়। এটা খুবই সহজ কাজ যা আপনি মেশিন কেনার সময় কোম্পানি থেকে একদিনের ট্রেনিং এই বুঝতে পারবেন। প্লাস্টিক বোতল কিনে নিয়ে আসার পর তা বিভিন্ন কালার অনুযায়ী আপনাকে আলাদা করতে হবে।

  • সাদা প্লাস্টিক গুলো আলাদা, সবুজ আলাদা, লাল আলাদা, এইভাবে বিভিন্ন রঙের প্লাস্টিক আলাদা করার পর মেশিন এর মধ্যে দিতে হবে।
  • আসলে এক রঙের প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ বেশি দামে বিক্রি হয় মিক্সিং প্লাস্টিক স্ক্র্যাপের থেকে।
  • মেশিন চালিয়ে দিলে খুব সহজেই প্রতিটি প্লাস্টিকের জিনিসকে ভেঙে ছোট ছোট টুকরো তে পরিণত করবে এবং পরিণত হবে প্লাস্টিক স্ক্র্যাপে।
  • এরপর প্রতিটি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপকে গরম জলে ভালো করে পরিষ্কার করতে হবে।
  • পরিষ্কার হয়ে গেলে স্ক্র্যাপ গুলিকে কোন জায়গাতে ঢেলে শুকনো করতে হবে অথবা রোদে শুকনো করতে হবে।
  • তার পর তৈরি হওয়া প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ গুলি আপনাকে বস্তায় ভরে আলাদা করে রেখে দিতে হবে এবং কোম্পানিকে বিক্রি করার সময় কমপক্ষে এক টন প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ গাড়িতে ভর্তি করে পাঠাতে হবে।

প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরীর ব্যবসায় উৎপাদন কেমন হয়? (How is production in a plastic scrap manufacturing business?)

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসায় উৎপাদন সাধারণত মেশিনের ওপর নির্ভর করে। অর্থাৎ আপনি যেমন দামের মেশিন কিনবেন এবং যে পরিমাণ খাটবেন তার ওপর নির্ভর করবে প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ উৎপাদন। বোঝার সুবিধার্থে একটি চার্ট দেওয়া হল-

Plastic bottle scrap business
প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা
প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরির মেশিনসময়উৎপাদন
1 লাখ টাকার মেশিন1 ঘন্টায়30 থেকে 35 কেজি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরি করে
1.5 লাখ টাকার মেশিন1 ঘন্টায়40 থেকে 45 কেজি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরি করে
2 লাখ টাকার মেশিন1 ঘন্টায়50 থেকে 60 কেজি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরি করে

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করতে কত টাকার বিনিয়োগ লাগে?

আপনি যদি ছোট করে প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে কমপক্ষে 1.5 লক্ষ টাকা পুঁজি নিয়ে ব্যবসায় নামতে হবে। এই টাকার মধ্যে আপনি প্রয়োজনীয় মেশিন সহ কাঁচামাল হিসেবে প্লাস্টিক এবং এক দুই মাসের কর্মচারীদের বেতন দেওয়ার মতো কিছু টাকা হয়ে যাবে। সাধারণত প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করতে আপনাকে একাধিক কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে তাই তাদের মাইনে দেওয়াটাও আপনার কাছে একটি খরচের মধ্য পড়বে।

আপনি যদি একটি বড় আকারের সম্পূর্ণ ইউনিট খুলতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে কমপক্ষে 18 থেকে 20 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। তাই ব্যবসার শুরুতে এত পরিমাণ বিনিয়োগ না করে অল্প 1.5 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে ছোট করেই ব্যবসাটি শুরু করুন। কয়েক বছর বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা করতে করতে নিজের অভিজ্ঞতা বাড়বে এবং পরবর্তীকালে আপনি চাইলে এই রকম বড় ফুল ইউনিট কোম্পানি তৈরি করতে পারবেন। তাই ব্যবসার শুরুতেই অযথা আপনি বেশি পুঁজি বিনিয়োগ করবেন না।

অবশ্যই পড়ুন- কোচিং সেন্টার খুলে প্রতি মাসে 50 হাজার টাকা আয় করুন

প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ কোথায় বিক্রি করতে পারবেন?

আপনি যখন প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই তৈরি হওয়া প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ বিক্রির জন্য আপনাকে সঠিক জায়গায় যেতে হবে। ব্যবসা শুরুর আগেই হয়তো আপনি অনেকের মুখেই শুনে থাকবেন যে প্লাস্টিক স্ক্র্যাপের চাহিদা বাজারে সব সময় বেশি পরিমাণে থাকে। তাই এই প্রোডাক্ট বিক্রি করার জন্য আপনাকে খুব বেশি ভাবতে হবে না। যেকোনো প্লাস্টিকের কোম্পানি আপনার কাছ থেকে এই প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ কিনে নেবে। এর জন্য আপনাকে করতে হবে গুগল বিভিন্ন প্লাস্টিক কোম্পানির সাথে যোগাযোগ।

আপনি যদি গুগলে সার্চ করেন প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ কোন কোম্পানি কিনতে চাই, তাহলেই আপনি পেয়ে যাবেন একাধিক কোম্পানিকে । এরপর সেই কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে আপনার তৈরি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপের sample তাদেরকে দেখাতে হবে এবং তাদের পছন্দ হয়ে গেলেই গাড়ি ভর্তি করে টন টন প্লাস্টিক ক্যাপ পাঠাতে হবে। এছাড়াও আপনি চাইলে ইন্ডিয়া মার্ট অথবা অ্যামাজনে বিক্রি করতে পারেন তৈরি হওয়া প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ।

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসায় লাভ কত?

আপনি যদিও ছোট করে শুধুমাত্র বোতল স্ক্র্যাপ মেসিন কিনে ব্যবসা শুরু করেন তবুও আপনি প্রতি মাসে এই ব্যবসা থেকে ভালো টাকা উপার্জন করতে পারবেন। বোঝার সুবিধার্থে বলা যেতে পারে এক কেজি সাধারণ বোতল কিনতে আপনার খরচ হবে 15 টাকা থেকে 20 টাকা। তারপর ইলেকট্রিক সহ বাকি সমস্ত খরচ মিলিয়ে আপনার খরচ পড়বে 30 টাকা প্রতি কেজি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপে। বর্তমানে এক কেজি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ বিক্রি হয় 40 টাকা থেকে 50 টাকা প্রতি কেজি দরে। একটা মেশিন 1 ঘন্টায় 40 কেজি প্রোডাকশন করলে 10 ঘণ্টা মেশিন চালালে 400 কেজি প্রোডাকশন হবে। 1 কেজি প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ বিক্রি করে আপনি লাভ করতে পারবেন 15 থেকে 20 টাকা।

ব্যবসার শুরুতেই আপনি প্রতিদিনের এই 400 কেজি প্লাস্টিক স্যাপ বিক্রি করতে না পারলেও যদি ধরা যায় আপনি 200 কেজি প্রতিদিন বিক্রি করতে পারেন তাহলেও আপনি ইনকাম করবেন 4000 টাকা। আর প্রতিদিন 4 হাজার টাকা করে ইনকাম করতে পারলে এক মাসে কত ইনকাম হয় তা আপনি নিজেই সহজে বুঝতে পারছেন। তবে ব্যবসার শুরুতে আপনি ভালো করে মার্কেটিং করুন এবং সঠিক কোম্পানির কাছে বিক্রি করার চেষ্টা করুন। শুরুর দিকে বেশি লাভ না হলেও আপনি কমপক্ষে প্রতি মাসে 1 লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। সঠিকভাবে মার্কেটিং করুন এবং মার্কেটের চাহিদা বুঝুন তারপর আপনি ভালো করে মনোযোগ সহকারে ব্যবসাটি করুন। এই ব্যবসায় কোন রকম ঝুঁকির সম্ভাবনা নেই তাই খুব সহজেই আপনি তৈরি হওয়া প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ বিক্রি করতে পারবেন।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও FAQ

প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরীর ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

উত্তর: প্লাস্টিক ক্যাপ তৈরীর ব্যবসা করতে 1.5 লক্ষ টাকা লাগবে।

প্লাস্টিক বোতল স্ক্র্যাপ ব্যবসা কোথায় করা যায়?

উত্তর: গ্রাম অথবা শহরের যে কোন জায়গাতেই আপনি এই ব্যবসা করতে পারবেন।

প্লাস্টিক স্ক্র্যাপ তৈরীর কারখানা করতে কত বড় জায়গা লাগে?

উত্তর: 800 বর্গফুট থেকে 1 হাজার বর্গফুট জায়গার প্রয়োজন পড়বে।

পেট বোতল স্ক্র্যাপ তৈরির মেশিনের দাম কত?

উত্তর: 80 হাজার টাকা থেকে 2.5 লাখ টাকার মধ্যে এই মেশিন পাওয়া যায়।

বোতল স্ক্র্যাপ তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?

উত্তর: বোতল স্ক্রাব তৈরির ব্যবসায় প্রতি মাসে আয় 1 লক্ষ টাকা থেকে 3 লক্ষ টাকা হতে পারে

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

ড্রাইভিং স্কুল ব্যবসা

পানের ব্যবসা করুন

Leave a Comment