বিউটি পার্লার ব্যবসা করুন অল্প পুঁজি দিয়ে | Beauty parlor business is now 50 thousand rupees, Right now

বর্তমান সময়ে বিউটি পার্লার ব্যবসা এতটা বেশি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে শুধুমাত্র মানুষের সৌন্দর্যপীয়তা দৃষ্টিভঙ্গি বৃদ্ধির কারণে। বর্তমান সময়ে বেকারত্বের যুগে ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েরাও রোজগারের পথ হিসাবে বিউটি পার্লারের ব্যবসার দিকে মননিবেশ করছেন। তাই সর্বদা তারা পড়াশোনা সাথে সাথে বিউটি পার্লারের প্রশিক্ষণ নিয়ে ছোট করেই শুরু করতে চাইছে বিউটি পার্লারের ব্যবসা। আবার এখনকার ব্যস্ততার যুগে অনেকেই নিজেদের যত্ন ঠিকভাবে না রাখতে পারার জন্য বিউটি পার্লারের দারস্ত হচ্ছেন।

আবার এই ফ্যাশন সচেতনতার যুগে নিজেকে আকর্ষণীয় ও সুদর্শন করে তোলার জন্য প্রায় সকল বয়সের তরুণীয় মহিলারা বিউটি পার্লার গিয়ে রূপচর্চা করে থাকেন। শুধু মেয়েরাই বিউটি পার্লারে গিয়ে থাকে এমন কোন কথা নয় কারণ বর্তমানে ছেলেরাও নিজেদের রূপচর্চা করার জন্য ছেলেদের বিউটি পার্লারে গিয়ে থাকেন। তাই জন্য দিনে দিনে বিউটি পার্লার ব্যবসা এতটা জনপ্রিয়তা লাভ করছে এবং শহর থেকে গ্রাম গঞ্জের প্রতিটা জাগাতে ছড়িয়ে পড়ছে। তাই আপনাকে সুবিধার্থে যে পদ্ধতিতে বিউটি পার্লারের ব্যবসা করলে আপনি উন্নতি লাভ করবেন তা নিয়ে আজকের এই সমগ্র পোষ্ট। চলুন দেখে নেয়া যাক আপনার সাফল্যের চাবিকাঠিটি।

Table of Contents

বিউটি পার্লারের ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

আপনি যদি ছোট করে বিউটি পার্লারের ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। এই টাকা দিয়ে আপনি আপনার বাড়ি থেকেই বাড়ির আশেপাশের মানুষদের পরিষেবা দিতে পারবেন। আবার এই অল্প টাকা বিনিয়োগ করে আপনি প্রয়োজনীয় প্রসাধনী সামগ্রী কিনে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে বিউটি পার্লারের পরিষেবা দিতে পারবেন। তবে আপনি যদি একটি বিউটি পার্লারের দোকান তৈরি করেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে ৫০ হাজার টাকা থেকে ১.৫ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। কারণ একটা বিউটি পার্লার তৈরি করতে গেলে ঘর ভাড়া এবং তার ডেকোরেশন এর জন্য আপনাকে বেশ কিছু জিনিসপত্র কিনতে হবে। আর আপনি যদি আধুনিক মডেলের বড় বিউটি পার্লার ব্যবসা শুরু করেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে 2 লক্ষ টাকা থেকে 3 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

Beauty parlor business
বিউটি পার্লার ব্যবসা

কিভাবে বিউটি পার্লার ব্যবসা শুরু করবেন? (How to start a beauty parlor business?)

বিউটি পার্লার ব্যবসা শুরু করতে গেলে আপনাকে বিউটি পার্লারের প্রশিক্ষণ নিতে হবে। যেহেতু বর্তমান সময়ে মানুষের রূপচর্চার সচেতনতা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ছোট বড় সকল প্রকার অনুষ্ঠানেই মানুষ নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য বিউটি পার্লারের দ্বারস্থ হচ্ছেন তাই আপনি বিউটি পার্লারের ব্যবসা করতে পারেন খুব সহজেই। বর্তমানে অনেক মেয়ে রয়েছে যারা এই ব্যবসা বাড়িতে থেকেই শুরু করে এবং খুব অল্প টাকা বিনিয়োগ করেই করতে পারে।

আপনিও ব্যবসার শুরুতে বাড়িতে থেকেই ব্যবসার কাজ করতে পারেন তবে বেশি কাস্টমার পাওয়ার জন্য আপনাকে এমন কোন জায়গা নির্বাচন করে বিউটি পার্লারের দোকান তৈরি করতে হবে যাতে প্রচুর কাস্টমার ও বেশি লাভ আপনি করতে পারেন। বিউটি পার্লারের ব্যবসা শুধু মেয়েরা নয় ছেলেরাও বর্তমান সময়ে করছে এবং সফল উদ্যোক্তা হয়ে দেখাচ্ছে। তাই বিউটি পার্লারের প্রশিক্ষণ মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেরাও সমানতালে পড়ে নিজেদের জায়গা তৈরি করছে।

অবশ্যই পড়ুন- হস্তশিল্পের ব্যবসা করে প্রতিমাসে 50000 টাকার আয়

বিউটি পার্লারের ব্যবসা করতে কি কি জিনিস লাগে?

ডিউটি পার্লারের ব্যবসা করতে আপনাকে সর্বপ্রথম বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী সামগ্রিক বা কসমেটিক্স কিনতে হবে। এছাড়াও এই ব্যবসা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের মেকআপ ব্রাশ ও আরও বিভিন্ন সামগ্রী কিনতে হয়।

  • বিভিন্ন ধরনের কসমেটিক্স
  • মেকআপ ব্রাশ
  • ওয়াটার স্প্র
  • বড় আয়না
  • চেয়ার
  • হেয়ার ড্রায়ার
  • বিভিন্ন ধরনের ফিতা
  • টাওয়াল ক্লথ
  • কাঁচি
  • চিরুনি ইত্যাদি

কসমেটিক্স অল্প দামে কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

বিউটি পার্লারের ব্যবসা করতে অবশ্যই আপনাকে বিভিন্ন প্রকার কসমেটিকস কিনতে হবে। আর এই কসমেটিকস কেনার জন্য আপনার এলাকার বড় কসমেটিকসের দোকান থেকে কিনতে পারেন। এছাড়াও আপনি যদি অল্প দামে বেশি পরিমাণে কসমেটিকস কিনে পার্লার ব্যবসার সাথে সাথে কসমেটিক সেরও ব্যবসা করতে চান তাও করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার এলাকার বড় পাইকারি বাজারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হবে। কসমেটিকস অল্প দামে কেনা ও এর ব্যবসা করার জন্য আপনি দেখতে পারেন কসমেটিকস ব্যবসা সংক্রান্ত এই পোস্টটি– কসমেটিকস ব্যবসা শুরু করার সম্পূর্ণ তথ্য

কোথায় বিউটি পার্লার ব্যবসা করা যায়?

বর্তমানে আপনার বাড়ি যেখানে আপনি সেখানেই শুরু করতে পারেন বিউটি পার্লার ব্যবসা কারণ মানুষের সৌন্দর্য সচেতনতা সব জায়গাতেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই আপনি যদি গ্রামে থাকেন আপনি আপনার গ্রামের কাছেই কোথাও বিউটি পার্লার তৈরি করে ব্যবসা করতে পারেন। আবার আপনি চাইলে শহরাঞ্চলের দিকে কোন একটি জায়গায় দোকান ভাড়া নিয়ে ব্যবসা করতে পারেন। যদিও গ্রামের থেকে শহরাঞ্চলের দিকে ব্যবসা করলে বেশি পরিমাণে কাস্টমার পাওয়া যাবে এবং কাজ করে বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

তবে শহরাঞ্চলের দিকে ব্যবসা করতে হলে আপনাকে বেশি পরিমাণের পুঁজি বিনিয়োগ করতে হবে। আর আপনি যদি গ্রামে ব্যবসা শুরু করেন বা গ্রামাঞ্চলের দিকে ব্যবসা শুরু করেন তাহলে অল্প পুজি বিনিয়োগেই আপনি একটি বিউটি পার্লারের দোকান তৈরি করতে পারবেন। তবে যেখানেই আপনি বিউটি পার্লার বানান না কেন খেয়াল রাখবেন সেই এলাকায় যেন জমজমাট এবং বেশি মানুষের জনসমাগম থাকে। এক্ষেত্রে বিউটি পার্লার বানানোর জন্য আপনি যে কোন এলাকার বড় বাজার এলাকা বা মোড়ের রাস্তার ধারে করতে পারেন।

বিউটি পার্লার ডেকোরেশন কেমন হবে?

বিউটি পার্লার ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে বিউটি পার্লার ডেকোরেশনের দিকে বেশি করে খেয়াল করতে হবে। কারণ পার্লারের ডেকোরেশন যত সুন্দর হবে তত বেশি পরিমাণের কাস্টমারের আকর্ষণ বৃদ্ধি পাবে। তাই বিউটি পার্লার ডেকোরেশনের জন্য আপনি যে ঘর ভাড়া নেবেন তার বাইরের দেয়ালটি কাঁচের তৈরি করুন। কাঁচের দেওয়ালের পেছনে কাঠের সেলফ তৈরি করে তাতে সুন্দর সুন্দর বিউটি পার্লারের প্রসাধনী সামগ্রী সাজিয়ে রাখুন ও মেকআপ আইটেম সাজিয়ে রাখুন।

যাতে পথ চলতি সাধারণ মানুষের চোখে সর্বদা আপনার দোকানটি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারে। ভিতরে কাঠের সেলফ তৈরি করে বিভিন্ন কসমেটিক সাজিয়ে রাখতে পারেন এবং একটি বড় আয়না যাতে কাস্টমার নিজেকে দেখবে তা রাখতে পারেন। এরপর বিউটি পার্লারের ভেতরে কাস্টমারের বসার জন্য চেয়ার বা সোফা রাখতে পারেন। আর কাস্টমারের ব্যবহার করার জন্য ওয়াশরুম অবশ্যই রাখতে হবে। যেহেতু ভারত ও বাংলাদেশের বিউটি পার্লারের বেশিরভাগ কাস্টমার মহিলা হয়ে থাকে তাই মহিলাদের জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রকার জরুরী সামগ্রী ও পার্লার ব্যবসাতে আপনি রাখতে পারেন।

আরো পড়ুন- গাড়ির পার্টস ব্যবসা কিভাবে করবেন?

বিউটি পার্লারের কোর্স কোথায় করা যায়?

বর্তমানে বিউটি পার্লারের কোর্স বা প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য আপনি আপনার এলাকার বড় বিউটি পার্লারের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।এছাড়া কলকাতা সহ প্রতিটা বড় শহরে বা বাংলাদেশের ঢাকা সহ প্রতিটা বড় শহরে একাধিক বড় বড় ইনস্টিটিউশন গড়ে উঠেছে। এইসব প্রাইভেট ইনস্টিটিউশন বড় বড় বিউটিশিয়ানদের নিয়ে একা ধিক সেমিনার করে ও ট্রেনিং দিয়ে থাকে। আপনি যদি বিউটি পার্লারে ট্রেনিং নিয়ে বড় বিউটিশিয়ান হতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই ধরনের বড় ইনস্টিটিউশন থেকে বিউটি পার্লারের কোর্স করতে হবে। যদিও বড় প্রাইভেট ইনস্টিটিউশন থেকে বিউটি পার্লারের কোর্স করতে আপনাকে অনেক টাকা বিনিয়োগ করতে হবে তবুও আপনি বেশি করে ভালোভাবে শিখতে পারবেন। বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের যে সকল জায়গায় বিউটি পার্লারের কোর্স করতে পারবেন তা দেওয়া হল-

কলকাতার বিউটি পার্লার কোর্স

  • Lakme Academy- House 3rd Floor, Azimganj, 7, Camac St, Kolkata, West Bengal 700017
  • khubsurat ladies beauty parlour classes- 700016 24/1, Sheriff Lane, Alimuddin St, Kolkata, West Bengal 700016
  • Srishti Ladies Beauty Clinic,Spa & Training Centre- 99 kanungo Park, Beside Srirampur Kalyan Samiti Club Garia, Kolkata, West Bengal 700084
  • SHUKLA’S LADIES BEAUTY SALON & MAKEUP INSTITUTE- 3/V, Naskar Para Ln, Dhakuria, Naskar Para, Garfa, Kolkata, West Bengal 700031
  • Gold Salon & Academy : Beauti salon & Training center- 51/B, Garcha Rd, Dover Terrace, Ballygunge, Kolkata, West Bengal 700019

বাংলাদেশের বিউটি পার্লার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

  • Lim Beauty Parlor and Training Center- QC29+8FM, Dhaka 1219, Bangladesh
  • Iqra Beauty Parlour & Training Center- House No.4, Section-10,Road No.5, Block-A, Mirpur, Dhaka 1216, Bangladesh
  • Anjons Beauty Parlor & Training CENTRE- 10/1 Naya Paltan, Dhaka, Bangladesh
  • Asha Beauty Parlour And Training Centre- 451, Raja Miya Sawdagar Market, Commerce Collage Road, Agrabad Commercial Area, Agrabad, Chattogram 4100, Bangladesh
  •  নিউ চিটাগাং পার্সোনা বিউটি পার্লার এন্ড ট্রেনিং সেন্টার- 8RX9+2FX, Moti Jharna Ln, Chattogram, Bangladesh
Beauty parlour
বিউটি পার্লার

বিউটি পার্লারে কোন কোন কাজ করা হয়?

বিউটি পার্লার ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে প্রতিটা পার্লারে কোন কোন কাজ করা হয়ে থাকে এবং কাস্টমার কোন ধরনের কাজে বেশি সন্তুষ্ট হয়ে থাকে। যদিও বর্তমান সময়ে প্রতিটা বিউটি পার্লারে বিভিন্ন ধরনের কাস্টমার সার্ভিস দেয়া হয়ে থাকে। তবে সাধারণত প্রতিটা পার্লারের যে সকল কাজ হয় তা হল-

  • মেয়ে ও ছেলেদের চুল কাটা
  • চুলের রং করা বা বিভিন্ন ধরনের কালার করা
  • চুলকে সুন্দর করে সাজানো
  • ফেসিয়াল করা বা মুখ কি পরিষ্কার করে সুন্দর করে সাজানো মালিশ করা।
  • হাত ও পায়ের মালিশ করা
  • ভ্রু প্লাক করা
  • আন্ডার আর্মস ও আন্ডার বডি ওয়াক্সিন করা
  • চেহারার চুল তোলা (দাড়ি, গোঁফ, কপালের)
  • কনে সাজানো
  • মেহেন্দি করা
  • বডি ম্যাসাজ করা
  • বডি স্পা করা

বিউটি পার্লার সামগ্রী কি কি?

বিউটি পার্লার ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে বিউটি পার্লারে একাধিক সামগ্রী রাখতে হবে। আর সেই সকল সামগ্রি গুলো হল-

  • প্রাইমার
  • ফেসওয়াস
  • লিপস্টিক
  • নেলপালিশ
  • ফেস ক্লিনার
  • কাজল
  • হাই লাইনার
  • লিফ লস
  • মাস্কারা
  • টিথ ক্লিনার
  • ফাউন্ডেশন
  • কনসেলার
  • বিবি ক্রিম
  • সিসি ক্রিম
  • ফেস পাউডার
  • কমপ্যাক্ট
  • ব্লাস
  • হাইলাইটার ইত্যাদি।

বিউটি পার্লার ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্সের প্রয়োজন?

সাধারণত আপনি যদি ছোট করে ব্যবসা শুরু করেন এক্ষেত্রে আপনার কোন রকম লাইসেন্সের প্রয়োজন পড়বে না। আর আপনি যদি গ্রামাঞ্চলের দিকে ছোট বিউটি পার্লার তৈরি করে ব্যবসা করেন সেক্ষেত্রেও আপনার লাইসেন্সের প্রয়োজন পড়বে না। কারণ বড় ব্যবসা হয়ে গেলে তখন অনেক সময় আইনি জটিলতার সম্মুখীন হতে হয় বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে। তাই ব্যবসা কে বাঁচানোর জন্য প্রতিটা ব্যবসায়ীকেই বিভিন্ন প্রকার লাইসেন্স নিতে হয়। প্রতিটা ব্যবসায়ীর মতো ব্যবসার শুরুতে আপনি চাইলে ট্রেড লাইসেন্স নিয়েই ব্যবসার কাজ শুরু করতে পারেন। এছাড়াও পার্লার করার জন্য আপনাকে জি এস টি নাম্বার নিতে হবে। দোকান ভাড়া নিলে তার আইনি কাগজপত্র সর্বদা রাখতে হবে আপনার কাছে। ছাড়া আপনার নাগরিকত্বের প্রমাণপত্র আপনার কাছে সর্বদা রাখতে হবে।

বিউটি পার্লার ব্যবসার মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

বিউটি পার্লার ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে মার্কেটিং খুব ভালোভাবে করতে হবে। বিশেষত ব্যবসার শুরুর দিকে মার্কেটিং ভালো না করলে কাস্টমার পাওয়ার সংখ্যা অনেকটাই কমে যাবে। তাই ভালোভাবে মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে বিভিন্ন আধুনিক পদ্ধতির পাশাপাশি পুরনো পদ্ধতি ও ব্যবহার করতে হবে। অর্থাৎ যে পদ্ধতিতে মার্কেটিং করলে আপনার ব্যবসার বৃদ্ধি সম্ভব তা হলো-

  • ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে একটি পেজ তৈরি করুন এবং প্রতিদিন এই পেজে নিত্যনতুন মেকআপ সংক্রান্ত পোস্ট করতে থাকুন। কিছুদিনের মধ্যেই আপনার প্রতিটা পেজ মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা লাভ করবে এবং এখান থেকে আপনি অনেক বেশি পরিমাণের কাস্টমার সংগ্রহ করতে পারবেন।
  • নিজস্ব ওয়েবসাইট তৈরি করুন এবং সেই ওয়েবসাইটে মেকআপ ও পার্লার সংক্রান্ত পোস্ট করতে থাকুন। ধীরে ধীরে আপনার ওয়েবসাইট জনপ্রিয়তা লাভ করবে এবং আপনার ব্যবসা ও জনপ্রিয়তা লাভ করবে।
  • যে এলাকাতে আপনি ব্যবসা করছেন সেই এলাকার প্রতিটা জাগাতে অর্থাৎ রাস্তা এবং গলি গলিতে আপনার বিউটি পার্লারের নামের পোস্টার তৈরি করে লাগান। এলাকায় এলাকায় পোস্টার লাগালে আপনার প্রচার বহুগুণ বেড়ে যাবে মানুষের কাছে।
  • যে এলাকাতে ব্যবসা করছেন তার আশেপাশের ছোট বড় এলাকার মোড় গুলিতে ফ্লেক্স তৈরি করে প্রচার বাড়াতে পারেন।
  • আবার ব্যবসার শুরুর দিকে আপনি বিভিন্ন এলাকার গাড়িতে মাইক লাগিয়ে মাইকিং করে প্রচার করতে পারেন আপনার দোকানের।
  • পরিচিত সার্কেলের মধ্যে আপনি রেকমেন্ডেশন ব্যবস্থা চালু করে আপনার ব্যবসার কাস্টমার বৃদ্ধি করাতে পারেন।

অবশ্যই পড়ুন- অল্প পুজিতে ওষুধের ব্যবসার আইডিয়া

আপনার কাস্টমার কারা হবে

বিউটি পার্লার ব্যবসা করলে কাস্টমার সাধারণত মেয়েরাই হয়ে থাকেন আমাদের এলাকা ও সমাজে। তবে শহরাঞ্চলের দিকে মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেরাও রূপচর্চার দিকে বর্তমানে বেশি আগ্রহ নেই তাই বিউটি পার্লারের কাস্টমার মেয়েরা থাকলেও ছেলেরাও অনেকাংশে আসতে পারে। নববধূ বা বিয়ের কনে সাজানো বিউটি পার্লারের একটি বড় কাস্টমার। কোন বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে বউ সাজানোর সময় সেই বিয়ে বাড়িতে একাধিক মানুষকে সাজানো এই বিউটি পার্লার ব্যবসার অঙ্গ।

বিউটি পার্লার ব্যবসার সাথে আর ও কি কি ব্যবসা করা যায়?

বিউটি পার্লার ব্যবসার সাথে সাথে আপনি আরো বহু ধরনের ব্যবসা একই সাথে করতে পারেন। যেহেতু বিউটি পার্লারের কাস্টমার মহিলা হয়ে থাকে তাই মহিলাদের ব্যবহৃত সকল প্রকার সামগ্রী আপনি কি করতে পারেন পার্লার ব্যবসার সাথে সাথে। যেমন মহিলাদের ব্যবহৃত পোশাক থেকে শুরু করে কিছু জরুরী সামগ্রী বা প্রাইভেট সামগ্রী আপনি বিক্রি করতে পারেন আপনার ব্যবসার সাথেই। এছাড়া বাচ্চাদেরও বিভিন্ন আইটেম আপনি বিক্রি করতে পারেন পার্লারের। সাধারণত যে সকল জিনিসগুলি পার্লার ব্যবসার সাথে সাথে করতে পারবেন তা হল-

  • মহিলাদের প্রাইভেট পোশাক
  • স্যানিটারি ন্যাপকিন
  • কসমেটিক্স
  • বাচ্চাদের খেলনা বা সফিজ

বিউটি পার্লার ব্যবসায় লাভ কত?

বিউটি পার্লার ব্যবসায় যেমন অল্প খুজে বিনিয়োগ করলে করা যায় তেমন এই ব্যবসা থেকে লাভও অনেক বেশি পরিমাণে করা যায়। আপনি যখন ছোট বিউটি পার্লার তৈরি করবেন তখন আপনি প্রতি মাসে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আর আপনি যখন বড় করে ব্যবসা করবেন এবং আপনার ব্যবসা জনপ্রিয়তা লাভ করবে তখন আপনি প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকা থেকে ১ লক্ষ টাকা অব্দি ইনকাম করতে পারেন শুধুমাত্র এই ব্যবসায়। কলকাতার বড় বড় নামকরা বিউটি পার্লার প্রতি মাসে ১ লক্ষ টাকারও বেশি ইনকাম করে। আর একজন বড় বিউটিশিয়ান প্রতিমাসের ২ থেকে ৫ লক্ষ টাকা আয় করতে পারেন

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

বেকারি ব্যবসা করুন

ব্রয়লার মুরগির খামারের পরিকল্পনা

Leave a Comment