পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করে হয়ে উঠুন সফল ব্যবসায়ী | Paper cup making business earns 1 lakh rupees per month Right Now

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা এমন একটি ব্যবসা যা প্রতিনিয়ত প্রতিদিন সারা ভারতবর্ষে জুড়ে কোটি কোটি মানুষ ব্যবহার করছে । পেপার কাপ এর চাহিদাও বর্তমান সময়ে যেমন আছে তেমন ভবিষ্যতেও থাকবে। তাই পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা আপনাকে করে তুলতে পারে একজন সফল ব্যবসায়ী এবং তার সাথে সাথে প্রতি মাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করার চাবিকাঠি হয়ে উঠতে পারে পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা।

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা
পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা

Table of Contents

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করতে কত টাকা খরচ হয়?

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করার জন্য কম করে 7 লক্ষ টাকা আপনাকে ইনভেস্ট করতে হবে। কারণ পেপার কাপ তৈরির ব্যবসায় লাভ যেমন অনেক বেশি পরিমাণে হয়ে থাকে ঠিক তেমনি এর মেশিন কেনার জন্য বেশকিছু টাকা খরচ করতে হয়। তবে প্রথম ইনভেস্টটাই হবে আপনার সর্বোচ্চ ইনভেস্ট। মানে প্রথমে আপনি টাকা লাগিয়ে মেশিন কিনে ব্যবসা শুরু করে দেওয়ার পরে প্রতিমাসে শুধুমাত্র 15-20 হাজার টাকার কাঁচামাল কিনলেই আপনি এই ব্যবসা থেকে প্রতিমাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করতে পারছেন।

পেপার কাপ তৈরি করতে কাঁচামাল কি কি লাগে?

পেপার কাপ তৈরি করার জন্য শুধুমাত্র যে কাঁচামাল টি লাগে সেটি হল পেপার। আপনারা বুঝতেই পারছেন কাগজের কাপ তৈরি করার জন্য কাগজ লাগবে এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু পেপার কাপের যে পেপারটা হয় সেটা একটু মোটা এবং তরল পদার্থ ধরে রাখার ক্ষমতা সম্পন্ন হয়ে থাকে।
পেপার কাপ গুলিভর্তি করার জন্য শেষে একটি প্লাস্টিক দরকার হয়, সেই প্লাস্টিক টা ও কাঁচামাল হিসেবে আপনি কিনে আনতে পারেন বাজার থেকে।

পেপার কাপ তৈরীর কাঁচামাল কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

পেপার কাপ তৈরি করার জন্য যে সমস্ত কাঁচামাল আপনার লাগছে তার সমস্ত টাই আপনি যেখান থেকে মেশিন কিনবেন সেখান থেকে পেয়ে যাবেন । বড়বাজার হোলসেল মার্কেট থেকে আপনি চাইলে পেপার কাপ এর যাবতীয় সরঞ্জাম কিনে নিতে পারেন।
এছাড়া অনেক পেপার মেনুফেকচারিং কোম্পানি আছে যারা শুধুমাত্র বিভিন্ন ধরনের পেপার তৈরি করে থাকে সেইসব কোম্পানি থেকে যদি আপনারা সরাসরি কেনেন তাহলে অনেক অনেক কম দামে পেপার পেয়ে যাবেন।

আরো পড়ুন- মিনারেল ওয়াটার প্লান্ট ব্যবসা

পেপার কাপ তৈরির মেশিন কোথায় পাওয়া যায়?

পেপার কাপ তৈরির মেশিন সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। একটা মেশিন হয় হাইস্পিড মেশিন এবং আর একটা নরমাল স্পিড মেশিন।
হাই স্পিড মেশিনের অনেক দ্রুত অনেকগুলো কাজ একসাথে তৈরি হয় আর নরমাল স্পিক মেশিনে প্রতিদিন 5000 কাপ আপনি তৈরি করতে পারেন। পেপার কাপ তৈরি করার জন্য মেশিন বলি আপনার শহরের মেশিন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির কাছ থেকে আপনি কিনতে পারেন। কলকাতায় বড়বাজার সহ বিভিন্ন কোম্পানি পেপার কাপ তৈরীর মেশিন তৈরি করে থাকে।
এই সকল কোম্পানী গুলির মধ্যে কিছু কিছু কোম্পানির নাম সহ ফোন নাম্বার আমি নিচে দিয়ে দিলাম আপনারা দরকার মতো সেই কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে সেখান থেকে পেপার কাপ তৈরির মেশিন সহ যাবতীয় সরঞ্জাম কিনে নিতে পারেন।

স্বর্ণাভ ইন্ডাস্ট্রিজ প্রাইভেট লিমিটেড, সিমলা কালিতলা, শ্রীরামপুর, হুগলি যোগাযোগ:- +919875449572

Paper-Cup-Machine
পেপার কাপ তৈরির মেশিন

পেপার কাপ তৈরির মেশিনের দাম কত?

পেপার কাপ তৈরির মেশিনের দাম বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে যেমন হাইস্পিড মেশিন এর দাম 8.5 লক্ষ টাকা। নরমাল স্পিড মেশিনের দাম 6.5 লক্ষ টাকা।
আগার এই মেশিন গুলি যদি সেকেন্ডহ্যান্ড হয়ে থাকে তাহলে এদের দাম 1-2 লক্ষ টাকা করে কমে যাবে প্রতি মেশিন এর উপর।
নতুন মেশিন যদি হয় তাহলে কোম্পানি আপনাকে এক বছরের ওয়ারেন্টি দেবেন এবং সার্ভিস গ্যারান্টি দেবে। সেকেন্ড হ্যান্ড মেশিন কোম্পানি থেকে নিলে তাহলে 6 মাসের ওয়ারেন্টি এবং সার্ভিস গ্যারান্টি কোম্পানি দেয়।

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন হয়?

পেপার কাপ তৈরির মেশিন এর দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ 3 ফুট বাই 6 ফুটের হয়ে থাকে। হলে আপনি চাইলে যেকোন 10/12 ফুটের ঘরে এই মেশিন বসিয়ে পেপার কাপ তৈরি করতে পারেন।
তবে পেপার কাপ মেশিন ছাড়াও পেপার কাপ এর যাবতীয় কাঁচামাল এবং তৈরি হয়ে যাবার পর পেপার কাপ গুলিকে রাখার জন্য যে জায়গাটা দরকার, সেই জায়গাটা ও আপনার এই এক কামরা ঘরের মধ্যেই হয়ে যাবে। তাই পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করার জন্য খুব বেশী বড় জায়গার প্রয়োজন পড়ে না।

পেপার কাপ কিভাবে বানানো হয়?

পেপার কাপ তৈরি করার জন্য যে পেপার কাপ গুলি আপনি নেবেন সেগুলি অলরেডি পেপার কাপ এর আয়তন অনুযায়ী ডাইসে কাটা থাকে। তারপর সেই কাগজ গুলিকে সামান্য কিছু জল স্প্রে করে একটু ভিজিয়ে নিতে হয় ধারগুলো । তারপর মেশিনের মধ্যে পেপার দিয়ে মেশিন চালিয়ে দিলে একটা একটা করে কাগজ মেশিনের মধ্যে অটোমেটিক যেতে থাকবে, এবং পেপার কাপ এর মত রাউন্ড হয়ে আর একটা মেশিনের প্রান্তে পৌঁছে যাবে । তারপর সেই প্রান্তটা কাপের তলার অংশটা বসিয়ে কাটিং করে পেপার কাপ গুলি সুন্দরভাবে সাজিয়ে মেশিনের ওপরে তুলে দেবে।

আপনার কাজ শুধুমাত্র পেপার গুলিকে জল স্প্রে করে মেশিনের সঙ্গে লাগিয়ে মেশিন টা চালিয়ে দেওয়ার, তারপর মেশিন একা একাই পেপার কাপ তৈরি করে আপনার সামনে নিয়ে চলে আসবে । তারপর 50 টা করে পেপার কাপ আপনি গুনে নিয়ে প্লাস্টিকের মধ্যে ভরে বাজারে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত করে ফেলুন।খুব সহজ নিয়ম বানানোর জন্য, আপনি যেখান থেকে মেশিন কিনবেন সেখানেই আপনাকে শিখিয়ে দেওয়া হবে সমস্ত প্রক্রিয়াটি।

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসার জন্য কি কি লাইসেন্স লাগে?

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসার জন্য সাধারণত দুই ধরনের লাইসেন্স এর দরকার হয়। প্রথমত ট্রেড লাইসেন্স আরেকটা পলিউশন গ্রীন লাইসেন্স।
প্রত্যেক ব্যবসায়ীর ব্যবসা করার জন্য যেমন ট্রেড লাইসেন্স দরকার হয় ঠিক তেমনি আপনিও যখন ব্যবসা শুরু করবেন তাই আপনার ব্যবসার শুরুর আগেই ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে নিতে পারেন এবং পেপার কাপ তৈরির ব্যবসার জন্য আলাদা করে পলিউশন গ্রীন লাইসেন্সের দরকার।
ট্রেড লাইসেন্স আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অথবা বিডিও অফিস কিংবা কর্পোরেশন থেকে পেয়ে যাবেন। বর্তমান সময়ে ট্রেড লাইসেন্স অনলাইনে এপ্লাই করেও পাওয়া যায় তাই আপনি চাইলে অনলাইনে নিজে থেকেই এপ্লাই করে ট্রেড লাইসেন্স কি বানিয়ে নিতে পারেন।

কাগজের কাপ তৈরির ব্যবসা করার জন্য কি ইন্সুরেন্স করতে হয়?

ব্যবসা ছোট করে শুরু করার সময় আপনাকে অনেক কিছু জিনিস মাথায় রাখতে হবে তার মধ্যে একটি অন্যতম জিনিস হল ব্যবসায় ইন্সুরেন্স করে রাখা। কারণ ব্যবসায় কোন সময় কি ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন আপনি হবেন সেটা কিভাবে আপনি নির্ধারিত করতে পারেন, সেই জন্য আপনি আগে থেকে যদি একটি ইন্সুরেন্স করে রাখেন আপনার ব্যবসার নামে, তাহলে ব্যবসায় যদি কোনো কারণে কোনো বড় ক্ষতির সম্ভাবনা হয় সেই ক্ষতির হাত থেকে ইন্সুরেন্স আপনাকে অনেকটা রক্ষা করবে।
তাই জন্য প্রতিটা ব্যাবসায়ী ব্যবসা শুরু করার সাথে সাথে ইন্সুরেন্স বর্তমান সময়ে করে রাখে। আপনি ও আপনার ব্যবসা শুরু করার সাথে সাথে ইন্সুরেন্স করে রাখুন।

আরো পড়ুন- টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যবসা

কাগজের কাপ এর মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়?

বর্তমান সময়ে প্রতিদিন সারা ভারতবর্ষে 11 কোটি পেপার কাপ বিক্রি হয়ে থাকে। তারমধ্যে আমরা বাস করছি পশ্চিমবঙ্গে, এই পশ্চিমবঙ্গে প্রতিদিন কয়েক লক্ষ পেপার কাপ বিক্রি হয়। আপনি যে অঞ্চলে বাস করছেন সেখানে আপনি নিজে খেয়াল করলে দেখতে পাবেন প্রতিটা মরে বর্তমান সময়ে তিনটে চারটে করে চায়ের দোকান রয়েছে। এবং প্রতিটা দোকানদার প্রতিদিন কয়েক হাজার কাপ বিক্রি করছে।

আপনি যদি আপনার লোকাল বাজারে চা দোকান গুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করেন তাহলে প্রতিদিন আপনি তাদের চায়ের কাপ যোগান দিয়ে ও দিয়ে উঠতে পারবেন না কারণ আপনার প্রতিদিন তৈরি হয় মেশিন থেকে 50000 কাপ আর প্রতিটা দোকান হয়তো আপনার কাছ থেকে প্রতিদিন হাজারটা করে কাপ নিলে 50 টা দোকান ধরলেই আপনার প্রতিদিনের কাপ বিক্রি করতে পারছেন। মানে বুঝতেই পারছেন যে চায়ের কাপ তৈরির ব্যবসা করে আপনি কতটা বেশি লাভবান হবেন, এবং এই ব্যবসা করে আপনাকে কোনদিনও ভাবতে হবেনা যে কিভাবে আপনি বিক্রি করবেন।

Paper cup making
পেপার কাপ তৈরি

চায়ের কাপ তৈরীর ব্যবসায় কিভাবে পেপার কাপ প্যাকিং করা হয়?

আমরা সবাই জানি চায়ের কাপ বিভিন্ন ধরনের এবং বিভিন্ন ডিজাইনের হয়ে থাকে। এই সমস্ত ডিজাইনগুলি সাধারণত পেপারের ওপর ডিজাইনগুলি থেকে হয়ে থাকে। আপনি চাইলে আলাদা করে আপনার কোম্পানির নাম সহ ব্যান্ডিং করে পেপার ডিজাইন করতে পারেন। অথবা রেডিমেড যেসব পেপার পাওয়া যায় বাজারে সেইসব পেপার কিনে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।
যে মেশিনে আপনি পেপার কাপ তৈরি করছেন সেই মেশিন অটোমেটিক কাব্যগুলি সাজিয়ে মেশিনের সামনে নিয়ে চলে আসে সেখান থেকে শুধু মাত্র 50 টা করে কাপ গুনে নিয়ে প্লাস্টিকের পেপার এর মধ্যে ভরে সেটা বেঁধে বাজারে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত করতে হয়। হলি খুব বেশি প্যাকিং এর জন্যে পেপার কাপ কে ভাবতে হয় না।

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?(Paper cup toirir babsai lav koto)

যে কোন ব্যবসা করতে গেলে আমাদের সব সময় মনে হয় ব্যবসায় লাভ কত হয়। ঠিক তেমনি পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা এমন একটি ব্যবসা যে ব্যবসা থেকে আধুনিক প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারেন। পেপার কাপ বিভিন্ন সাইজের হয়ে থাকে, বর্তমান সময় 11 ধরনের পেপার কাপ বাজারে বিক্রি হয়ে থাকে। প্রতিটা কাপের কালার এবং কাগজের কোয়ালিটির ওপর দাম নির্ভর করে। 80 পয়সা থেকে শুরু করে 2 টাকা দাম পর্যন্ত প্রতি পেপার কাপ বিক্রি হয়ে থাকে। মাসে 25 দিন মেশিন চলে এই মেশিন থেকে আপনি প্রতি মাসে 75 থেকে 80 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। কারণ প্রতিদিন কাজ তৈরি করতে পারবেন 50000 করে

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করতে কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়?

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা করতে গেলে প্রথমে আপনার যে সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে সেটি হলো মার্কেটিং করার সমস্যা। কারণ বর্তমান সময়ে আপনি যদি মার্কেটিং টা ভালো করে না জানতে পারেন এবং ঠিকভাবে দোকানদারকে গিয়ে আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে বোঝাতে পারেন তাহলে দোকানদাররা আপনার কাছ থেকে আপনার প্রোডাক্টটা কিনবেন তার জন্য আপনাকে কয়েকটা স্ট্র্যাটেজি মেনে চলতে হবে।
প্রথমতঃ পেপার কাপ গুলির দাম অন্য সব কোম্পানির থেকে আপনাকে কিছুটা কম নিতে হবে অর্থাৎ অল্প লাভ দেখে প্রথমে মার্কেটে বিক্রি করুন পেপার কাপ গুলি।


দ্বিতীয়তঃ প্রথমে অল্প পরিমাণে কাপ তৈরি করে মার্কেটে আগে বিক্রি করুন দেখুন মার্কেট টা কেমন, এবং মার্কেটটা ধরার চেষ্টা করুন, এতে আপনার অল্প পরিমাণে কাপ তৈরি করলে লস হবে না। এদিকে মার্কেট টা একবার ধরা হয়ে গেলে আপনি বেশি বেশি পরিমাণে কাপ তৈরি করে মার্কেটে বিক্রি করতে পারছেন।
নিজের উপরে ভরসা রাখুন আর সাহস করে ব্যবসা করে যান দেখবেন ব্যবসায় সাফল্য আসবেই।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও FAQ

পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা কি গ্রামে করা যায়?

উত্তর: হ্যাঁ, পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা গ্রামে আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ মতো জায়গায় মেশিন কিনে শুরু করতে পারেন।

পেপার কাপ কোথায় বিক্রি হয়?

উত্তর: যেকোনো পেপার কাপ প্লেটের দোকান এবং বড় পাইকারি বাজারে পেপার বিক্রি হয়।

পেপার কাপ ব্যবসা করতে কত বড় জায়গা লাগে?

উত্তর: কমপক্ষে 10/10 ফুটের একটি ঘর প্রয়োজন এই ব্যবসায়।

পেপার কাপ তৈরি করতে কিসের প্রয়োজন হয়?

উত্তর: পেপার কাপ তৈরি করতে সিল্কি পেপারের প্রয়োজন হয়।

পেপার কাপ তৈরীর ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

উত্তর: 6-7 লক্ষ টাকা লাগে এই ব্যবসায়।

পেপার কাপ তৈরীর ব্যবসায় লাভ কত?

উত্তর: প্রতিদিন আপনি 5 হাজার টাকা আয় করতে পারেন এই ব্যবসা থেকে।

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া পেতে দেখুন-

আলুর চিপস তৈরির ব্যবসা

মোমবাতি তৈরির ব্যবসা

Leave a Comment