পানের দোকান করে পানের ব্যবসা করুন | 50 thousand rupees income from Paan Shop business,Right now

ভারত ও বাংলাদেশের অগণিত মানুষ খাবার শেষে পান খাবার প্রচলতার সাথে সাথে বর্তমানে পানের নেশায় আসক্ত। আবার অনেক মানুষ আছেন যারা শুধুমাত্র পান খাবার জন্যই খেয়ে থাকেন। এছাড়া পানের অনেক স্বাস্থ্যকর গুনাগুন ও থেকে যায়। তাই আবার অনেকে স্বাস্থ্যসম্মত পান খাবার জন্য পানের দোকানে যান। আপনি যদি পানের ব্যবসা শুরু করেন তাহলে অবশ্যই আপনি প্রতি মাসে ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর সঠিকভাবে ভালো করে পানের ব্যবসা করতে আপনাদের সুবিধার জন্য আজকের এই পোস্ট তৈরি করা হলো।

পান একটি ছোট শব্দ হলেও পানের গুনাগুন অনেক বেশি। বর্তমানে পানের দোকানে যে সকল পান ব্যবসায়ী ব্যবসা করছেন তারা কালারফুল মসলা দিয়ে পান সাজিয়ে মানুষের সামনে পরিবেশন করেন। এই কালারফুল মসলাযুক্ত পান দেখে নিজেকে সামলানো সত্যিই কঠিন হয়ে যায় প্রতিটা মানুষের কাছে।

পানের ব্যবসা কিভাবে করবেন?

পানের ব্যবসা করার জন্য আপনাকে অল্প কিছু শিখতে হবে পান সাজানোর প্রক্রিয়াগুলিকে। এছাড়া আপনি পানের দোকান দেবার জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রকার কাঁচামাল কিনে ব্যবসা করতে পারেন। বিভিন্ন কালারফুল পান মশলা দিয়ে পান সাজিয়ে টেবিলে যখন রাখবেন তখন আপনি নিজেও কল্পনা করতে পারবেন না মানুষের ভিড় উপচে পড়বে আপনার দোকানে। বর্তমানে যে সব মেলায় বা জনবহুল বাজার এলাকাতে পানির দোকান রয়েছে প্রতিটা ব্যবসায়ী পান ব্যবসা করে অনেক টাকা উপার্জন করছেন। বহু মানুষ রয়েছেন যারা সারা বছর পান খান এবং তাদের পানির প্রতি আসক্ত ভাব রয়ে যায়। আবার পান পূজার্চনা থেকে বহু কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাই পানের বাজারও যথেষ্ট বড় পরিমাণের বলা যেতে পারে ভারত ও বাংলাদেশ।

Paan Shop
পানের দোকান

পানের ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

পানের ব্যবসা করার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় পুঁজি হিসাবে কমপক্ষে 10 হাজার টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। এই টাকাতে আপনি যেমন প্রয়োজনীয় সকল কাঁচামাল কিনবেন কেমন ব্যবসার জন্য একটি দোকান তৈরি করতে পারবেন। আর আপনি যদি বড় করে পান ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে 20 থেকে 30 হাজার টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। সাধারণত আপনি ছোট করে ব্যবসা করলেও প্রতি মাসে আপনার আই হতে পারে আপনার বিনিয়োগের দ্বিগুণ টাকা।

অবশ্যই পড়ুন- অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা শুরু করুন আজই

পানের ব্যবসার কাঁচামাল কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

পান ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে বিভিন্ন রকমের কাঁচামাল হিসাবে পান মসলা কিনতে হবে। আর এইসব পান মশলা অল্প দামে কেনার জন্য আপনাকে আপনার এলাকার বড় পাইকারি বাজারে যেতে হবে। কলকাতার বড়বাজার পাইকারি মার্কেট থেকে পান মশলার সকল প্রকার ভ্যারাইটিস আপনি পেয়ে যাবেন। প্রতিটা পান মশলার যদি আপনি বড় ফাইল কেনেন তাহলে দামে অনেক কম হয়। তাই ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে বড় পাইকারি বাজার থেকে একটু বেশি পরিমাণের পানের মসলা কিনতে হবে। আপনি চাইলে পান মশলা কেনার জন্য আপনার এলাকার লোকাল পাইকারি বিক্রেতার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। কলকাতা ছাড়াও ভারতের বিভিন্ন বড় বড় পাইকারি মার্কেটে পান মশলা অল্প মূল্যে পেতে পারবেন।

পানের প্রকারভেদ (betel leaf business)

বর্তমান সময়ে মানুষের খাবার ধরন বদলাচ্ছে তাই পানের ধরনও বদলেছে। মানুষ জন্মদিনের পার্টি রিসেপশন পার্টি বিবাহ প্রভৃতি অনুষ্ঠানে পানের স্টল দেওয়া পছন্দ করেন। তাই বিভিন্ন মানুষের চাহিদা অনুযায়ী পানের ও প্রকারভেদ দেখা যাচ্ছে। বর্তমানে যে সকল পান মানুষ পছন্দ করেন তা হল-

  • টোবাকো পান
  • চকলেট পান
  • মিঠা পান
  • সাদা পান
  • জর্দা খয়ের পান
  • বেনারসি পান
  • পাঁচ বিভা পান
  • গুলাপ পান
  • কেশর পান
  • নাভিরতন পান
  • রাজাতন পান
  • আমাবত পান
  • গিল্লোরি পান
  • সিঙ্গারা পান
  • আইস পান

পানের স্টোল ব্যবসা

পানের ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে কোথাও স্টোল দিতে হবে। আপনি চাইলে মেলায় মেলায় দোকান দিয়ে পানের ব্যবসা করতে পারেন। আবার আপনি কোন একটি জায়গায় বাঁধাধরা স্টল বা দোকান তৈরি করে পান ব্যবসা করতে পারেন। কলকাতায় এমন কিছু পানির ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা পানের দোকান দিয়ে রেখেছেন 100 বছরেরও বেশি সময় ধরে। আবার অনেক ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা 50- 60 বছর ধরে পানের ব্যবসা করছেন একই জাগাতে দোকান দিয়ে। তাই আপনি কি পদ্ধতিতে পান ব্যবসা করবেন তা অবশ্যই আপনাকে নির্বাচন করতে হবে শুধু মনে রাখবেন এই ব্যবসায় লাভের পরিমাণ অনেকটাই বেশি হতে পারে।

আরো পড়ুন- জুতার ব্যবসা করার আইডিয়া

পানের ব্যবসার পরিকল্পনা

পানের ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে একটি পরিকল্পনা তৈরি করে নিতে হবে। আর পান সম্পর্কে ও জানতে হবে বুঝতে হবে। বর্তমানে মানুষ পানের তল ভাড়া করেন বিবাহ, জন্মদিন, রিসেপশনের পার্টি গুলিতে। এছাড়াও বানের ভেষজ গুনাগুনের জন্য ওষুধ তৈরি করা হয় তাই আপনি পান ব্যবসা করলে এই ওষুধ কোম্পানিগুলিতে পান সরবরাহ করে ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আবার অনেক আয়ুর্বেদিক দোকানগুলিতে আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরি করার জন্য পানের প্রয়োজন পড়ে।

কলকাতার এমন কিছু কিছু পানের দোকান রয়েছে যারা এক একটা পান 5000 টাকায় বিক্রি করেন। বর্তমানে সোনাইমোড়া পানের দাম 600 টাকা করে। পানের ব্যবসা করার জন্য যেমন বেশি পুঁজি বিনিয়োগ করতে হয় না। তেমনি পানের দোকান তৈরি করার জন্যও বড় কোন দোকান ভাড়া নিতে হয় না বা তৈরি করতে হয় না ছোট স্টলেই পান ব্যবসা করা যায়। বর্তমানে আমরা সবাই জানি পান আমাদের দেশের ঐতিহ্যবাহী খাবারগুলির মধ্যে একটি বলে ধরা হয়। তাই পান ব্যবসা ও এতটা জনপ্রিয়তা লাভ করে প্রতিটা ভারতীয় মানুষের কাছে।

বহু প্রাচীন সময় থেকে পান সেজে খাওয়ার প্রচলন ছিল। রাজা জমিদারেরা পান ছাড়া নিত্যদিনের আহার গ্রহণ করতেন না। অনেকেই শোবার সময় পান খাওয়া পছন্দ করতেন। বর্তমানেও তার ধারাবাহিকতায় এখন অনেক মানুষ এই পান খাওয়ার প্রচলনতাটা বজায় রেখেছে। আবার অনেক মানুষ শুধুমাত্র শখে পান খেয়ে থাকেন। তবে যাদের পান খাওয়ার নেশা রয়েছে তারা পানি চুন খয়ের সুপারি দিয়ে খেতে পছন্দ করেন বেশি।

বাংলাদেশ ও ভারতের বেশিরভাগ মানুষই পানের চুন খয়ের সুপারি ও জর্দা দিয়ে পান খান। আবার অনেক মানুষ শুধুমাত্র মিষ্টি পান বা চকলেট পান খেতে পছন্দ করেন। তাই আপনি যখন পানের ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে পান সম্পর্কে সকল ধারণা রাখতে হবে, এবং মানুষের প্রয়োজন অনুযায়ী সব রকম পানের ব্যবস্থা আপনার দোকানে রাখতে হবে।

পান পাতার ব্যবসা কোথায় করা যায়?

পান পাতার ব্যবসা করার জন্য আপনি গ্রাম কিংবা শহরের যে কোন জায়গাতেই স্টল বানাতে পারেন। তবে গ্রামের মানুষেরা পান যেমন রোজ খায় তেমনি শহরেরও অনেক মানুষ যারা পান রোজ খায়। তবে শহরাঞ্চলে পান পাতার ব্যবসা করলে আপনি বেশি লাভবান হবেন। কলকাতার নিউমার্কেটে 100 বছরের পুরনো পানের দোকান রয়েছে। এবং সেই প্রাণ ব্যবসায়ী প্রতিমাসে চল্লিশ থেকে পঞ্চাশ হাজার টাকা আয় করেন শুধুমাত্র পান বিক্রি করে। এই পান দোকানের নাম তাজমহল পান শপ। এই পানের দোকানে গেলে আপনি দেখতে পাবেন বহু পুরনো সেলিব্রেটিদের পাশাপাশি নতুন সেলিব্রেটিদের ছবি যারা এই দোকানে আসেন পান খাবার জন্য।

Paan business
পান পাতার ব্যবসা

কলকাতার কিছু পুরনো পানের দোকান

কলকাতায় বহু পুরনো পানের ব্যবসায়ী রয়েছেন যাদের প্রধান জীবিকা পান পাতা বিক্রি করে মানুষের কাছ থেকে অর্থ লাভ করা। এই পান ব্যবসায়ীরা বংশপরানুক্রমে তাদের দোকান চালিয়ে যাচ্ছেন। এবং শুধুমাত্র পানের ব্যবসা করেই প্রতি মাসে 40-50 হাজার টাকা আয় করছেন। এইরকম কিছু বিখ্যাত পানের দোকান হল-

তাজমহল পান শপ

তাজমহল পান শপ প্রায় ১০০ বছরের পুরনো দোকান। যা ধর্মতলার এসপ্ল্যানেডে গেলেই আপনি দেখতে পাবেন। এই দোকানে বহু পুরনো সেলিব্রেটিদের পাশাপাশি নতুন সেলিব্রেটিদের ছবি আপনি দেখতে পাবেন দেওয়ালে লাগানো রয়েছে। এইসব সেলিব্রেটিরা এই দোকানে আসতেন এবং এখনো আসেন পান খেতে। দোকানে সর্বদা বাজে হিন্দি পুরনো গানের মিউজিক। এই দোকানের বিশেষত্ব এবং নামকরা পান গুলি হলো-মিঠা পান ও আইস পান।

চৌরাশিয়া পান শপ

কলকাতার ১৫ বছরের এই পুরনো কানের দোকান এখন অনেকেই নামকরা হয়ে উঠেছে। সটলেকের বিখ্যাত পানের দোকান হিসেবে চৌরাশিয়া পান শপ খ্যাতি অর্জন করেছে। এই দোকানে অনেক বিখ্যাত ও নামকরা পান আপনি পেয়ে যাবেন। তবে সাধারণত বেশি মানুষ খেতে আসেন এখানে সিঙ্গারা পান, আইশ পান, চকলেট পান।

শিবুজি পান শপ

শেক্সপিয়ার সরণিতে শিবুজি পান শপ এক কথায় সব মানুষ চেনেন। বর্তমানে শী বুঝি পান সপে পানের ব্যবসার সাথে সাথে সোডা ওয়াটার ও কুলফি চাটো জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এই দোকানে প্রতিদিন 1 হাজার এরও বেশি মানুষ পান খাবার জন্য আসেন। তাহলে বুঝতেই পারছেন এই দোকানদার প্রতিদিন কত টাকা ইনকাম করতে পারে শুধুমাত্র পান। শিবুজি পান শপের বিখ্যাত পান গুলি হল মিন্ট ফ্লেভার পান ও স্পেশাল চাটনি পান।

কল্পতরু ভান্ডার

কলেজ স্কয়ারে এই 77 বছরের পুরনো পানের দোকান এখনো কাস্টমারের জন্য পান সেজে যাচ্ছে। এই কল্পতরু ভান্ডারে 1হাজার টাকার 1 টা পান বিক্রি হয়। এই স্পেশাল 1 হাজার টাকার পান যার মধ্য থাকে স্পেশাল ধরনের সুপারি যা খাবার জন্য বহু সেলিব্রেটি কাস্টমার আসেন।

অবশ্যই পড়ুন- কাগজের খাম তৈরির ব্যবসা

পানের তাৎপর্য

পান পুরোনো দিনের মানুষেরা নিজের গৌরাত্ম দেখানোর জন্য পান খাওয়া শুরু করলেও বর্তমানে মানুষের মধ্য পান খাওয়ার প্রচলন শখ ও নেশাই পরিণত হয়েছে। এখনকারে পানি শুধু চুন সুপারি নয় বরং থাকছে মিষ্টি চাটনি, খেজুরের টুকরো, এলাচ, গুলকন্দ, লবঙ্গ, নারকেল কোরা আরো বিভিন্ন জিনিস। আপনি যদি পান খেতে ভালোবাসেন এবং বিভিন্ন প্রকার পান খেয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই দিল্লির সোনার পান খেয়ে দেখবেন। এই সোনার পানের একটার দাম 600 টাকা করে। প্রতিটি প্রাণের ওপরে সোনার পেপার বিছানো থাকে। দিল্লির কটন প্রেস এলাকাতে এই পানের দোকান রয়েছে।

আবার পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুরে বিধাননগরে আপনি পেয়ে যাবেন রাজারাণী পান। এই রাজা রানী পানের দাম 1500 টাকা। তবে রাজা রানী পান খেতে গেলে আপনাকে একদিন আগে অর্ডার দিতে হবে কারণ এই পানের মধ্য যে সকল দামি জিনিসগুলি থাকবে তা দেবার জন্য আগে থেকে প্রস্তুতি নিতে হয়। প্রতিটা প্রাণের আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্যর জন্য সারা দেশের মানুষ ছুটে আসেন এইসব পান খাওয়ার জন্য কলকাতার এই বড় বড় দোকানগুলিতে। পান গিল্লোরিতে কাজুবাদাম গুলকন্দ জাতীয় ফলের পাশাপাশি আরও বিভিন্ন ধরনের ফল দিয়ে পানটি তৈরি করা হয়।

পান ব্যবসায় লাভ কত?

পান ব্যবসা শুরু করার জন্য যেমন অল্প পুঁজি বিনিয়োগ করতে হয় তেমন এই ব্যবসাতে লাভের পরিমাণও অনেকটাই বেশি হতে পারে। সাধারণত একজন পান ব্যবসায়ী প্রতিদিন 1 থেকে 2 হাজার টাকার পান বিক্রি করতে পারেন। আবার কলকাতার এই ধরনের বড় ব্যবসায়ী প্রতিদিন 5 থেকে 10 হাজার টাকারও পান বিক্রি করে থাকেন। আপনি যদি পানের ব্যবসা শুরু করেন তাহলে অবশ্যই আপনি প্রতি মাসে শুরু থেকেই 10-15 হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আর কোন কোন মাসের স্পেশাল অর্ডারে আপনি 20-30 হাজার টাকা আয় করতে পারবেন

তবে আপনাকে ব্যবসা করতে গেলে যেমন বুঝতে হবে কোন এলাকাতে ব্যবসা বেশি জমবে। আর কি পদ্ধতিতে ব্যবসা করলে বেশি কাস্টমার আসবে তা আপনার ব্যবহার ও ব্যবসার কৌশলেই প্রকাশ পাবে। আপনি মেলায় মেলায় দোকান দিয়েও ভালো টাকা ইনকাম করতে পারেন। আবার বড় বড় ওষুধ কোম্পানিতে পান পাতা বিক্রি করে ভালো টাকা রোজগার করতে পারেন

নতুন নতুন ব্যবসা আইডিয়া দেখুন-

ছাতা তৈরির ব্যবসা

টিস্যু পেপার তৈরির ব্যবসা

Leave a Comment