সম্পূর্ণ নতুন ব্যবসার আইডিয়া !! | চালের খোসা ও গমের খোসা দিয়ে ব্যবসা করুন লাভ 3 লাখ টাকা প্রতি মাসে RIGHT NOW

হ্যাঁ এই ব্যবসা টা সম্পূর্ণ নতুন ব্যবসার আইডিয়া। খুব অল্প খরচা করে আপনি এই ব্যবসা করতে পারেন আপনার এলাকাতে। এবং লাভ করতে পারেন প্রতি মাসে তিন লক্ষ চার লক্ষ টাকা পর্যন্ত।
কি ভাবছেন কি এমন ব্যবসা যা ধানের খোসা ও গমের গমের খোসা দিয়ে হয়।
তাহলে দেখে নেয়া যাক সেই নতুন ব্যবসার আইডিয়া যা আপনি করলে খুব সহজেই হয়ে উঠতে পারেন লাখোপতি।

Table of Contents

চালের খোসার কাপ তৈরির ব্যবসা | Rice Husk Fiber Cup Making

চালের খোসা ও গমের খোসা দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে সম্পূর্ণ অর্গানিক উপায়ে কাপ,প্লেট এবং থালা। বিভিন্ন প্লাস্টিকের যে বাক্স আমরা বাজারে কিনতে পারি তার সমস্ত জিনিসটাই ধানের খোসা ও গমের খোসা দিয়ে তৈরি হচ্ছে এখন।

নতুন ব্যবসার আইডিয়া
নতুন ব্যবসার আইডিয়া

কাপ প্লেট তৈরি ব্যবসায় কত টাকা খরচ হয়?

আপনার গ্রামে যেখানে ধান অথবা গম ভাঙানো হয় সেখানে গিয়ে যদি আপনি যোগাযোগ করেন বা আপনার প্রতিবেশীদের সঙ্গে যদি আপনি যোগাযোগ করেন তাহলে এখন প্রত্যেকের বাড়ি থেকেই আপনি চালের খোসা ও গমের খোসা কিনতে পারবেন খুবই অল্প মূল্যে। সেই খোসাগুলো কি নেই আপনি এই ব্যবসা শুরু করবেন। মূলত এই ব্যবসা শুরু করতে খরচ হয় আপনার 30 হাজার টাকার মতো।

প্লেট তৈরির ব্যবসায় কাঁচামাল কি কি লাগে ?

বুঝতেই পারছেন কাঁচামাল মানে এখানে চালের খোসা বা ধানের তুষ।
গমের খোসা বা গমের তুষ।
আর বেশি কিছু কাঁচামালের দরকার হয় না বাকি যা জিনিস তা মেশিন দিয়ে তৈরি হয়ে যায়।

220px Rice chaffs
ধানের তুষ

ধানের তুষ কোথায় পাওয়া যায়?

এই সকল কাপ প্লেট তৈরি করতে যে সকল কাঁচামালের দরকার তা আপনি পেয়ে যাবেন আপনার প্রতিবেশীদের কাছে। হয়ত আপনার বাড়িতেও পেয়ে যেতে পারেন ।যদি আপনাদের ধান চাষ হয় গম চাষ হয় সেই গম এবং ধান ভাঙানোর পরে যে তার খোসা গুলো পড়ে থাকে, সেই খোসাগুলো আপনি সংগ্রহ করুন এছাড়া আপনি যেখানে ধান ভাঙানো হয় সেখানে গিয়ে আপনি বেশি পরিমাণে খোসা কিনতে পারবেন।

ধানের তুষ দিয়ে কাপ তৈরির মেশিন এর দাম কত?

সাধারণত এই ধরনের মেশিন এর দাম শুরু হয় 30 হাজার টাকা দিয়ে একদিন অর্থাৎ আধঘন্টা আপনি এই মেশিন চালিয়ে 3000 কাপ তৈরি করতে পারবেন।
এছাড়া আপনি যদি আরো অত্যাধুনিক মেশিন কিনতে চান তাহলে দেড় লক্ষ থেকে তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত অনেক অত্যাধুনিক মেশিন আপনি কিনতে পারেন। যত ভালো এবং যত দামি মেশিন হবে ততো বেশি পরিমাণে এবং তথ্য ভেরাইটিস জিনিসপত্র আপনি তৈরি করতে পারবেন।

19404c2ca4f0e76e94d6ba70f5140406

● Ajit Kumar Ray & Co. Howrah, West Bengal Mob:- 9831531370/ 9831357725

● Oriental Machinery Pvt Ltd Lal Bazar, Kolkata Mob:- 9830391326

●Akhtar Machinery Dhaka, Bangladesh Mob:- 01786086428

● Mitul Machinery Bangladesh Mob:- 01639352581

সানি ইঞ্জিনিয়ারিং -০১৮২২৬২৭৮৫৯ নতুন ব্যবসার আইডিয়া

ধানের তুষ দিয়ে কিভাবে কাপ তৈরি হয়?

ধানের তুষ যদি আপনি এক কেজি নেন তাহলে তাতে 450ml জল আস্তে আস্তে দিতে হবে এবং এটা খুব ভালো করে মেশাতে হবে । অর্থাৎ অল্প একটু জল দিয়ে প্রথমে গ্রাইন্ডিং মেশিনে মিশিয়ে নিতে হবে। গ্রাইন্ডিং মেশিনে অল্প অল্প করে জল মিশিয়ে পুরো মিশ্রণটি মেশানোর পর দেখবেন হালকা ডালা ডালা ভাব চলে এসেছে।

তারপরে মেন মেশিনে 30 টি মৌল থাকে এই দৃষ্টি মোল্ড এর ভিতরে এই মিশ্রণটি দিয়ে কিছুক্ষণ চাপ দিয়ে রেখে দেয়ার পর 4-5 মিনিটের মধ্যে তৈরি হয়ে যাবে কাপ। অর্থাৎ প্রতি 5 মিনিটে আপনি 30টা করে কাপ তৈরি করতে পারবেন। কাপ তৈরি হয়ে গেলে সেই কাজগুলো বাফারিং মেশিনে সমান করে নিতে পারেন অথবা শিরিষ কাগজের একটু ঘষে তার মাথাটা একটু সমান করে নিয়ে ট্যাগ করে দোকানে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত করে ফেলুন।

ধানের তুষ দিয়ে থালা তৈরি হয় কিভাবে?

ধানের তুষ অথবা গমের তুষ বা বলা যেতে পারে ধানের খোসা ও গমের খোসা একসাথেই আপনি নিয়ে গ্রাইন্ডিং মেশিন এ দেয়ার পর 450ml জল প্রতি 1 কেজি মাল এর ওপরে অল্প অল্প করে মিশিয়ে মিশ্রণটি তৈরি করে ফেলুন।
তারপর ডাইস চেঞ্জ করে নিন। মেশিনের ডাইস প্লেটের হতে হবে
আপনার তৈরি হওয়া আগের ধানের খোসা বা চালের খোসার মিশ্রণটি দিয়ে দিন ডাইস এর ভেতরে। দিয়ে আপনি প্রেস করে দিলেই 4-5 মিনিটের মধ্যেই আপনার তৈরি হয়ে যাবে ধানের খোসা তৈরি থালা।

এই ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার দরকার হয়?

এই ব্যবসা করতে সাধারণত আপনার মেশিনগুলোর যা আয়তন তাতে আপনার 10/12 ফুটের একটা ঘর দরকার যেখানে আপনি এই মেশিনগুলো রেখে প্লেট তৈরি করবেন এর জন্যে খুব বেশী বড় ঘরের দরকার হবে না।

husk products

ব্যবসা করতে কি লাইসেন্স লাগে?

এখন যে কোন ব্যবসা করতে আপনাকে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে।
আর ট্রেড লাইসেন্স এখন পাওয়া যাচ্ছে অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন এপ্লাই করলেই। অথবা আপনি আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত, বিডিও এবং কর্পোরেশনে যোগাযোগ করলেই আপনি ট্রেড লাইসেন্স পেয়ে যাবেন।
এছাড়া আপনার যখন ব্যবসায় প্রতি মাসে তিন লক্ষ থেকে চার লক্ষ টাকা ইনকাম করবেন তখন আপনার একটা GST লাইসেন্স দরকার হবে।

ব্যবসায় ইন্সুরেন্স কি করতে হয়?

যেকোনো ব্যবসায়ীদের ব্যবসা করার আগেই ইন্সুরেন্স করে রাখা উচিত। কারণ কেউই বলতে পারে না তার ব্যবসায় কোন সময় লস হবে এবং যদি কোন কারণে ব্যবসা কোন বিরাট বড় ক্ষতির সম্মুখীন হয়। সেখানে ইন্সুরেন্স করা থাকলে সেই ক্ষতির হাত থেকে অন্তত কিছুটা রক্ষা পাওয়া যায়।
তাই প্রতিটা ব্যবসায়ীর উচিত ব্যবসার শুরুতেই তার ব্যবসার জন্য একটা ইন্সুরেন্স করে রাখার।

কাপ-প্লেট এর মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

আপনারা বুঝতেই পারছেন এখন w.h.o. এবং যে কোন রাজ্যের স্বাস্থ্য সংস্থা প্লাস্টিকের জিনিস বর্জনের দিকে বেশি করে গুরুত্ব দিচ্ছে। সেই জন্য অর্গানিক জিনিস সমস্ত ব্যবসায়ীরাই কিনতে চাইছেন এবং ক্রেতারাও অর্গানিক জিনিসের ওপর এই ঝুঁকছেন। তাই সমস্ত চায়ের স্টলে, বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট, হোটেলে আপনি যদি আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে যান তাহলে দেখবেন সবাই আপনার কাছ থেকে আপনার তৈরি এই ধানের খোসার কাপ প্লেট কিনে নিচ্ছে ,কারণ এইগুলো সম্পূর্ণ অর্গানিক এবং অর্গানিক পদ্ধতিতে তৈরি।
বাজারে এই মুহূর্তে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে অর্গানিক জিনিসপত্রের তাই আপনি যদি এই ব্যবসা শুরু করেন খুব সহজেই সমস্ত মার্কেটটা আপনি ধরে ফেলতে পারবেন।

অফলাইন মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়?

আপনাকে প্রথমে দোকানে দোকানে আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে গিয়ে তাদেরকে দেখাতে হবে এবং তাদের কাছে বিক্রি করতে হবে।
আপনাকে আপনার একটা ব্র্যান্ড তৈরি করতে হবে অর্থাৎ সুন্দর একটা নাম রাখতে হবে আপনার কোম্পানির এবং প্রোডাক্ট এর ব্যান্ডের।
তারপর আপনাকে সমস্ত দোকান এবং মার্কেট এর আশপাশে কিছু পোস্টার ছাপিয়ে পোস্টারিং করতে হবে যাতে সবাই চেনে এবং জানে আপনার প্রোডাক্টের সম্পর্কে।
এছাড়া আরো অনেক উপায় আছে অফলাইন মার্কেটিং করার।

অনলাইন মার্কেটিং কিভাবে করা হয়?

অনেক অনলাইন প্লাটফর্ম রয়েছে যেমন ভারতে আছে অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট ,ইন্ডিয়ামার্ট, মিসো ইত্যাদি। এই সমস্ত অনলাইন-কেনাবেচা প্ল্যাটফর্ম গুলিতে আপনাকে একটা করে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে এবং সেখানে আপনাকে আপনার প্রোডাক্ট গুলি সেল করতে হবে আপনার প্রোডাক্ট গুলি যত সুন্দর দেখতে হবে এবং তার প্যাকেজিং ও ডিজাইন যত ভালো হবে ততো পরিমাণে বেশি কাস্টমার আপনার কাছ থেকে অনলাইনে আপনার প্রোডাক্ট কিনে নেবে।
এর জন্য আপনাকে কোথাও যেতে হবে না, বাড়িতে আসবে এই সকল কোম্পানির ছেলেরা তারা আপনার কাছ থেকে প্রোডাক্ট নিয়ে চলে যাবে। অর্থাৎ বাড়িতে বসেই আপনি এই ব্যবসা করতে পারবেন অনলাইনে।

He4d8aa302da840139ff091f607ccff2ao

প্যাকেজিং কিভাবে করতে হয়?

যে কোন প্রোডাক্টটি যত বেশি সুন্দর দেখতে হয় বা যত সুন্দর প্যাকেজিং হয়,ততো মানুষের নজর কাড়ে আর মানুষ তত বেশি পরিমাণে সেই প্রোডাক্টগুলো কেনে । আপনার কোম্পানিতে যে সকল প্রোডাক্ট গুলো তৈরি হবে সেই সমস্ত প্রোডাক্ট গুলো সুন্দর করে প্লাস্টিক প্যাকেজিং করুন এবং প্লাস্টিকের কাগজের উপরে আপনার কোম্পানির নাম সহ ডিজাইন করা ছবি লাগিয়ে রাখুন, যাতে মানুষের খুব সহজেই নজর কাড়ে আপনার প্রোডাক্ট।

কাপ প্লেট তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?

চালের খোসা ও গমের খোসার কাপ প্লেট তৈরি হয়ে যাওয়ার পর ব্যবসায় আপনি লাভ করতে পারবেন প্রতিমাসে কম করে এক লক্ষ টাকা।। তারপর ব্যবসা ঠিকঠাক জমিয়ে নিতে পারলে আপনি প্রতিমাসে সেল যেমন আপনার বেড়ে যাবে তেমন আপনার লাভের টাকা 3 লক্ষ থেকে 4 লক্ষ টাকা প্রতি মাসে ইনকাম করতে পারবেন।

এই ব্যবসা করতে গেলে কি কি প্রবলেম হতে পারে?

এই ব্যবসা শুরুতে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে আপনাকে। কারণ আপনার যদি গ্রামে বাড়ি হয়ে থাকে তাহলে গ্রামের আশেপাশে মানুষ অর্গানিক জিনিসপত্রের উপর বেশি নজর রাখে না এবং তাদের কোন আকর্ষন থাকেনা।। তাই আপনাকে সমস্ত প্রোডাক্ট বিক্রি করতে হবে শহরাঞ্চলে। অর্থাৎ যেখানে উন্নত মানুষজন এবং উন্নত ব্যবস্থা রয়েছে সেখানে আপনাকে আপনার প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করতে হবে।
মানুষের কেন অনেক সীমিত সেইজন্য সমস্ত জায়গায় আপনার প্রোডাক্ট গুলি বিক্রি করতে পারবেন না। কিন্তু অনলাইনে আপনি এই প্রোডাক্ট খুব ভালোভাবে সেল করতে পারেন।

আরো অনেক অল্প টাকায় নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখতে পারেন

১টি অল্প টাকায় ব্যবসার আইডিয়া ,

পেন তৈরির ব্যবসা

6 thoughts on “সম্পূর্ণ নতুন ব্যবসার আইডিয়া !! | চালের খোসা ও গমের খোসা দিয়ে ব্যবসা করুন লাভ 3 লাখ টাকা প্রতি মাসে RIGHT NOW”

Leave a Comment