চা দোকানের ব্যবসা শুরু করুন আধুনিক পদ্ধতিতে | Start a tea shop business for 2 thousand rupees , Right Now

চা খাই নি এইরকম মানুষ পাওয়া সারা পৃথিবীতে খুব কম পাওয়া যাবে। তাই চা দোকানের ব্যবসা শুরু করতে পারেন আপনি অনেক নিত্য নতুন পদ্ধতিতে। আবার চা শব্দ টা শুধুমাত্র একটা শব্দ হলেও এর অর্থ এবং গুরুত্ব সারা পৃথিবীতে অপরিসীম। ছোট গ্রাম হোক কিংবা বড় শহর প্রত্যেকটা অলিতে-গলিতে বর্তমানে চায়ের দোকান আপনি অবশ্যই পাবেন। এবং যদি আপনি খোঁজ নেন প্রতিটি ব্যবসায়ীকে তাহলে দেখতে পাবেন প্রতিটা ব্যবসায়ীর চা দোকানের ব্যবসা করে খুবই ভালো করে সংসার চালাতে পারছেন। কিছু কিছু চা দোকান ব্যবসায়ী প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকা আয় করতে পারেন এই চায়ের ব্যবসা করে।

বর্তমানে ট্রেন-বাস, পার্ক, সিনেমা হল সমস্ত জায়গাতেই চায়ের অবাধ বিচরণ রয়েছে যা ব্যবসায়ীদের অবাধ বিচরণ রয়েছে। চা দোকানের ব্যবসা করলে আপনাকে চায়ের বিভিন্ন প্রকারভেদ দোকানে রাখতে হবে। কারণ কেউ দুধ চা খেতে পছন্দ করেন, আবার কেউ লিকার চা পছন্দ করেন, কেউ গ্রিন টি পছন্দ করেন, তো কেউ চিনি ছাড়া চা পছন্দ করেন, এই রকম মানুষ ভেদে চা এরও কয়েকশো ভ্যারাইটিজ লক্ষ্য করা যায়। এলাকা অনুযায়ী চাহিদা অনুযায়ী একজন চা বিক্রেতা তার চায়ের দোকানে কত ধরনের চা তৈরি করতে পারেন তা প্রত্যেকটা বিক্রেতাই ভালোভাবে জানেন।আপনিও যখন চা দোকানের ব্যবসা শুরু করবেন তখন আপনিও সমস্ত জিনিসটা বুঝতে পারবেন ধীরে ধীরে।

Tea shop business
চা দোকানের ব্যবসা

Table of Contents

নতুন পদ্ধতিতে চায়ের ব্যবসা কিভাবে করতে হবে?

যেহেতু যা শরীরের উপকারী করে, কোনো ক্ষতির কারণ হয় না। তাই জন্য চা মহিলা-পুরুষ যে কেউ বেশি বেশি করে পছন্দ করেন, এবং বর্তমানে এরকম অনেক মানুষ রয়েছেন যারা চা প্রেমিক এবং তাদের নেশা বলতে শুধু চা খাওয়ায়। আবার অনেক মানুষ জন রয়েছে যারা সারাদিন কাজের চাপে কিছু খাওয়ার সময় পায়না, কিন্তু শুধুমাত্র চা খেয়েই তারা সারাটা দিন কাটিয়ে দিতে পারেন। তাই জন্য বর্তমানে অলিতে-গলিতে চা দোকানের ব্যবসা এত বেশি বেশি করে তৈরি হয়ে উঠছে। আপনিও চোখ বন্ধ করে সংসার চালানোর জন্য এবং একটু বেশি অর্থ উপার্জন করার জন্য, চা দোকানের ব্যবসা শুরু করতে পারেন নিঃসন্দেহে।

যেহেতু চা দোকানের ব্যবসা করার জন্য বেশি বেশি খরচ করতে হয় না এবং বেশি সরঞ্জাম প্রয়োজন পড়ে না, তাই এই ব্যবসা ভারত কিংবা বাংলাদেশের যেকোনো জায়গায় যে কোনো মানুষই করতে পারেন। আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন বর্তমানে কিছু চা দোকানের ব্যবসায়ী ছোট করে তাদের ব্যবসা শুরু করলেও তারা বর্তমানে কোটি কোটি টাকা ইনকাম করছেন শুধুমাত্র চায়ের ব্যবসা করে। আপনিও পারবেন একটা ছোট্ট চায়ের দোকান করে প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে, এর জন্য শুধুমাত্র বেশকিছু বিজনেস স্ট্যাটেজি এবং আধুনিক পদ্ধতিতে ব্যবসা করা জানতে হবে।

তোমাকে প্রথমে যে কোন একটা এলাকাতে যেতে হবে এবং সেখানে চায়ের দোকানগুলোতে দেখতে হবে যে সেই দোকানদাররা কত দামে বিক্রি করছে এবং কি পদ্ধতিতে ব্যবসা করছে। এরপর আপনাকে চেষ্টা করতে হবে সেই দোকানের ব্যবসায়ীর থেকে বা বাকি সকল চা দোকানের ব্যবসায়ীদের থেকে আধুনিক পদ্ধতিতে ব্যবসা করতে। চলুন দেখে নেওয়া যাক চা দোকানের ব্যবসা আপনি কি কি পদ্ধতি অবলম্বন মেনে করলে আপনার ব্যবসা দ্রুততার সাথে বৃদ্ধি পাবে।

চা দোকানের ব্যবসা করতে কি কি সামগ্রী লাগবে?

চা দোকানের ব্যবসা করার জন্য আপনাকে অবশ্যই চা বানানোর সকল প্রকার সামগ্রী এবং চায়ের সঙ্গে হালকা কিছু খাবারের ব্যবস্থা আপনাকে রাখতে হবে। চা করার জন্য আপনি যেসব জিনিস গুলো অবশ্যই রাখবেন সেগুলি হল-

  • বড় স্টিলের পাত্র
  • কেটলি
  • থার্মোফ্লাক্স
  • একাধিক ডিজাইনের কাপ
  • বিভিন্ন ধরনের চায়ের পাতা
  • বিস্কুট, নিমকি জাতীয় খাবার

এছাড়াও চায়ের দোকান করার জন্য প্রয়োজনীয় টেবিল থেকে শুরু করে বসার চেয়ার সব কিছুর ব্যবস্থা আপনার দোকানে করতে হবে।

চায়ের দোকান কোথায় করবেন?

চা দোকানের ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে এমন একটি জায়গা নির্বাচন করতে হবে যেখানে বেশি পরিমাণে কাস্টমার আপনার দোকান থেকে চা খেতে পারবে। আপনি চাইলে স্কুল কলেজের পাশে, খেলার মাঠের পাশে, বড় কোন জনবহুল মার্কেটে, কিংবা দর্শনীয় কোন স্থানের পাশে চায়ের দোকান করতে পারেন। আপনাকে খেয়াল করতে হবে যে আপনার আশেপাশে যদি কোন চায়ের দোকান আগে থেকেই থাকে তাহলে আপনাকে এমন ভাবে ব্যবসা করতে হবে যাতে সমস্ত কাস্টমার আপনার দোকানে আসে।

তবে বর্তমানে সবজায়গাতেই চায়ের দোকান ভালোই চলে। তবে যেখানে অফিশিয়াল কাজকর্ম হয় যেখানে অনেক মানুষের আসা-যাওয়া থাকে এইরকম কোন জায়গাতে আপনি যদি চা দোকানের ব্যবসা শুরু করেন তাহলে লাভের পরিমাণ টা একটু বেশি পরিমাণে হতে পারে। একজন বেকার মানুষের কাছে খুব অল্প পরিশ্রম করে চা দোকানের ব্যবসা অল্প পুঁজিতে শুরু করতে পারা যায়।
অনেক সময় এরকম হয় কোন অফিস বা কোন জায়গাতে কাস্টমাররা ব্যস্ততার কারণে চা খেতে আসতে পারে না তার জন্য আপনাকে হয়তো চা ডেলিভারি দিয়ে আসার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

অবশ্যই পড়ুন- চায়ের কোনের ব্যবসা

চা স্টল ব্যবসাতে কর্মচারী নিয়োগ

চা স্টল ব্যবসাতে আপনাকে কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে। কারণ আপনার একার পক্ষে সমগ্র ব্যবসাটা বড় করে তৈরি করাটা অসম্ভব হয়ে পড়বে। তাই এমন কর্মচারী আপনাকে নিয়োগ পড়তে হবে যে চা বানাতে পারবে এবং কাস্টমারকে চা খাইয়ে খুশি করতে পারবে। আবার কোন চা ডেলিভারির ক্ষেত্রে ও কর্মচারীর প্রয়োজন পড়বে। আপনাকে এমন কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে যেন সে অলসতার কোন সুযোগ না পায়, কারণ যেকোন ব্যবসাতে অলসতার কোন জায়গা নেই । আপনাকে চেষ্টা করতে হবে সপ্তাহের সাতদিনই চা দোকান খুলে রাখতে। কারণ যদি কোন কাস্টমার হঠাৎ দেখে আপনার দোকান বন্ধ এবং এর জন্য সে অন্য দোকানে চা খাওয়া শুরু করে এতে করে আপনার কাস্টমার কমে যাবে দিনে দিনে। তাই আপনাকে সপ্তাহের সাত দিনের প্রত্যেকদিনই চা দোকান খুলে রেখে দিতে হবে।

Tea stall business
চা স্টল ব্যবসা

চা ও কফি শপের ব্যবসা তে কিভাবে পরিবেশন করতে হয়?

আপনি চাইলে চা দোকানের ব্যবসার সাথে সাথে চা ও কফি শপের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এতে করে অনেক কাস্টমার আপনার বেড়ে যাবে, কারণ চা অনেকেই খাইনা, অনেকে কফি খেতে পছন্দ করে। তাই সেই সব কাস্টমারকে ধরে রাখার জন্য চা এর পাশাপাশি কফির ব্যবস্থা যদি আপনার দোকানে থাকে তাহলে আপনার দোকানের বিক্রি বহুগুণ বেড়ে যেতে পারে। চা কিংবা কফি পরিবেশন করার জন্য আপনি স্পেশালি মাটির ভাঁড় এর ব্যবস্থা করতে পারেন। এছাড়াও মাটির ভাঁড় এর সাথে সাথে কাগজের কাপ কিংবা কুকিস কাপ ব্যবহার করতে পারেন। যত নিত্য নতুন ধরনের আইটেম আপনি আপনার দোকানে পরিবেশন করতে পারবেন তত বেশি পরিমাণে কাস্টমারের আনাগোনা আপনার দোকানে বেড়ে যাবে।

আরো পড়ুন- পেপার কাপ তৈরির ব্যবসা

চায়ের ব্যবসা কে কিভাবে একটা বড় ব্যান্ডে পরিণত করবেন?

চা দোকানের ব্যবসা প্রথমে আপনি ছোট করে শুরু করলেও আপনার মাথায় রাখতে হবে যে এই ব্যবসাটা কিভাবে আপনি বড় ব্র্যান্ডে পরিণত করবেন। বড় ব্র্যান্ডে পরিণত করলে আপনার বিক্রির পরিমাণ যেমন বহুগুণ বেড়ে যাবে তেমনি প্রতিমাসে আপনি লক্ষাধিক টাকা এক একটা দোকান থেকে ইনকাম করতে পারবেন। চায়ের ব্যবসা কে বরফ ব্র্যান্ডে পরিণত করতে হলে আপনাকে যে সকল জিনিস গুলো মাথায় রাখতে হবে সেগুলি হল-

চা দোকানের সঠিক নাম নির্ধারণ

চা দোকানের ব্যবসা করতে হলে এবং সেই ব্যবসাকে বড় ব্র্যান্ডে পরিণত করতে হলে আপনাকে অবশ্যই দোকানের এমন একটি নাম নির্বাচন করতে হবে যা প্রতিটা কাস্টমারের খুব সহজেই মনে থাকে। এবং এমন একটি নাম আপনাকে নির্বাচন করতে হবে যা প্রতিটা মানুষের ভালো লাগে। যেমন আমরা সবাই জানি স্টারবাকস, এমবিএ চাওয়ালা, চায়ের সুটটা বার প্রভৃতি চায়ের ব্র্যান্ড রেস্টুরেন্টের কথা। তাই আপনাকে ও আপনার ব্যবসা করতে হলে ভালো একটা নাম অবশ্যই ব্যবসা শুরুর পরে পরেই নির্বাচন করে রাখতে হবে।

চা স্টল ব্যবসার ফ্র্যাঞ্চাইজি

ব্যবসা বড় করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ফ্র্যাঞ্চাইজি ব্যবসা করতে হবে। চা স্টল ব্যবসা আপনি যখন প্রথম শুরু করবেন তখন একটা দোকান থেকে শুরু করলেও আপনাকে আপনার এলাকার বিভিন্ন জায়গাতে একটা একটা করে নতুন নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি তৈরি করতে হবে। আপনি যত বেশি পরিমাণে ফ্র্যাঞ্চাইজি তৈরি করতে পারবেন বা ফ্র্যাঞ্চাইজি বিক্রি করতে পারবেন তত বেশি পরিমাণে আপনার চা দোকানের ব্যবসা তে লাভ হতে পারে। ফ্র্যাঞ্চাইজি বিক্রি করতে হলে অবশ্যই আপনাকে আপনার দোকানের ব্যাপকভাবে বিজ্ঞাপন দিতে হবে।

ফ্রাঞ্চাইজি মধ্য আধুনিক বিভিন্ন ধরনের অফার চালু করতে পারেন যাতে নতুন নতুন মানুষ আপনার দোকানের ফ্র্যাঞ্চাইজি কিনে ব্যবসা করতে পারে। বর্তমানে চা দোকানের ফ্র্যাঞ্চাইজি ভারতে অনেক নতুন নতুন ব্যবসা শুরু করেছেন। আপনি নিজে চাইলে সেই সব কোম্পানির কাছ থেকে ফ্র্যাঞ্চাইজি নিয়ে আপনার এলাকাতে ব্যবসা করতে পারেন। আপনি যদি কোন চা দোকানের ফ্র্যাঞ্চাইজি নিতে চান তাহলে এখনি গুগলের চা দোকান ফ্রাঞ্চাইজি বলে সার্চ করুন দেখবেন একাধিক কোম্পানির ফ্র্যাঞ্চাইজি আপনার সামনে চলে আসবে।

অবশ্যই পড়ুন- বিস্কুট তৈরির ব্যবসা

চা ও কফি শপের ব্যবসায় বিজ্ঞাপন

চা ও কফি শপের ব্যবসা ব্যাপকভাবে বড় করতে হলে আপনাকে বিজ্ঞাপনের ওপরে অবশ্যই নির্ভর করতে হবে। আপনি যত বেশি বেশি করে বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন তত বেশি মানুষের কাছে আপনার ব্যবসা বা আপনার ব্র্যান্ডের নাম ছড়িয়ে পড়বে।

  • বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য আপনি ইউটিউব, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, গুগল এর সাহায্য নিতে পারেন।
  • আপনাকে চেষ্টা করতে হবে ইন্টারনেটে বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি এলাকাতেও যাতে বিজ্ঞাপন হয় আপনার দোকানের, তার জন্য বিভিন্ন এলাকায় এলাকায় আপনি পোস্টারিং করতে পারেন।
  • বড় বড় বাজারের মোড়ে মোড়ে বিজ্ঞাপন ফ্লেক্স লাগিয়ে প্রচার করতে পারেন।
  • এলাকায় এলাকায় মাইকিং করে আপনার দোকানের প্রচার বাড়াতে পারেন।
  • আপনি যখন নতুন কোন আউটফিট খুলবেন আপনার দোকানের তখন কোনো সেলিব্রেটিকে এনে ওপেনিং করাতে পারেন। সেলিব্রেটি আসলে নিউজ চ্যানেলে আপনার দোকানের বিজ্ঞাপন খুব ভালভাবে হয়ে যাবে।
Tea and coffee shop business
চা ও কফি শপের ব্যবসা

চা দোকানের ডেকোরেশন কেমন হবে?

চা দোকানের ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে দোকান ডেকোরেশন এর দিকে খেয়াল দিতে হবে। দোকান যত সুন্দর দেখতে হবে এবং যত আকর্ষণীয় হবে ততো বেশি পরিমাণে কাস্টমার আপনার দোকানে আসবে। তাই দোকানের সামনে আপনি সুন্দর কোন ছবি লাগিয়ে ফ্লেক্স বানাতে পারেন। দোকানটা সুন্দর করে সাজানোর জন্য আপনি ইন্টেরিয়র ডেকোরেটর দিয়ে ডিজাইন করতে পারেন। কাস্টমারের বসার জন্য সুন্দর সুন্দর চেয়ারের ব্যবস্থা করতে পারেন। দোকানে খেলা কিংবা খবর দেখার জন্য ভালো এলইডি টিভির ব্যবস্থা করতে পারেন। এছাড়াও আপনার দোকান সর্বদা পরিস্কার রাখতে হবে যাতে কাস্টমারের কোন কিছু দেখে আকর্ষণ না কমে যায়।

চা দোকানের ব্যবসা তে লাভ কত?

চা দোকানের ব্যবসা যেমন অল্প পুজিতে শুরু করা হয় তেমন এই ব্যবসাতে লাভের পরিমাণ হয় অনেক বেশি পরিমাণে। প্রতিদিন দোকান ভাড়া কর্মচারীর মাইনে এবং চা তৈরির কাঁচামাল কিনতে আপনার খরচ হতে পারে সর্বোচ্চ 1700 টাকা থেকে 2 হাজার টাকা। আপনি যদি প্রতিদিন কম করে 300 কাপ শুধুমাত্র চা বিক্রি করেন তাহলেই আপনার লাভ থাকছে 3 হাজার টাকার মতো। এছাড়াও আনুষাঙ্গিক প্রোডাক্ট গুলি বিক্রি করলে আপনার প্রতিদিনের লাভ থাকতে পারে 5 হাজার টাকারও বেশি। অর্থাৎ আপনি প্রতিমাসে কম করে 50 থেকে 70 হাজার টাকা লাভ করতে পারেন একটা চা দোকান ব্যবসা শুরু করেই।

দোকানের নাম যত বাড়বে তত বেশি পরিমাণে চায়ের সেলও বাড়বে। আর চা যত বেশি পরিমাণে বিক্রি করতে পারবেন তত বেশি পরিমাণে আপনি লাভ করতে পারবেন। দোকানের লাভের পরিমাণ বাড়াতে গেলে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের চা এর ব্যবস্থা আপনার দোকানে রাখতে হবে। 10 টাকার কাপ থেকে 100 টাকা চায়ের কাপ বর্তমানে ভারতের প্রতিটা বড় চায়ের দোকানে পাওয়া যায়। যেমন চায়ের কোয়ালিটি হবে সেই অনুযায়ী চায়ের দাম হবে আর সেই অনুযায়ী চায়ের লাভ হবে।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

প্রশ্ন: চা দোকানের ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

উত্তর: 10 থেকে 15 হাজার টাকা খরচ হয় চায়ের ব্যবসা শুরু করতে।

প্রশ্ন: ফ্লাক্সে চা বিক্রি করলে কি কি লাভ থাকে?

উত্তর: ফ্লাক্সে চা বিক্রি করতে চাইলে আপনি করতে পারেন। একবার চা তৈরি করে ফ্লাক্সে ভরে রেখে দিন, কাস্টমার আসলে কাস্টমারকে যাতে বেশিক্ষণ বসে থাকতে না হয় তার জন্য খুব তাড়াতাড়ি সেই ফ্লাক্স থেকে চা বের করে কাস্টমারকে পরিবেশন করুন।

প্রশ্ন: চায়ের দোকান করতে কত বড় জায়গা লাগে?

উত্তর: চায়ের দোকান করতে আপনার বেশি বড় জায়গার প্রয়োজন পড়ে না। তবে আপনি যদি কোন ব্র্যান্ড তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে 10/10 ফুটের একটা ঘর অবশ্যই ভাড়া নিতে হবে।

প্রশ্ন: চা কফির ব্যবসা অনলাইনে কি করা যায়?

উত্তর: আধুনিক পদ্ধতিতে অনলাইনে হোম ডেলিভারির ব্যবস্থা রাখতে পারেন চা কফির ব্যবসাতেও। এর জন্য ফুড ডেলিভারি সাইটে বিজনেস একাউন্ড আপনাকে খুলতে হবে।

প্রশ্ন: চায়ের ব্যবসাতে লাভ কত?

উত্তর: চায়ের ব্যবসাতে প্রতিমাসে লাভ হতে পারে 50 হাজার টাকা থেকে 1 লক্ষ টাকার বেশি

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

সম্পূর্ণ নতুন ব্যবসার আইডিয়া

দুধের ব্যবসা করে 50 হাজার টাকা আয়

Leave a Comment