চানাচুর তৈরির ব্যবসা করে মাসে 1 লাখ টাকা আয় করুন | Chanachur making business, right now

বর্তমানে চানাচুর তৈরির ব্যবসা করে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে বেশ কিছু ব্যবসায়ী। আমরা সবাই জানি আমাদের প্রতিটা পরিবারে প্রতিমাসে কি পরিমানে চানাচুর কেনা হয়। ভারত কিংবা বাংলাদেশ প্রতিটা মানুষই মুখরোচক চানাচুর দিয়ে বিভিন্ন খাবার খেতে পছন্দ করেন। তাই জন্য প্রতিটা পরিবারের ঘরে ঘরে চানাচুর অপরিসীম জায়গা দখল করে থাকে খাদ্য তালিকায়। আপনি যদি চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে চান এবং সঠিক পদ্ধতিতে প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে আপনার জন্য আজকের এই পোস্ট। সম্পুর্ন পোস্ট আপনি যদি মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলেই বুঝতে পারবেন কি পদ্ধতিতে ব্যবসা করলে প্রতি মাসে লাখ টাকা ইনকাম করা যায় এবং ব্যবসা করে সফল উদ্যোক্তা হওয়া যায়।

Table of Contents

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা অল্প পুঁজির ব্যবসার মধ্যে পরে। আসলে আপনি 20 হাজার টাকা বিনিয়োগ করে এই ব্যবসা করতে পারেন। ব্যবসার শুরুতেই আপনি আপনার বাড়ি থেকেই ব্যবসার কাজ করতে পারেন আবার প্রতিমাসে ভালো টাকা ইনকাম করতে পারেন। সাধারণত চানাচুর ব্যবসা ছোট করে শুরু করতে 20 হাজার টাকা লাগলেও আপনি এই ব্যবসা বড় করে করতে পারেন বেশকিছু পুঁজি খরচ করে। কারণ আপনি যখন বড় করে ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে বড় মেশিন এবং অনেক জন কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে।

তাই বড় করে চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে হলে আপনাকে কমপক্ষে 1 লক্ষ টাকা পুঁজি বিনিয়োগ করতে হবে। তবে ব্যবসা করার আগে আপনি ছোট করে ব্যবসা শুরু করুন দেখুন কেমন লাভ হচ্ছে আপনার ব্যবসায়, তারপরে আপনি বেশি পুঁজি খরচ করে ব্যবসা কে বড় করে তুলুন।

Chanachur making business
চানাচুর তৈরির ব্যবসা

চানাচুর তৈরি করতে কি কি কাঁচামাল লাগে?

সাধারণত ভালো মানের চানাচুর তৈরি করতে হলে আপনাকে বেশ কিছু কাঁচামাল হিসাবে চানাচুর তৈরির প্রোডাক্ট কিনতে হবে। তবে ভালো মানের চানাচুর তৈরি করতে পারলেই বাজারে আপনি আপনার তৈরি চানাচুর বিক্রি করতে পারবেন সহজ ভাবে। ভালো মানের চানাচুর তৈরি করতে হলে যেসকল কাঁচামাল লাগে সেগুলি হল-

  • ময়দা
  • বেসন
  • বাদাম
  • কাজুবাদাম
  • কিসমিস
  • লবণ
  • হিং
  • জিরা
  • মরিচ
  • খাবার সোডা
  • শুকনো লঙ্কা
  • জাইফল
  • আমজুর পাউডার
  • জিরা গুঁড়ো

অবশ্যই পড়ুন- ফেলে দেওয়া জামা কাপড় থেকে 1 লক্ষ টাকা আয়

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে কি কি কাঁচামাল কিনতে হবে?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করার জন্য আপনাকে চানাচুর তৈরি করার সকল কাঁচামাল যেমন কিনতে হবে, তেমন চানাচুর করার জন্য আরো বেশ কিছু জিনিসের প্রয়োজন পড়বে। অর্থাৎ চানাচুর ভাজার জন্য এবং প্যাকেজিং করার জন্য যে সকল জিনিস গুলির প্রয়োজন হয়। যেমন-

  • চানাচুর মেশিন
  • ডো মেকিং মেশিন
  • ভাজার কড়াই
  • কমার্শিয়াল গ্যাস/কয়লা
  • ইলেকট্রিক ওয়েট মেশিন
  • প্লাস্টিক প্যাকেট
  • সিলিং মেশিন

চানাচুর তৈরির কাঁচামাল কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে প্রয়োজনীয় সকল প্রকার কাঁচামাল কিনতে হবে সহজলভ্য দামে। আপনি সকল প্রকার কাঁচামাল কিনতে পারেন আপনার নিকটবর্তী যেকোনো বড় মুদিখানা দোকান অথবা বড় পাইকারি বাজার থেকে। যেমন আপনি যদি পশ্চিমবঙ্গে থেকে থাকেন তাহলে কলকাতার বড় বাজার থেকে আপনি সকল প্রকার কাঁচামাল খুবই অল্প মূল্যে কিনতে পারেন। তবে আপনি যদি ছোট করে ব্যবসা শুরু করেন সেক্ষেত্রে আপনার নিকটবর্তী বড় পাইকারি মুদিখানা দোকান থেকেই সকল প্রকার মাল কেনাটাই আপনার জন্য ভালো হবে।

কারণ বড় পাইকারি বাজার থেকে কিনতে গেলে আপনাকে অনেক বেশি পরিমাণে সকল প্রকার জিনিস কিনতে হবে।
আবার যারা বাংলাদেশে থাকেন তারা ঢাকার চকবাজার পাইকারি মার্কেট থেকে সকল প্রকার কাঁচামাল কিনতে পারেন অল্প মূল্যে। এছাড়াও আপনার নিকটবর্তী দোকান থেকে সকল প্রকার কাঁচামাল কিনতে পারেন পাইকারি দামে।

চানাচুর তৈরির মেশিনের দাম কত? (What is the price of Chanachur making machine?)

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই মেশিন কিনতে হবে। আগেকার দিনে যদিও চানাচুর শুধুমাত্র হাতেই তৈরি করা হতো তবে এখন কাজের সুবিধার্থে মেশিনে সকল প্রকার কাজ করা হয়ে থাকে। তাছাড়া আপনি যদি মেশিন কিনে চানাচুর তৈরি করেন তাতে অনেক বেশি পরিমাণে চানাচুর বানানো যায়। বেশি পরিমাণ চানাচুর বানানোর জন্য যে সকল ইলেকট্রিক মেশিন আপনি ব্যবহার করতে পারেন তাহলো-

  • চানাচুর তৈরীর মেশিন বা নামকিন মেশিন
  • ডো মেকিং মেশিন
  • প্যাকেট সিলিং মেশিন

এখানে প্রতিটা মেশিনের দাম ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে তার কোয়ালিটি অনুযায়ী ও কম্পানি অনুযায়ী।

চানাচুর তৈরির মেশিন15 হাজার থেকে30 হাজার টাকার মধ্য
প্যাকেট সিলিং মেশিন1-10 হাজার টাকার মধ্যে
ডো মেকিং মেশিন10-15 হাজার টাকার মধ্যে

ব্যবসার শুরুতেই আপনি শুধুমাত্র চানাচুর তৈরির মেশিন কিনে ব্যবসা করতে পারেন অর্থাৎ 15 হাজার টাকা খরচ করে মেশিন কিনে ব্যবসা করা যেতে পারে। তবে ব্যবসা বড় হয়ে গেলে ভালো কোয়ালিটির মেশিন সহ এই সকল মেশিন গুলি কিনতে হবে ব্যবসার কাজ দ্রুততার সাথে বেশি পরিমাণে করার জন্য।

Chanachur making machine
চানাচুর তৈরির মেশিন

চানাচুর তৈরির মেশিন কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

অল্প দামে চানাচুর তৈরির মেশিন কিনতে গেলে আপনাকে অবশ্যই মেশিন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে হবে। তাই ব্যবসা করার আগে আপনাকে দেখতে হবে আপনার এলাকার কাছাকাছির মধ্যে কোথায় মেশিন তৈরি করার কোম্পানি রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা এবং হাওড়া অঞ্চলে বেশকিছু মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি রয়েছে যারা চানাচুর তৈরির মেশিন তৈরি করে থাকে। তাই যারা পশ্চিমবঙ্গে থাকেন তারা এই সকল মেশিন নির্মাতা কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করে মেশিন কিনে ব্যবসা করতে পারে না। মনে রাখবেন চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে হলে কম দামে ভালো মেশিন আপনাকে কিনতে হবে। আপনাদের সুবিধার্থে বেশকিছু মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানির নাম ও ফোন নাম্বার দেওয়া হল-

  • AL Abbas International Goopta Mansion 30, Strand Road, B.B.D Bagh, Kolkata- 700001 Contact: +919831783788
  • Shankar Engineering Corporation 18, Rabindra Sarani, Terita Bazar, Poddar Court, Tiretta, Kolkata-700001 Contact:- +918001771047
  • Rising Industries Tanushree Apartment (Ground Floor) Jhowtala, Near Lokenath Mandir Dutta Para Lane, Kolkata-700157 contact- +919830260440

বাংলাদেশে জায়গা থাকেন তারা ঢাকাতে চকবাজার পাইকারি মার্কেট ও মেশিন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। বাংলাদেশের যে সকল কোম্পানির চানাচুর তৈরির মেশিন বানিয়ে থাকেন তাদের নাম ও ফোন নাম্বার নিচে দেওয়া হল। আপনারা চাইলে এই সকল কোম্পানির কাছ থেকে মেশিন অল্প দামে কিনতে পারেন এবং যেকোনো সমস্যায় কোম্পানি থেকে মেশিন সারাতেও পারেন। এছাড়াও বর্তমানের অনলাইনে যুগে আপনারা চাইলে ঘরে বসে ভারত থেকে মেশিন অর্ডার করতে পারেন ভারতীয় কোম্পানিগুলির কাছ থেকে। কলকাতার প্রতিটা কোম্পানি মেশিন পাঠায় বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। আবার ইন্ডিয়ামার্ট ও আলিবাবা ওয়েবসাইট থেকে সকল প্রকার মেশিন অল্প দামে কিনতে পারেন শুধুমাত্র অনলাইনে অর্ডারের মাধ্যমে।

আরো পড়ুন- আদা চাষের ব্যবসা করে 1 লক্ষ টাকা আয়

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা আপনি যদি ছোট করে শুরু করেন তাহলে আপনার কমপক্ষে 10/12 ফুটের একটা ঘরের প্রয়োজন পড়বে। কারণ চানাচুর ভাজা, প্যাকেজিং করা এবং স্টোরেজঃ করার জন্য ন্যূনতম জায়গার প্রয়োজন পড়ে। আর আপনি যদি চানাচুর তৈরির কারখানা শুরু করেন বড় আকারের তাহলে অবশ্যই আপনাকে 10/12 ফুটের তিনটে ঘর আপনার প্রয়োজন পড়বে বা একসাথে বড় কোন কারখানার প্রয়োজন পড়বে।

কিভাবে চানাচুর তৈরি করা হয়?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে হলে আপনাকে অবশ্যই চানাচুর বানানো শিখতে হবে। চানাচুর বানানো শেখার জন্য আপনি কোন চানাচুর কম্পানি তে কিছুদিন ট্রেনিং নিতে পারেন বা কাজ করে শিখতে পারেন। আপনি যদি কোথাও ট্রেনিং নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন সেক্ষেত্রে চানাচুরের কোয়ালিটি অনেক ভালো হতে পারে। কারন মানুষ অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়েই ভালো পরিমাণের জ্ঞান অর্জন করতে পারে। আবার আপনি চাইলে শুরুতেই অল্প প্রশিক্ষণ নিয়েই এই কাজ করতে পারেন। তাই চানাচুর বানানোর জন্য আপনাদের দরকারি কিছু তথ্য দেওয়া হল-

চানাচুর তৈরির প্রশিক্ষণ

  • চার ভাগ বেসন ও এক ভাগ ময়দা নিয়ে ভালো করে মেশান।
  • এর সাথে পরিমাণমতো বিট লবণ, হিং, খাবার সোডা, জিরা গুঁড়ো এবং পরিমাণমতো জল ও সাদা তেল মেশাতে হবে।
  • হাত দিয়ে যদি আপনার নামের সাথে পারেন তাহলে ডমিনেটিং মেশিনের সাহায্যে ভালো করে মেশাতে হবে।
  • মিশ্রণটি যখন শক্ত হয়ে যাবে তখন তা চানাচুর তৈরির মেশিনের মধ্যে দিতে হবে।
  • চানাচুর তৈরির মেশিনে বিভিন্ন আকৃতির ডাইস থাকলে যা বিভিন্ন রকমের চানাচুর তৈরি করার জন্য দেওয়া হয়ে থাকে।
  • তিলের কড়াইয়ে ভালো করে তেল গরম হয়ে গেলে চানাচুর তৈরির মেশিন চালিয়ে দিলে বিভিন্ন ডাইসের জন্য বিভিন্ন ডিজাইনের মুখরোচক তৈরি হতে থাকবে।
  • সমস্ত মুখরোচক ভালো করে তেলে ভেজে নিয়ে তুলে রাখতে হবে আলাদা করে।
  • সাথে বাদাম কিসমিস এবং কাজুবাদাম ভেজে নিতে হবে।
  • তারপরে সমস্ত ভাজা জিনিস গুলো একসাথে ভালো করে মিশিয়ে আপনার সিক্রেট মসলা মেশাতে হবে।
  • অর্থাৎ চানাচুর কে মুখরোচক বানানোর জন্য সিক্রেট মসলার দরকার পড়বে। প্রতিটা কোম্পানি তাদের চানাচুরের সুন্দর স্বাদের মসলা মিশিয়ে থাকে যার একটি ফর্মুলা আপনাকে নিচে দেওয়া হলো।
  • চানাচুর তৈরি হয়ে যাবার পর প্যাকেজিং এর জন্য প্লাস্টিক প্যাকেট পরিমাণমতো ভর্তি করতে হবে এবং বাজারে বিক্রি করার জন্য চানাচুর প্রস্তুত হয়ে যাবে।

চানাচুর তৈরির সিক্রেট ফর্মুলা

  • বিট লবন গুঁড়ো- 200 গ্রাম
  • মরিচ গুঁড়ো- 20 গ্রাম
  • কাঠ খোলায় ভাজা লঙ্গা গুঁড়ো- 80 গ্রাম
  • ভাজা জিরে গুঁড়ো- 100 গ্রাম
  • ভাজা ধনে গুঁড়ো- 75 গ্রাম
  • আমচুর পাউডার- 100 গ্রাম
  • জায় ফল- 2 টি
  • জোয়ান গুঁড়ো- 50 গ্রাম

চানাচুরের প্যাকেজিং কিভাবে করবেন?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে প্যাকেজিং এর ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। সাধারণত আপনার কোম্পানির নাম দেওয়া প্লাস্টিক প্যাকেট ছাপিয়ে নিতে হবে।
তারপর প্রতিটা প্যাকেটে পরিমাণ অনুযায়ী চানাচুর ভর্তি করে প্যাকেট সিলিং মেশিন এর সাহায্যে প্যাকেটগুলো সিল করে দিতে হবে। তারপর প্রতিটা প্যাকেট একটা কার্টুন এর ভেতরে 10টা কিংবা 15টা করে ভর্তি করে বাজারে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত করতে হবে।

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্সের প্রয়োজন?

চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে বেশ কয়েক রকমের লাইসেন্স নিতে হবে। যেমন আপনি যে অঞ্চলে ব্যবসা করবেন সেই এলাকার ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে। এছাড়াও আপনি যেহেতু খাবারের প্রোডাক্ট তৈরি করছেন তাই আপনাকে খাদ্য দপ্তর এর রেজিস্ট্রেশন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার বা FSSAI লাইসেন্স নিতে হবে। এছাড়াও আপনাকে যেসব লাইসেন্স নিতে হবে তা হল-

  • ট্রেড লাইসেন্স
  • FSSAI লাইসেন্স
  • GST নাম্বার
  • ট্রেডমার্ক রেজিস্ট্রেশন
  • MSME রেজিস্ট্রেশন
  • NOC পলিউশন লাইসেন্স
  • কমার্শিয়াল ইলেকট্রিক
  • কমার্শিয়াল গ্যাস

এই সকল প্রকার লাইসেন্স আপনি আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অফিস অথবা বিডিও অফিসে যোগাযোগ করে পেতে পারেন। আবার প্রতিটা লাইসেন্সের আলাদা আলাদা দপ্তরে গিয়েও আপনি পেতে পারেন। এছাড়া আপনি অনলাইনে প্রতিটা লাইসেন্সের জন্য আবেদন করে নির্দিষ্ট পরিমাণের টাকা প্রদান করে প্রতিটা লাইসেন্স নিতে পারেন।

অবশ্যই পড়ুন-  ব্যবসা শুরু করুন অল্প পুজিতে

চানাচুর ব্যবসায় মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

সাধারণত চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ভালোভাবে মার্কেটিং করতে হবে। আর বর্তমানে মার্কেটিং ভালোভাবে করার জন্য বিজ্ঞাপন খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই আপনাকে ভালোভাবে বিজ্ঞাপন দিতে হবে আপনার তৈরি চানাচুরের। আপনি যে পদ্ধতিতে চানাচুরের ভালোভাবে মার্কেটিং করতে পারবেন তা হল-

  • ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে পিজ্জা তৈরি করে প্রতিদিন নিত্যনতুন পোস্ট করুন আপনার তৈরি চানাচুরের এবং একটা কমিউনিটি কাস্টমার তৈরি করুন।
  • ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব, গুগোল এ বিজ্ঞাপন দিয়ে মার্কেটিং করতে পারেন।
  • ই-কমার্স ওয়েবসাইট যেমন অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট এবং আরো জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলিতে বিজনেস একাউন্ট খুলে আপনার তৈরি চানাচুর বিক্রি করতে পারেন।
  • আপনার এলাকায় প্রচারিত সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।
  • বিভিন্ন বড় বড় বাজার ও জনপ্রিয় মোড় গুলিতে ফ্লেক্স লাগিয়ে প্রচার করতে পারেন।
  • অটো,বাস এই ধরনের গাড়ির পেছনে বিজ্ঞাপন ফ্লেক্স লাগিয়ে কোম্পানির এডভার্টাইজমেন্ট করতে পারেন।
  • এছাড়াও আপনার এলাকার প্রতিটা বড় বড় দোকানে আপনি প্রচার করতে পারেন।

চানাচুর তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?

সাধারণত চানাচুর তৈরির ব্যবসা আপনি যদি আধুনিক পদ্ধতিতে এবং নিত্য নতুন পদ্ধতি অবলম্বন করে করতে পারেন তাহলে আপনার ব্যবসায় প্রচুর পরিমাণে লাভ রাখতে পারবেন। চানাচুর তৈরির মেশিন এ একদিনে 100 থেকে 150 কেজি চানাচুর তৈরি করা যায়। আপনি যদি প্রতিদিন এই 150 কেজি চানাচুর বাজারে বিক্রি করতে পারেন তাহলে আপনি প্রতিদিন 3000 টাকা লাভ করতে পারবেন সকল খরচ বাদ দিয়ে। এবং খুব সহজেই 150kg চানাচুর বাজারে বিক্রি করা যায় বর্তমান সময়ে। একজন চানাচুর তৈরির ব্যবসায়ী প্রতিমাসে 50 হাজার টাকা থেকে 1 লক্ষ টাকা কমপক্ষে ইনকাম করেন। আবার বড় চানাচুর কম্পানি গুলি প্রতি মাসে 3 লক্ষ টাকা থেকে 5 লক্ষ টাকা ইনকাম করে থাকে।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও F.A.Q

চানাচুর তৈরির ব্যবসা কত টাকায় শুরু করা যায়?

উত্তর: 20 হাজার টাকা থেকে 30 হাজার টাকা বিনিয়োগ করে চানাচুর ব্যবসা করা যায়।

চানাচুর মেশিনের দাম কত?

উত্তর: চানাচুর মেশিনের দাম 15-30 হাজার টাকার মধ্যে।

চানাচুর তৈরির কারখানা করতে কত বড় জায়গা লাগে?

উত্তর: চানাচুর তৈরির কারখানা করতে 500 বর্গমিটার জায়গার প্রয়োজন।

চানাচুর তৈরির ব্যবসা কোথায় করা যায়?

উত্তর: গ্রাম কিংবা শহর যেকোনো জায়গাতেই আপনি চানাচুর তৈরির ব্যবসা করতে পারেন। তবে অবশ্যই আপনার কারখানাটি রাস্তার ধারে হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। রাস্তার ধারে হলে মাল আমদানি এবং চানাচুর রপ্তানির ক্ষেত্রে আপনার অনেক সুবিধা হবে।

চানাচুর তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?

উত্তর: 50 হাজার টাকা থেকে 1 লক্ষ টাকা প্রতি মাসে কমপক্ষে আয় করতে পারেন।

চানাচুর ব্যবসা বাড়িতে কি সম্ভব?

উত্তর: চানাচুর ব্যবসা বাড়িতে করতে পারেন যদি আপনার বাড়িতে কমপক্ষে 10/10 ফুটের একটি ফাঁকা ঘর থাকে

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

গিফ্ট শপের ব্যবসা করুন 10 হাজার টাকায়

পেপার প্লেট বিজনেস আইডিয়া

Leave a Comment