ঘর রং করার ব্যবসা এখন 0 পুঁজি বিনিয়োগে | House Painting Business Right Now

আমরা সবাই জানি আমাদের প্রত্যেকের বাড়ি রং করার জন্য যে মিস্ত্রিদের নিয়ে আসা হয় তারা কোনো না কোনো কন্ট্রাক্টার আন্ডারে কাজ করে, আবার অনেক মিস্ত্রি নিজেই কন্ট্রাক্টর হয়ে বাড়ি রং করার কাজ করেন। তাই আপনি যদি একজন রং করার কন্টাকটার হতে চান এবং ঘর রং করার ব্যবসা করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনি এই ব্যবসা থেকে ভালো টাকা উপার্জন করতে পারবেন। বর্তমানে আপনি ঘর রং করার ব্যবসা করলে শুধুমাত্র সাধারণ মানুষের ঘর রং নয় বর্তমানে গড়ে ওঠা বড় বড় মাল্টি কমপ্লেক্স ও ফ্ল্যাট রঙের অনেক সুযোগ পাবেন। তাই কিভাবে আপনি একজন সফল রং করার কন্ট্রাক্টার হবেন এবং কি পদ্ধতিতে আপনি ঘর রং করার ব্যবসা করতে পারবেন তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

কিভাবে ঘর রং করার ব্যবসা শুরু করা যায়?

ঘর রং করার ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই এই ব্যবসা সম্পর্কে জানতে হবে বুঝতে হবে। সাধারণত ঘর রং করার ব্যবসা করতে আপনাকে রং করার কাজ শিখতে হবে অথবা এমন কিছু জন কর্মচারীকে আপনার ব্যবসায় নিযুক্ত করতে হবে যারা ঘর রং করার কাজ জানে। আপনাকে বুঝতে হবে ঘর রং করার ব্যবসা আপনি করলেও এখানে একা কাজ করা যায় না। এই ব্যবসায় কাজ করতে গেলে একাধিক কর্মচারী নিযুক্ত করতে হয়, তাদের মধ্য কিছু জন মিস্ত্রি এবং কিছু জন হেলপার হিসেবে থাকে।

ঘর রং করার ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে?

ঘর রং করার ব্যবসা সাধারণত আপনি খুব অল্প পুঁজি বিনিয়োগ করে অথবা একদম কোন পুঁজিবিনিয়োগ না করেই শুরু করতে পারেন তার জন্য আপনার একটু সাধারণ বুদ্ধির প্রয়োজন পড়বে। এই ব্যবসা করতে বেশ কয়েকটি জিনিস আপনাকে কিনতে হবে যা কেনার জন্য সাধারণত আপনার 10 হাজার টাকা থেকে 15 হাজার টাকার প্রয়োজন পড়বে। আবার আপনি কোন গ্রাহকের বাড়ি রং করার আগে তার কাছ থেকে অগ্রিম কিছু টাকা নিয়ে এই সকল প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কিনে নিতে পারেন। এইভাবে যদি আপনি গ্রাহকের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নিয়ে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কেনেন সে ক্ষেত্রে আপনাকে আলাদা করে কোন পুঁজিবি নিয়োগ করতে হচ্ছে না।

আবার কিছু কিছু কাজের ক্ষেত্রে আপনার আগে থেকেই প্রয়োজনীয় এই জিনিসগুলি দরকার পড়বে, তাই তার আগে আপনাকে এই প্রয়োজনীয় জিনিসগুলি কেনার জন্য টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। সাধারণত ঘর রং করার ব্যবসা ছোট করতে 10 থেকে 15 হাজার টাকা বিনিয়োগ করলেই সম্ভব। আবার আপনি যখন বড় কন্টাক্ট নেবেন বা এমন কোন বড় মাল্টিপ্লেক্স কমপ্লেক্সের রং করার অর্ডার পাবেন তখন আপনাকে একাধিক রং করার সামগ্রী কিনতে হবে। সেক্ষেত্রে আপনার ব্যবসার বিনিয়োগ হিসেবে 50 হাজার টাকার মত খরচ হতে পারে। তবে একবার কেনা জিনিসপত্রগুলি আপনি বারেবারে ব্যবহার করতে পারেন, তাই একবার টাকা বিনিয়োগেই আপনার কয়েক বছরের সম্পদ তৈরি হয়ে যাবে।

অবশ্যই পড়ুন- বুটিক ব্যবসা শুরু করুন অল্প পুঁজিতে

ঘর রং করার ব্যবসা করতে কি কি জিনিসের প্রয়োজন?

ঘর রং করার ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে রং করার প্রয়োজনীয় বেশ কিছু জিনিস কিনতে হবে। আর এইসব জিনিসগুলি হল-

  • একটা মই যার উচ্চতা কমপক্ষে ২০ ফুট হবে
  • রং করার বিভিন্ন সাইজের ব্রাশ
  • দেয়াল মসৃণ করার জন্য সিরিস কাগজ
  • দেওয়াল পরিষ্কারের জন্য তারের ব্রাশ
  • রং পরিষ্কার করার জন্য সুতির কাপড়
  • আলাদা করে পুট্টি ও প্যারিস করার জন্য স্ক্যাপার
  • রং করার পরে মেঝে পরিষ্কার করার জন্য নারকেল দড়ির ব্রাশ
  • কর্মচারীদের কাজের জন্য রাবারের হাত মোজা বা হ্যান্ড গ্লাভস
House painting business
ঘর রং করার ব্যবসা

বাজার পরিকল্পনা

ঘর রং করার ব্যবসা করতে গেলে আগে আপনাকে এই ব্যবসার বাজার কেমন চলছে আপনার এলাকায় তার জন্য একটু মার্কেট রিসার্চ করতে হবে। আপনি মার্কেট রিসার্চ করলে জানতে পারবেন এলাকার রংয়ের ব্যবসায়ী কারা রয়েছে, কোন রঙের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে রং কিনলে বেশি কমিশন পাওয়া যাবে এবং ঘর রং করার মার্কেট কেমন রয়েছে। আর আপনি ঘর রং করার ব্যবসা করার আগে একটি ব্যবসায়িক প্ল্যান তৈরি করে নিতে হবে। এই ব্যবসায়িক প্ল্যানে আপনাকে রাখতে হবে গ্রাহকের ছোট ঘর রং করার জন্য কেমন টাকা চার্জ করবেন, আবার বড় কোন বিল্ডিং রং করার জন্য আপনি কেমন টাকা চার্জ করবেন, আর রং করার কর্মচারীদের কত টাকা পারিশ্রমিক দেবেন ইত্যাদি জিনিসগুলি।

ঘর রং করার ব্যবসার ক্রেতা খুঁজুন

সাধারণত আপনি যখন ঘর রং করার ব্যবসা শুরু করবেন তখন আপনাকে জানতে হবে আপনার এলাকার কোন বাড়িগুলি রং করার প্রয়োজন রয়েছে। আবার কোথাও যখন নতুন বাড়ি তৈরি হবে তখন সেই বাড়ির মালিকের সাথে কথা বলে রং করার অর্ডার আপনি নিতে পারেন। বিভিন্ন ছোট বড় রংমিস্ত্রিদের একত্রিত করে তাদের কাছ থেকে জেনে নিয়ে আপনি বড় বড় অর্ডার ধরতে পারেন। সাধারণত ঘর রং করার ব্যবসার প্রধান ক্রেতা বা গ্রাহক হল গ্রাম ও শহরাঞ্চলের সাধারণ পরিবার এবং বড় বড় ফ্ল্যাট গুলি।

বাড়ি রং করার মিস্ত্রি খুঁজুন

ঘর রং করার ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে এমন কিছু মিস্ত্রি এবং কর্মচারী নিযুক্ত করতে হবে যারা খুব সহজেই দক্ষতার সাথে ঘর রং করা জানে। তাই এই ব্যবসা করার আগে আপনার এলাকার বিভিন্ন রংমিস্ত্রি এবং তাদের হেলপার হিসেবে একাধিক সাধারণ কর্মচারীকে আপনার ব্যবসার সাথে যুক্ত করতে হবে। আপনি যদি প্রতিটা রংমিস্ত্রি ও হেলপারদের প্রতি মাসের কাজের নিরিখে মাসিক পারিশ্রমিকের ব্যবস্থা করতে পারেন সে ক্ষেত্রে অনেক পরিমাণের কর্মচারী আপনি পেয়ে যাবেন। মনে রাখবেন ঘর রং করার ব্যবসা করার জন্য যে সকল মিস্ত্রিদের কাজে নিযুক্ত করতে হবে তারা যেন অবশ্যই দুঃখ এবং সুনিপুণ হয় তাদের কাজে।

আরো পড়ুন- চা দোকানের ব্যবসা শুরু করুন আধুনিক পদ্ধতিতে

বাড়ি রং করার ব্যবসাতে কি কি কাজ হয়ে থাকে?

আপনি যখন বাড়ির রং করার ব্যবসা শুরু করবেন তখন আপনাকে জানতে হবে একটি বাড়ি রং করার কি কি কাজ থাকতে পারে। সাধারণত একটি পরিবার যখন তাদের বাড়ি রং করার অর্ডার দেয় কোন কন্ট্রাক্টারকে তখন তারা বাড়ির দেয়ালের সাথে সাথে বাড়িতে থাকা প্রতিটি আসবাবপত্র এবং জানলা কপাটের গ্রিল রং করার কাজ দিয়ে থাকে। যে সকল কাজ আপনাকে করতে হবে তা হল-

  • বাড়ির ভেতরের রং করা
  • ঘরের বাইরের রং করা
  • বাড়ির জানালা ও দরজা সহ কাঠের আসবাবপত্র রং করা।
  • জানলা ও বাড়ির গ্রিলের রং করা
  • ওয়াল পেইন্টিং করা
  • দেয়াল স্টিকার লাগানোর কাজ করা
  • মেঝেতে রং করা

ঘর রং করার ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্সের প্রয়োজন?

আপনি যদি ছোট করে ঘর রং করার ব্যবসা শুরু করেন তাহলে আপনার আলাদা করে কোন লাইসেন্স নেওয়ার প্রয়োজন পড়বে না। আবার আপনি যদি গ্রামাঞ্চলের দিকে এই ব্যবসা করেন তাহলেও আপনার কোন লাইসেন্সের প্রয়োজন নেই। তবে শহরাঞ্চলের দিকে ঘর রং করার ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই ট্রেড লাইসেন্স এবং ঘর রং করার অনুমোদন পত্র সরকারের কাছ থেকে নিতে হবে। শহরাঞ্চলের ব্যবসা করতে এই কারণে আপনার লাইসেন্সের প্রয়োজন পড়বে কারণ শহরাঞ্চলের বড় বড় অর্ডার পাওয়া এবং সরকারি অর্ডারগুলি আপনার পেতে লাইসেন্সের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।

সাধারণত সরকারি কোনো প্রতিষ্ঠান এবং সরকারি আওতাভুক্ত কোন ঘর রং করার অর্ডার দেওয়ার আগে সরকার অবশ্যই চেক করে ট্রেড লাইসেন্স সহ সরকারি অনুমোদন পত্র। তাই আপনি যদি শহরাঞ্চলের দিকে ঘর রং করার ব্যবসা বড় আকারের করেন তাহলে আপনার এই সকল লাইসেন্স গুলি প্রয়োজন পড়বে। এছাড়া আপনার কাছে থাকতে হবে কারেন্ট ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার এবং কর্মচারীদের নিরাপত্তার অনুমোদন পত্র।

ঘর রং করার কন্ট্রাকটর কিভাবে হবেন?

ঘর রং করার ব্যবসা করার আগে আপনাকে হতে হবে একজন সফল কন্ট্রাকটর। আর ঘর রং করার কন্টাকটার হওয়ার জন্য আপনার মার্কেটিং স্ট্রাটেজি প্রয়োজন পড়বে। অর্থাৎ আপনার একটি মার্কেটিং চেন তৈরি করতে হবে। আরো ভালোভাবে বোঝার জন্য বলা যেতে পারে বিভিন্ন এলাকাতে বিভিন্ন মানুষজন ঘর রং করতে চায় তাদের অর্ডারগুলি পাওয়ার জন্য সেই সকল এলাকাতে একাধিক মানুষকে আপনার ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত করতে হবে। তাই এই ব্যবসা করতে গেলে এবং একজন সফল কন্টাকটার হতে গেলে বিভিন্ন এলাকার মানুষদের নিয়ে কাজ করতে হবে। আবার যখন নতুন কোন বিল্ডিং তৈরি হবে তখন সেখানে থাকা প্রোমোটারদের সাথে যোগাযোগ করে সেই সব অর্ডারগুলি নিতে হবে। সরকারি অর্ডার পাওয়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে এলাকার নেতা সহ সরকারি বড় বড় নেতা আমলাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করতে হবে।

House painting contractor
ঘর রং করার কন্ট্রাকটর

সরকারি রং করার কন্ট্রাক্ট কিভাবে পাবেন?

সরকারি রং করার কন্ট্রাক্ট মূলত সরকারি প্রজেক্ট ও প্রতিষ্ঠানগুলি রং করার কাজ কে বলা হয়ে থাকে। এই সরকারি প্রকল্পগুলির মধ্যে রাস্তা, ব্রিজ, সরকারি অফিস, স্কুল-কলেজ এবং সরকারি নিয়ন্ত্রিত আবাসন গুলি রং করার কাজ থাকে। সরকারি রং করার কন্ট্রাক্ট পাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার এলাকার ছোট নেতা থেকে সরকারি বড় বড় নেতা ও আমলাদের সাথে সর্বদা ভালো যোগাযোগ রাখতে হবে। বর্তমানে সরকারি বিভিন্ন কন্ট্রাক্ট পাওয়া একটু কঠিন ব্যাপার।

তাই আপনি যদি বিভিন্ন সরকারি দলের নেতা মন্ত্রীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন এবং তাদের আমলাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন তাহলেই আপনি খুব সহজেই এই সকল সরকারি কন্ট্রাক্ট পেয়ে যাবেন। এছাড়া সরকারি বিভিন্ন টেন্ডার পাশ হওয়ার আগে টেন্ডার অফিসে আপনাকে আবেদন করতে হবে এবং আপনি যদি টেন্ডার পান তবেই আপনি সরকারি রং করার সকল কাজের অনুমোদন পাবেন।

অবশ্যই পড়ুন- হ্যাচারি ব্যবসা করে 1লাখ টাকা ইনকাম

ঘর রং করার অর্ডার কোথায় থেকে পাবেন?

ঘর রং করার ব্যবসা করতে গেলে আপনার মাথায় সর্বপ্রথম এইটা অবশ্যই আসবে যে ঘর রং করার অর্ডারগুলি আপনি কোথা থেকে পাবেন। বর্তমানে যে সকল জায়গা থেকে বা যাদের মারফত আপনি অর্ডার পাবেন তারা হলো-

  • আপনার এলাকায় থাকা প্রতিটা রঙের দোকান থেকে আপনি নতুন বাড়ির রং করার অর্ডার পাবেন।
  • বিভিন্ন এলাকায় থাকা আপনার এজেন্টদের কাছ থেকে আপনি সেই সকল এলাকার ছোট বড় ঘরবাড়ি রং করার অর্ডার পাবেন।
  • আপনার ব্যবসায়িক এলাকার বা তারও বাইরের বিভিন্ন প্রোমোটারদের কাছ থেকে একাধিক বড় বড় বিল্ডিং রং করার অর্ডার পেতে পারেন।
  • বিল্ডার্স দোকানের সাথে যোগাযোগ রাখলে এই বিল্ডার্স দোকান নতুন নতুন বাড়ি রং করার অর্ডারও আপনার কে করিয়ে দিতে পারে।
  • রিয়েল এস্টেট এজেন্ট দের সাথে যোগাযোগ রেখে বিভিন্ন এলাকার পুরনো নতুন রিয়েল এস্টেট বাড়ির রং করার অর্ডার পেতে পারেন।

রং কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হন

আপনি যখন ঘর রং করার ব্যবসা শুরু করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে প্রতিটা রং কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে। যেকোনো বড় রং এর দোকানের সাথে যোগাযোগ করে প্রতিটা রং কোম্পানির অনুমোদিত রংয়ের কন্ট্রাক্টার হওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে এবং প্রতিটা রং কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হতে হবে। আপনি যদি রং কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ কন্ট্রাকটার হন তাহলে আপনি প্রতিটা রংয়ের ওপরে আলাদা ছাড় পাবেন। আবার সেই কোম্পানির রং বেশি ব্যবহার করার জন্য আপনাকে প্রতি মাসে অথবা বছরে ভালো টাকা রং কোম্পানি দেবে।

প্রতিটা গ্রাহকের সাথে চুক্তি করুন

আপনি যখন ঘর রং করার ব্যবসা করবেন তখন আপনি যে সকল গ্রাহকের বাড়ি অথবা ফ্ল্যাট রং করার কাজ করবেন তখন তাদের সাথে একটি চুক্তি তৈরি করুন। এই যুক্তিতে নির্দিষ্ট সময়ের আগে টাকা প্রদান সহ রং কেনা এবং প্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনার একটি নথি থাকবে। আপনি যদি প্রতিটা গ্রাহকের সাথে চুক্তি করে কাজ করেন তাহলে আপনারই ব্যবসার লাভ হবে। গ্রাহকের সাথে যে ধরনের চুক্তি আপনি করতে পারেন তা হল-

  • গ্রাহকের পুরো বাড়ি রং করার কন্ট্রাক্ট নেওয়া।
  • দৈনিক রং করার ভিত্তিতে টাকা নেওয়া।
  • রংয়ের কন্ট্রাক্ট নেওয়া অর্থাৎ গ্রাহক যেখান থেকে রং কিনতে চাই তার কন্টাক্ট নেওয়া।
  • রং করার প্রয়োজনীয় সামগ্রী গ্রাহকে আগে থেকেই কিনে দিতে হবে আর না কিনে দিলে তার জন্য আপনাকে আলাদা টাকা প্রদান করতে হবে।
  • নির্দিষ্ট সময়ের মতো গ্রাহককে টাকা দিতে হবে।
  • কাজ করার সময় টিফিন গ্রাহক দিতে পারে অথবা তার বদলে টাকা দিতে পারে।

ঘর রং করার ব্যবসায় লাভ কত?

ঘর রং করার ব্যবসায় লাভ থাকবে আপনার অনেক বেশি। আপনি যদি পুরো বাড়ি রং করার কন্ট্রাক্ট নেন তাহলে গ্রাহকের কাছ থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণের কিছু টাকা আপনি চার্জ করতে পারেন। আর দৈনিক হারে ঘর রং করার জন্য একজন মিস্ত্রি 500 টাকা এবং একজন হেলপারের মজুরি 350 টাকা করে নিলেও আপনি ভালো ইনকাম করতে পারেন। একজন ছোট রং করার কন্টাকটার প্রতিদিন 2 হাজার টাকা থেকে 4 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারেন। কারণ গ্রাহকের বাড়ি রং করলে সেখান থেকে টাকা পাওয়া যায় আবার রংয়ের কোম্পানির থেকেও এক ভালো অংকের কমিশন পাওয়া যায়।

বড় রং এর কন্টাকটার প্রতিদিন 5 হাজার টাকা থেকে 15 হাজার টাকার মত ইনকাম করেন। আপনি যদি ঘর রং করার ব্যবসা শুরু করেন তাহলে অবশ্যই আপনি প্রতি মাসে 30 থেকে 60 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। মনে রাখবেন এই লাভের পরিমাণটা নির্ভর করবে আপনি কি পদ্ধতিতে ব্যবসা করছেন এবং সারাদিনে কতজন গ্রাহকের বাড়ির রং করছেন তার উপরে। তাই ব্যবসা করার আগে ভালো করে মার্কেটিং করুন এবং একটি বড় মার্কেটিং চেন তৈরি করুন যাতে আপনার ইনকাম দ্রুততার সাথে বাড়তে পারে

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

খুব কম টাকা লাগিয়ে প্রতি মাসে 1 লাখ টাকা লাভ

ভেষজ আবির তৈরির ব্যবসা

1 thought on “ঘর রং করার ব্যবসা এখন 0 পুঁজি বিনিয়োগে | House Painting Business Right Now”

Leave a Comment