একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন এবং প্রতিমাসে হাজার হাজার টাকা কামান, RIGHT NOW

একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন, হ্যাঁ হিট প্রেস মেসিন কিনে একই সাথে পাঁচ রকমের ব্যবসা করতে পারবেন রমরমিয়ে। এবং প্রতিটি ব্যবসা বর্তমান সময়ে প্রচুর চাহিদা রয়েছে বাজারে। মনের ভিতর অনেক প্রশ্ন ঘোরাঘুরি করছে এমনকি পাঁচটি ব্যবসা একটা মেশিন থেকেই করা যায় চলুন দেখা যাক সেই পাঁচটি ব্যবসা যা আপনি কীভাবে করবেন তার বিস্তারিত বিবরণ নিচে রইল।

Table of Contents

হিট প্রেস মেশিন দিয়ে কি কি ব্যবসা করা যায়?

এই একটি হিট প্রেস মেশিন কিনে আপনি টি-শার্ট পেন্টিং, কফি মগ প্রিন্টিং ডিজাইন, থালা-বাটি পেন্টিং, বার্থডে গিফট বা ভালোবাসার গিফট, চাবির রিং এই রকম আরো অনেক ধরনের ব্যবসা যা আপনি করতে পারেন এই একটি মেশিন কিনে।

একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন
একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন

এই সকল ব্যবসা করতে কি কি কাঁচামাল লাগে?

টি-শার্ট, সাবলিমেশন পেপার, কফি মগ, থালা, চাবির রিং, বিভিন্ন ফাঁকা বার্থডে গিফট।

এই সকল কাঁচামাল কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

আপনার নিকটবর্তী বড় যেকোনো হোলসেল মার্কেট এবং হয়তো আপনার বাড়ির কাছেই মার্কেট থেকে আপনি এই সমস্ত ধরনের কাঁচামাল কিনতে পারেন।
টি-শার্ট কিনতে হলে হোলসেল মার্কেট মঙ্গলা হাট থেকে আপনি কিনতে পারেন খুবই সস্তা দামে টি-শার্ট।
কফি মগ কিনতে হলে বড়বাজার থেকে খুবই কম দামে সাদা কফি মগ কিনতে পারেন।
চাবির রিং অথবা বিভিন্ন থাকা বার্থডে গিফট কিনতে পারেন খুবই কম দামে বড়বাজার হোলসেল মার্কেট থেকে।

একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন | ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন হয়?

যেহেতু এই সকল ব্যবসা গুলি খুবই ছোট ছোট ব্যবসা তাই এই ব্যবসা গুলি করার জন্য আপনার ঘরের সাইজে 10/12 ফুটের এক কামরার ঘর অথবা আরো ছোট জায়গা হলেও আপনি এই ব্যবসা গুলি স্বাচ্ছন্দে পড়তে পারেন । একটি বাজারে যদি কোন একটি দোকান আপনি ভাড়া নেন সেই ভাড়া নেওয়ার দোকানে মেশিন বসিয়ে আপনি রমরমিয়ে এই সব ধরনের ব্যবসা একসাথে করতে পারেন।

টি শার্ট প্রিন্টিং ব্যবসা

বাজার থেকে 40 50 টাকা দামের টি-শার্ট অথবা গেঞ্জি কিনে আপনি সেই টি-শার্টের ওপর কাস্টমারের মনের মত কোন ডিজাইন অথবা কাস্টমারের ছবি লাগিয়ে এই ব্যবসা করতে পারেন।
প্রথমে যে ডিজাইন টি-শার্ট প্রিন্টিং করবেন সেই ডিজাইনটি কম্পিউটারে তৈরি করে নিয়ে প্রিন্টার মেশিন দিয়ে সাবলিমেশন পেপার এ ছেপে নিন। তারপর হিট প্রেস মেশিন কে 200 ডিগ্রী টেম্পারেচারে ইলেকট্রিক এর দ্বারা গরম করে নিন। এরপর টি-শার্টটি হিট প্রেস মেশিনের তলায় দিয়ে সাবলিমেশন পেপার টা টি-শার্ট এর উপরের সুন্দরভাবে সমান করে রেখে চাপ দিয়ে 30 সেকেন্ডের জন্য হিট প্রেস মেশিন কে রাখলেই টি শার্টের ওপর তৈরি ডিজাইন টি ছেপে যাবে এবং টি-শার্ট টি বাজারে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে।

টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত দেখুন এখানে- টি-শার্ট প্রিন্টিং ব্যবসা

টি শার্ট প্রিন্টিং ব্যবসা
টি শার্ট প্রিন্টিং ব্যবসা

কফি মগ প্রিন্টিং ব্যবসা

এখন সবাই বার্থডে গিফট হিসেবে অথবা ভালোবাসার মানুষকে গিফট করার জন্য তাদের ছবি লাগিয়ে বা তাদের জন্য কিছু কোডস তৈরি করে সেটি কফি মুখে ছেপে তাদের গিফট করছে।
তাই কফি মগ প্রিন্টিং ব্যবসা আপনি যদি চালু করেন আপনার দোকানে দেখবেন কত বেশি পরিমাণে কফি মগ আপনি তৈরি করতে পারছেন এবং তা বাজারে বিক্রি করতে পারছেন কাস্টমারের মনের মত তৈরী করে।
প্রথমে সাবলিমেশন পেপারের ওপর যে ছবিটি অথবা যে ডিজাইনটি কাস্টমার চাইছে সেই ডিজাইন প্রিন্টিং মেশিনের দ্বারা চেপে নিন ।

এরপর হিট প্রেস মেশিন এর কফি মগ লাগানোর জন্য যে দৃষ্টি রয়েছে সেটি লাগিয়ে নিয়ে কফি মগ এর লাগানোর জন্য যে সাবলিমেশন পেপার টি আপনি রেডি করেছেন সেটি দিয়ে কফির মগটা তার ওপরে সুন্দর করে বসিয়ে হিট প্রেস মেশিন 30 সেকেন্ডের জন্য চালিয়ে দিলেই কফি মগ এর গায়ে সুন্দর করে ছেপে তৈরি হয়ে যাবে কাস্টমারের মনের মত ডিজাইন।
এবং প্রতিটি কফি মগ যা আপনার বাজার থেকে কিনতে দাম পড়বে 30 থেকে 40 টাকা তা আপনি কাস্টমারকে বিক্রি করতে পারেন খুব সহজেই 100 টাকা দামে।

প্লেট প্রিন্টিং ব্যবসা

বাজার থেকে কুড়ি তিরিশ টাকা দামের প্লাস্টিকের অথবা চিনামাটির প্লেট কিনে নিয়ে কাস্টমারের মনের মত ডিজাইনটি আপনি সাবলিমেশন পেপার এ প্রিন্টার মেশিন দ্বারা ছেপে নিন । তারপর সেই ছাপা সাব্লিমেশন পেপারটি হিট প্রেস মেশিনের সাহায্যে প্লেটের যে ডাইস রয়েছে সেই ডাই সেট করে নিচে সাবলিমেশন পেপার টি রেখে তার ওপর প্লেট দিয়ে 30 সেকেন্ডের জন্য চাপ দিলেই তৈরি হয়ে যাবে ডিজাইন করা প্লেট।

বার্থডে গিফট তৈরির ব্যবসা

বার্থডে গিফট যেমন ঘড়ি, রিং , লাভ আরো যত রকমের গিফ্ট হয়ে থাকে সমস্ত রকমের গিফট আপনি বাজার থেকে খুব অল্প দামে কিনে নিতে পারেন। তারপর সেইসব গিফট কিনে সাপ্লিকেশন পেপারে কাস্টমারের মনের মত ডিজাইন টি ছেপে নিয়ে হিট প্রেস মেশিনের তলার ডাইস চেঞ্জ করে 30 সেকেন্ডের জন্য চাপ দিলেই তৈরি হয়ে যাবে কাস্টমারের মনের মত তৈরি ডিজাইন গিফটের উপর।

একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন
একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা করুন

চাবির রিং তৈরির ব্যবসা

চাবির রিং এর মত অনেক ঋণ আপনি বাজার থেকে কিনতে পারেন মাত্র 1-2 টাকা দামে যা আপনি বাজারে বিক্রি করতে পারবেন 10 টাকা দামের অথবা 40-50 টাকা দামের মধ্যে।
ডিজাইন এবং কোয়ালিটির উপর নির্ভর করবে সমস্ত দামটা।
চাবি রিং এর ভেতরে অনেক সময় কাস্টমাররা চায় তাদের ছবি অথবা বিয়ের খাবারের মেনু এই সমস্ত জিনিস গুলো থাকতে। তাই তাদের মনের মত ডিজাইনগুলি আপনি প্রথমে সাবমিশন পেপারে প্রিন্টার মেশিন দ্বারা চেপে নিন। তারপর সেই চেপে সাবলিমেশন পেপার টি হিট প্রেস মেশিনের তলায় রেখে চাবির রিং এর প্লাস্টিক টা দিয়ে 30 সেকেন্ডের জন্য চাপ দিলেই আপনার চাবির রিং তৈরি হয়ে যাবে। সেই ডিজাইন টি এবং কাস্টমারকে বিক্রি করার জন্য সেটা প্রস্তুত হয়ে যাবে।

হিট প্রেস মেশিনের দাম কত? হিট প্রেস মেশিন কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

হিট প্রেস মেশিন কলকাতায় 10 হাজার থেকে 12 হাজার টাকার মধ্যে কিনতে পাওয়া যায়। অনলাইনেও এই মেশিন এইরকমই দামে কিনতে পাওয়া যায়।
বাংলাদেশি যে সকল বন্ধুরা থাকেন তারাও আপনাদের নিকটবর্তী মার্কেট থেকে এই মেশিন কিনতে পারেন অথবা অনলাইন থেকে এই মেশিন কিনতে পারেন।

হিট প্রেস মেশিন
হিট প্রেস মেশিন

এই বিজনেস করতে গেলে কি কি লাইসেন্স দরকার?

যে কোন ব্যবসা করতে হলে ব্যবসার শুরুতে যদিও কোনো লাইসেন্স দরকার হয়না কিন্তু পরবর্তীকালে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় তাই ব্যবসার শুরুতেই আপনি ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে রাখবেন। এই ট্রেড লাইসেন্স আপনার নিকটবর্তী পঞ্চায়েত অথবা কর্পোরেশন কিংবা বিডিও অফিস থেকে আপনি পেয়ে যাবেন।
বর্তমানে অনলাইনে এপ্লাই করেও ট্রেড লাইসেন্স পাওয়া যায়।
যখন ব্যবসায়ী আপনার দু’লক্ষ থেকে তিন লক্ষ টাকা ইনকাম হবে প্রতি মাসে তখন আপনাকে একটি জিএসটি লাইসেন্স নিয়ে নিতে হবে।

মার্কেটিং কিভাবে করবেন?

মার্কেটিং হয় দুই ধরনের একটি অনলাইন মার্কেটিং আরেকটি অনলাইন মার্কেটিং। দুই প্রকার মার্কেটিং এর মধ্য দিয়েই এই সকল ব্যবসার উন্নতি ঘটে।

অনলাইন মার্কেটিং-

অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক প্রভৃতি সোশ্যাল মিডিয়া এবং ই-কমার্স সাইটে একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে । সে একাউন্ট এর মধ্যে আপনার কোম্পানিতে তৈরি সমস্ত প্রোডাক্ট এর ছবি সহ বিস্তারিত বিবরণ যদি আপনি রেগুলার পোস্ট করতে থাকেন তাহলে এই অনলাইন সাইট গুলি থেকে আপনার অনেক কাস্টোমার চলে আসবে। আর বর্তমানে অনলাইন ব্যবসা দেই বেশি লাভবান হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

অফলাইন মার্কেটিং-

অনলাইন মারকেটিং মানে বিভিন্ন দোকানে এবং যে সকল কাস্টমাররা সরাসরি আপনার কাছ থেকে প্রোডাক্ট গুলি কিনবেন তাদের মধ্যে ব্যবসা করা। এর জন্য আপনাকে অনলাইন মার্কেটিং এর একটি বড় সাহায্য লাগবে। এছাড়া বিভিন্ন দোকানে এবং হোলসেলার দের সাথে যদি আপনি কন্টাক্ট রাখেন তাহলে তারা আপনার কাছ থেকে সমস্ত প্রোডাক্ট কিনে নেবে।

কফি মগ প্রিন্টিং ব্যবসায় কত টাকা লাভ?

এই ব্যবসায় আপনার লাভ হবে অনেক বেশি। কারণ মাত্র 30 টাকা খরচ হয় আপনার সমস্ত প্রোডাক্ট তৈরি করতে আর সেটি আপনি মার্কেটে বিক্রি করতে পারেন 100 টাকার উপর দাম রেখে। তাই প্রতিমাসে আপনি কম করে 50 হাজার থেকে 70 হাজারের উপর ইনকাম করতে পারেন এই ব্যবসা থেকে।

এই পাঁচ প্রকার ব্যবসা করতে কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়?

বর্তমানে কম্পিটিশন মার্কেট তাই সমস্ত ব্যবসায় যদি আমরা ঠিকভাবে করতে না পারি তাহলে অনেক সমস্যা আসতে পারে আমাদের ব্যবসাতে।
তাই আপনাকে মনে রাখতে হবে এ ব্যবসাতে দাম এবং কোয়ালিটি মেইনটেইন এর উপর। তাই ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে মার্কেটিং টাও খুব ভালো বুঝতে হবে । এবং মার্কেটিং টা খুব সুন্দর করে করতে হবে যত বেশি পরিমাণে ভালো মার্কেটিং করতে পারবেন তত বেশি পরিমাণে লাভবান হবেন।

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

মশলা তৈরির ব্যবসা / পেপার প্লেট বিজনেস