আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা অল্প টাকায় শুরু করুন | 1 Succeed in the ice cream business

সারাবছরই আইসক্রিম খাওয়ার দিবানা মানুষের জন্য আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা রমরমিয়ে চলছে। শুধু গ্রীষ্মকালে আইসক্রিম খাওয়ার প্রচলন থাকলেও বর্তমানে কিছু আইসক্রিম পার্লার সারাবছর আইসক্রিম তৈরি করে ক্রেতাদের মন জয় করেছে। আপনিও যদি আইসক্রিম ব্যবসা করেন অবশ্যই আপনি সফল উদ্যোক্তা হতে পারবেন। 1533 সালে সর্বপ্রথম ইতালিতে আইসক্রিম তৈরি হয়, তারপর সেই আইসক্রিম ফ্রান্স হয়ে ইংল্যান্ডে পৌঁছায়। পরবর্তীকালে ধীরে ধীরে বিভিন্ন দেশের গণ্ডি পেরিয়ে আমাদের দেশেও আইসক্রিম এসে পৌঁছায় 1953 সালে।

ইতালির পর্যটক মার্কোপোলো প্রথম আইসক্রিম তৈরির কৌশল নিয়ে আসেন চীনে, তারপর সেখান থেকে চলে আসে ভারতে। প্রথমের দিকে আইসক্রিম শুধুমাত্র জলের রং মিশিয়ে চিনি দিয়ে বরফ করে বিক্রি করা থেকে শুরু হয়। পরবর্তীকালে দুধ দিয়ে ঠান্ডা বরফ বানিয়ে সেটা আইসক্রিমের রূপে বিক্রি করা হয়। আর বর্তমান সময়ে প্রতিটা খাবারের জিনিস দিয়েই আইসক্রিম বানানো হচ্ছে। বিজ্ঞান যত উন্নত লাভ করছে ততো আইসক্রিম ব্যবসা আকাশচুম্বী হচ্ছে। এই প্রগতিশীল দুনিয়ায় আপনার একটি ছোট্ট ব্যবসা তৈরি করার ইচ্ছা যদি থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে পারেন। কিন্তু যদি ভাবেন যে কিভাবে আইসক্রিম ব্যবসা করতে হবে তাহলে আপনাদের জন্য আমাদের আজকের এই পোষ্ট।

The business of making ice cream
আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা

Table of Contents

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে? (How much does it cost to run an ice cream business?)

যে কোন ব্যবসা করতে হলে আমাদের ব্যবসার শুরুতেই মনে হতে থাকে যে ব্যবসাটা করতে হলে কত টাকা খরচা করতে হবে। আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে আপনার অনেক পুঁজির দরকার পড়বে না। অল্প পুজিতে আপনি আইসক্রিম ব্যবসা করতে পারেন। আপনার একটি ছোট আইসক্রিমের কারখানা তৈরি করতে এবং আইসক্রিম ব্যবসা শুরু করতে সর্বনিম্ন খরচ হতে পারে 1.5 লক্ষ থেকে 2 লক্ষ টাকা।

এছাড়া আপনি যদি বড় করে আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা শুরু করেন তাহলে অবশ্যই আপনার বিনিয়োগ করতে হবে 5 লক্ষ থেকে 10 লক্ষ টাকার মতো। আপনার কাছে যেমন পুঁজি থাকবে তেমনভাবে আপনি আইসক্রিম ব্যবসা করতে পারেন। এছাড়া আপনি যদি একটি আইসক্রিম পার্লার তৈরি করেন তাহলে আপনার 1.5 লক্ষ টাকা খরচ হতে পারে।

আইসক্রিম তৈরীর জন্য কি কি কাঁচামাল লাগে? (What are the raw materials for making ice cream?)

আইসক্রিম ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে আইসক্রিম তৈরির কাঁচামাল সংগ্রহ করতে হবে। আবার আপনাকে জানতে হবে যে আইসক্রিম তৈরি করতে গেলে কি কি জিনিস দিয়ে তৈরি করা যায়। চলুন দেখে নেওয়া যাক আইসক্রিম তৈরির কাঁচামাল গুলিকে।

  • দুধ(Milk)
  • গুঁড়ো দুধ(Powdered milk)
  • ক্রিম(Cream)
  • চিনি (Sugar)
  • ডিম (Eggs)
  • মাখন(Butter)
  • ফুড কালার(Food coloring)
  • ফ্লেভার পাউডার(Flavor Powder)
  • বিভিন্ন ফল(Different fruits)

আইসক্রিম তৈরির কাঁচামাল কোথায় কিনতে পাওয়া যায়?

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে আইসক্রিম তৈরির কাঁচামাল কোথায় থেকে সংগ্রহ করতে হবে তা অবশ্যই জানতে হবে। আইসক্রিম তৈরীর সমস্ত কাঁচামাল আপনি চাইলে আপনার নিকটবর্তী বাজার থেকে পেয়ে যেতে পারেন। আবার আপনি চাইলে আপনার শহরের বা আপনার রাজ্যের সবচেয়ে বড় পাইকারি মার্কেট থেকে সংগ্রহ করতে পারেন। বর্তমানে আইসক্রিম তৈরির সমস্ত কাঁচামাল

সুপারমার্কেট গুলিতে বিভিন্ন কোম্পানির এবং বিভিন্ন রকমের এর পাওয়া যায়। তবে খুব অল্প মূল্যে আইসক্রিম তৈরির কাঁচামাল কি তাহলে আপনাকে কলকাতার বড় বাজার থেকে কিনতে হবে। এছাড়াও আপনি চাইলে বাংলাদেশের চকবাজার পাইকারি মার্কেট থেকে আইসক্রিম তৈরির সকল কাঁচামাল কি নিতে পারেন। আইসক্রিম ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে যে কোন এলাকাতে সবচেয়ে কম মূল্যে আপনি কাঁচামাল সংগ্রহ করতে পারবেন, সেই বুঝে আপনাকে সেখান থেকেই কাঁচামাল গুলি কিনতে হবে।

আইসক্রিম তৈরির জন্য কি মেশিন লাগে?(Does it take a machine to make ice cream?)

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে আইসক্রিম তৈরির মেশিন গুলি কিনতে হবে। আইসক্রিম তৈরির মেশিন ছাড়া আপনি আইসক্রিম ঘরে বানাতে পারলে ও ব্যবসার জন্য বানাতে পারবেন না। আর সেই আইসক্রিম তৈরির মেশিন গুলি হল-

  • মিক্সার মেশিন
  • বড় ফ্রিজ
  • আইস কুলার বক্স
  • ব্রাইন ট্যাংক
  • স্টোরেজ ক্যাবিনেট

আইসক্রিম তৈরির মেশিনের দাম কত? (How much does an ice cream machine cost?)

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে যেমন আইসক্রিম তৈরির মেশিন গুলি আপনাকে কিনতে হবে। তেমন আইসক্রিম তৈরির মেশিন গুলো বিভিন্ন কোম্পানি ভেদে দামের তারতম্য দেখা যায়। যেমন বর্তমানে পাওয়া আইসক্রিম তৈরির মেশিনের সর্বনিম্ন দাম-

  • মিক্সার মেশিন-8 হাজার থেকে 10 হাজার টাকা।
  • কোল্ড স্টোন রেফ্রিজারেটর-2 লক্ষ টাকা থেকে 2.5 লক্ষ টাকা।
  • আইস কুলার বক্স-10 হাজার টাকা।
  • ব্রাইন ট্যাংক- 20 হাজার টাকা থেকে 50 হাজার টাকা।
  • স্টোরেজ ক্যাবিনেট-30,000 টাকা।

অবশ্যই পড়ুন- টিফিন পরিষেবার ব্যবসা

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন?

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে আপনার একটু বড় জায়গার প্রয়োজন পড়বে। কারণ আইসক্রিম ব্যবসায় প্রয়োজনীয় মেশিন গুলি বসানো এবং সমস্ত কাজ করার জন্য অন্ততপক্ষে 50 বর্গমিটারের জায়গা হলে ব্যবসার কাজ একটু ভালোভাবে করতে পারেন। এছাড়াও আপনার কাছে যদি জায়গার পরিমাণ কম থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার 15/30 ফুট এর জায়গা অবশ্যই দরকার। আইসক্রিম ব্যবসা করতে ন্যূনতম এই জায়গা ছাড়া ব্যবসা করা সম্ভব নয়।

Ice cream making machine
আইসক্রিম তৈরির মেশিন

আইসক্রিম কিভাবে তৈরি করা হয়? (How is ice cream made?)

আইসক্রিম তৈরির পদ্ধতি খুবই সহজ হয়। আপনি বা আপনার কর্মচারীদের যদি একবার শেখানো হয় তাহলেই তারা আইসক্রিম তৈরি করতে পারবে। আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই প্রতিটা কর্মচারীকে আগে আইসক্রিম তৈরি করা শিখতে হবে। আইসক্রিম তৈরির সহজ সরল পদ্ধতি হলো-

  • আইসক্রিম মিশ্রণ তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনাকে মিক্সার ব্লেন্ডার এর মধ্য দুধ, ডিম, চিনি, জল, খাবার সোডা নির্দিষ্ট পরিমাণ অনুযায়ী মেশাতে হবে।
  • এরপর মিশ্রণটি তৈরি হয়ে গেলে তার মধ্যে আপনাকে ফুড কালার এবং বিভিন্ন ফ্লেভার যুক্ত করতে হবে।
  • এরপর পাস্তুরাইজেশন প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সমস্ত মিশ্রণের মধ্যে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া গুলিকে মেরে ফেলা হয়।
  • তারপর সমস্ত মিশ্রনটিকে আইসক্রিমের দেশের মধ্যে ঢেলে দিয়ে রেফ্রিজারেটর এর মধ্যে কমপক্ষে 4 ঘন্টা 5 ডিগ্রী টেম্পারেচারে রাখতে হবে।
  • এরপর রেফ্রিজারেটর এর ভেতর থেকে ডাইস গুলো বের করে নিয়ে ডাইস থেকে আইসক্রিম কে আলাদা করে নিতে হবে।
  • তারপর আইস্ক্রিম গুলি প্যাকেজিং এর জন্য রেডি হয়ে যাবে।

আইসক্রিমের প্যাকেজিং কিভাবে করা হয়?

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে তৈরি হওয়া আইসক্রিম গুলিকে সুন্দর করে প্লাস্টিকের মোড়কে প্যাকেজিং করতে হবে। ব্যবসার শুরুতে আপনি চাইলে বাজার থেকে কিনে নেওয়া হোলসেল রেট এর প্লাস্টিকের ভেতরে আইসক্রিম প্যাকিং করতে পারেন। তবে ব্যবসার সুনাম বৃদ্ধি করতে এবং ব্যবসাকে বড় করতে হলে অবশ্যই আপনার নিজস্ব একটি ব্র্যান্ডের প্লাস্টিক ছাপিয়ে নিয়ে তার ভেতরে আইসক্রিম প্যাকেজিং করতে হবে।

কুড়িটা করে আইসক্রিম একটি কাগজের বাক্স ভেতরে পুরে সিল করে দোকানে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত করতে হবে। মনে রাখবেন আইসক্রিমের প্যাকেজিং যেন সুন্দর এবং দৃষ্টি আকর্ষিত হয়। কারণ বর্তমানে মানুষ যে জিনিসটা বেশি সুন্দর লাগে সেই জিনিসটাই তারা কিনতে বেশি পছন্দ করে।

আরো পড়ুন- জেমস ক্লিপ তৈরির ব্যবসা

আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট কিভাবে খুলবেন?

আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট খুলতে হলে অবশ্যই আপনাকে এমন একটি জায়গা নির্বাচন করতে হবে যে এলাকাতে বেশি জনবসতি রয়েছে। সবচেয়ে ভালো আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট খোলার জায়গা শহরাঞ্চল। শহরাঞ্চলে যেহেতু প্রচুর মানুষ বাস করে এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে প্রতিটা মানুষের ও রোজগার একটু বেশি পরিমাণে থাকে তাই আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট খোলার সবচেয়ে ভালো জায়গা একটি শহর। আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট খুলতে হলে অবশ্যই আপনাকে আপনার আইসক্রিম রেস্টুরেন্টের বিজ্ঞাপন যে এলাকায় রেস্টুরেন্ট করছেন সেই এলাকাতে বিস্তারিতভাবে দিতে হবে।

আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট খুলতে হলে অবশ্যই রেস্টুরেন্টের ভেতরে ক্রেতার বসার জন্য চেয়ার-টেবিলের বন্দোবস্ত করতে হবে। বাচ্চা থেকে বড়রা সবাই বিভিন্ন ফ্লেভারের আইসক্রিম পছন্দ করে তাই তারা যখন আইসক্রিম অর্ডার করবে তৎক্ষণাৎ আইসক্রিম বানানোর যাবতীয় ব্যবস্থা আপনাকে গ্রহন করতে হবে। আপনার রেস্টুরেন্টে পাওয়া প্রতিটা আইসক্রিমের নির্দিষ্ট একটি দাম আপনাকে নির্ধারণ করতে হবে। তবে মনে রাখবেন প্রাথমিকভাবে দাম গুলো যেন ক্রেতার ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে।

বরফ আইসক্রিম তৈরীর জন্য উপযুক্ত কর্মচারী নিয়োগ

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে একাধিক কর্মচারী নিয়োগ করতে হবে। কর্মচারী নিয়োগের আগে অবশ্যই দেখবেন যেন সেই কর্মচারী আইসক্রিম তৈরির সকল প্রক্রিয়া জানে বা শিখে তারপর এই যেন কাজে অংশগ্রহণ করে। তবে আইসক্রিম তৈরি রেস্টুরেন্ট ব্যবসা করলে আপনাকে কমপক্ষে তিনজন কর্মচারীর প্রয়োজন পড়বে। একজন কর্মচারী ক্যারিয়ারে থাকবে, একজন কর্মচারী আইসক্রিম তৈরি করবে, এবং একজন কর্মচারী আইসক্রিম পরিবেশন করবে।

তবে আইসক্রিম তৈরি রেস্টুরেন্ট ব্যবসা করতে হলে যে ব্যক্তি আইসক্রিম তৈরি করবে তাকে অবশ্যই আগে কোন জায়গা থেকে ট্রেনিং নিয়ে এসেই আইসক্রিম তৈরির জন্য আবেদন করতে হবে। কারণ রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় তৈরি করা আইসক্রিম তৎক্ষণাৎ বানাতে হয় কাস্টমারের অর্ডার অনুযায়ী। এছাড়া আপনি যদি আইসক্রিম ব্যবসা করেন তাহলে আইসক্রিম তৈরি করার জন্য সমস্ত প্রক্রিয়া গুলি করতে একাধিক কর্মচারীর অবশ্যই প্রয়োজন পড়ে। এই কর্মচারীদের বেতন আপনি আপনার এলাকা অনুযায়ী নির্ধারণ করতে পারেন।

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্স এর প্রয়োজন? (What kind of license is required to run an ice cream business?
)

প্রতিটা ব্যবসার মতো আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে ট্রেড লাইসেন্স সর্বপ্রথম নিতে হবে। এছাড়াও খাবারের লাইসেন্স নিতে হবে, এইরকম প্রয়োজনীয় সকল লাইসেন্স নিয়ে তবে আপনাকে আইসক্রিম ব্যবসা শুরু করতে হবে। প্রয়োজনীয় লাইসেন্স গুলি হল-

  • ট্রেড লাইসেন্স-যে কোন ব্যবসা শুরু করতে হলে ট্রেড লাইসেন্স সেই ব্যবসার জন্য প্রয়োজন । ট্রেড লাইসেন্সের মানে সরকারের কাছে আপনার ব্যবসার তথ্য প্রদান করা।
  • FSSAI লাইসেন্স-যে কোন খাদ্য ও পানীয় জিনিসের ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই FSSAI লাইসেন্সের প্রয়োজন।
  • GST লাইসেন্স-ব্যবসায়ী যখন আপনার দু’লক্ষ থেকে তিন লক্ষ টাকা প্রতি মাসে ইনকাম হবে তখন অবশ্যই আপনাকে GST লাইসেন্স নিতে হবে।

এছাড়াও আপনি যদি কোন ভাড়া করা জায়গাতে ব্যবসা শুরু করেন তাহলে সেই জায়গার আইনি সকল কাগজপত্র আপনার প্রয়োজন। আপনার নিজের নাগরিকত্বের প্রমাণ সহ আপনার জায়গার সকল আইনি কাগজপত্র সর্বদাই আপনার কাছে রেখে দেবেন।

অবশ্যই পড়ুন- ব্যবসা বাড়িতেই শুরু করুন

আইসক্রিমের মার্কেটিং কিভাবে করা হয়?

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে প্রথমে আইসক্রিম গুলিকে বাজারে বিক্রির পদ্ধতি শিখতে হবে। যে যে প্রক্রিয়ায় আপনি আইসক্রিম এর মার্কেটিং করতে পারেন সেগুলি হল-

  • একাধিক সেলসম্যান নিয়োগ করা। যাদের প্রধান কাজ হবে আইসক্রিমের গাড়িতে করে বাজারে, মেলায়, মরে সমস্ত জায়গাতে আইসক্রিম বিক্রি করা।
  • আইসক্রিমের বড় হোলসেলার এর কাছে আইসক্রিম বিক্রি করা।
  • বিভিন্ন এলাকায় নতুন নতুন ডিস্ট্রিবিউটর তৈরি করা।
  • যেসকল দোকানে আইসক্রিম বিক্রি হয়ে থাকে সেইসব দোকানে আইসক্রিম বিক্রি করা।
  • বিভিন্ন অনুষ্ঠান বাড়িতে আইসক্রিম এর প্রয়োজন পড়ে । তাই ক্যাডারদের সাথে যোগাযোগ করে খেয়ে সেই সব অনুষ্ঠান বাড়িতে আইসক্রিম পাঠাতে হবে।
  • বিভিন্ন অনলাইনে ফুড ডেলিভারি ই-কমার্স সাইট গুলোর সাথে যোগাযোগ রেখে ব্যবসা করা। যেমন জোমাটো, সোহাগী, ফুড ডেলিভারি সাইট ইত্যাদি।

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা করতে হলে আপনি এই সকল পদ্ধতি ছাড়াও আরো কত নতুন পদ্ধতিতে ব্যবসা করতে পারেন তা আপনাকে বুঝতে হবে। ব্যবসা করতে করতে আপনার যত অভিজ্ঞতা বাড়বে তত বেশি করে আপনি আইসক্রিম মার্কেটিং করতে পারবেন। তবে ব্যবসার শুরুতে আপনার ভালো করে মার্কেটিং নাও করা হতে পারে তাই এই সকল পদ্ধতি অবশ্যই আপনি অবলম্বন করবেন।

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসায় লাভ কত? (What is the profit of ice cream making business?)

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসাতে লাভের পরিমাণ টা একটু বেশি থাকে। যেমন বলা যেতে পারে একটা আইসক্রিম তৈরি করতে খরচ হবে কম করে 2-5 টাকা। সেই আইসক্রিম আপনি বিক্রি করতে পারেন সর্বনিম্ন 5 টাকা থেকে 20 টাকা পর্যন্ত। অর্থাৎ আপনি 2 টাকা দিয়ে আইসক্রিম তৈরি করে 5 টাকায় বিক্রি করতে পারেন। আবার যে আইসক্রিম তৈরি করতে 5 থেকে 7 টাকা খরচ হচ্ছে সেই আইসক্রিমটা আপনি 15 থেকে 20 টাকা দামে বিক্রি করতে পারেন। আইসক্রিমের কারখানা কিংবা আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা আপনি যদি করেন তাহলে আপনার প্রতি মাসে লাভ থাকবে কমপক্ষে 50 হাজার টাকা থেকে 80 হাজার টাকার মতো। আর আপনার কোম্পানী যদি ব্র্যান্ডে পরিণত হয় এবং আপনার ব্যবসা যদি বড় হয় তখন আপনার প্রতি মাসে ইনকাম কয়েক লক্ষ টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসায় সমস্যা ও সমাধান

আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা শুরু করতে গেলে আপনাকে হয়তো অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। তবে সর্বদা সমস্ত সমস্যা তৎক্ষণাৎ সমাধানের পথ আপনাকে বার করতে হবে। সেই জন্য সব সময় মনে রাখবেন ব্যবসা করতে গেলে মাথা ঠান্ডা রেখে যখন কোন সমস্যা আসবে তার সঠিক সমাধানের পথ বের করা। বছরের সব সময় আইসক্রিম সমান পরিমাণে বিক্রি হয় না। বিশেষ করে শীতকালে বিক্রির পরিমাণ কম থাকে। ব্যবসা করতে গেলে যে সকল সমস্যাগুলো আপনি পড়তে পারেন সেগুলো হলো-

  • শীতকালের অল্প পরিমাণ আইসক্রিম তৈরি করুন।
  • বাকি অন্য আইসক্রিম ব্যবসায়ীরা যে পদ্ধতিতে ব্যবসা করে আপনাকেও সেই পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।
  • বড় ব্যবসায়ীরা যদি কখনো আপনাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করে তাকে আপনাকে সঠিক মোকাবিলা করতে হবে।
  • বাকি অন্য ব্যবসায়ীদের থেকে অল্প দামে অর্থাৎ লাভ কম রেখে আপনি যদি আইসক্রিম বিক্রি করতে পারেন তাহলে লাভ বেড়ে যাবে।
  • এমন জায়গায় আপনাকে ব্যবসা করতে হবে যেখানে পানীয় জলের যোগান ভালোভাবে রয়েছে।
  • যে আইসক্রিমগুলো বিক্রি করতে পারবে না ব্যবসায়ীরা সেগুলো আপনাকে রিটার্ন নিয়ে তাদেরকে ভালো আইসক্রিম দিতে হবে।
  • রিটার্ন আইসক্রিমগুলো আবার নতুন করে ভালোভাবে তৈরি করতে হবে।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

প্রশ্ন: আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা শুরু করতে কত টাকা লাগে?

উত্তর: 1.5 লক্ষ থেকে 2 লক্ষ টাকা লাগবে।

প্রশ্ন: আইসক্রিম তৈরির ব্যবসা শুরু করতে কত বড় জায়গার প্রয়োজন?

উত্তর: 150 বর্গফুট থেকে 200 বর্গ ফুট জায়গার ন্যূনতম প্রয়োজন পড়বে এই ব্যবসা করতে।

প্রশ্ন: আইসক্রিম তৈরির ব্যবসায় লাভ কত?

উত্তর: কমপক্ষে আপনার প্রতি মাসে লাভ থাকবে 30 হাজার টাকা থেকে 50 হাজার টাকা। বা আপনি যে পরিমাণ আইসক্রিম বিক্রি করবেন তার 10%।

প্রশ্ন: আইসক্রিম তৈরির কারখানা কোন এলাকায় করা যায়?

উত্তর: শহরাঞ্চল কিংবা যাতায়াত উন্নত গ্রামাঞ্চলে এই আইসক্রিম কারখানা করতে পারবেন।

প্রশ্ন: পৃথিবীর সবথেকে দামি আইসক্রিমের নাম কি?

উত্তর: Strawberries Arnaud (স্ট্রবেরি আর্নড) এর দাম 1.4 মিলিয়ন ডলার।

প্রশ্ন: আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট কোথায় তৈরি করা যায়?

উত্তর: আইসক্রিম রেস্টুরেন্ট শহরাঞ্চলে তৈরি করলে তবেই আপনি লাভবান হবেন

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

১০টি অল্প পুজিতে নতুন ব্যবসার আইডিয়া

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা

Leave a Comment