১০ টি অনলাইন ইনকাম করার উপায় (2022) | Online income Right Now

আর দশজনের মত আপনিও যদি শুধুমাত্র ঘরে চুপ করে বসে থাকেন তাহলে এখনই শুরু করুন অনলাইনে কাজ। অনলাইন ইনকাম করার উপায় অনেক রয়েছে এবং অনেক সুযোগ রয়েছে।
অনলাইনে ইনকাম করে আপনি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারেন।
আজকের ডিজিটাল দুনিয়ার যুগে অনলাইন ব্যবসা করে আপনি ঘরে বসেই লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন এবং সেই গুলি কিভাবে করতে পারবেন, তার যাবতীয় তথ্য সহ নিয়মগুলো আমি নিচে দিয়ে দিলাম।

আপনি খেয়াল করলে দেখতে পারবেন আপনার পরিচিত অনেকেই অনলাইন থেকে ইনকাম করছে। তাই আপনার পরিচিত মানুষজনকে যখন করতে পাচ্ছে তাহলে আপনিও করতে পারবেন। তবে অনলাইনে ইনকাম করতে হলে আপনাকে প্রথমে অনলাইনে ইনকাম করার নিয়ম গুলো জানতে হবে তারপরেই আপনি অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন।

1. ব্লগিং করে অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায় হলো ব্লগিং। ব্লগ হলো এক ধরনের ওয়েবসাইট যার মধ্যে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল লিখতে হবে। এর জন্য শুধুমাত্র আপনার লেখার দক্ষতা থাকলেই আপনি ব্লগিং শুরু করতে পারবেন।

শুধু ব্লগ আর্টিকেল লিখলেই আপনাকে হবে না তার জন্য আপনাকে আর্টিকেলের SEO তৈরি করতে হবে।
SEO এশীয় করার পর সেই আর্টিকেলটা গুগোল এর রং করতে শুরু করবে ফলে আপনি গুগল থেকে ট্রাফিক পাবেন আর ট্রাফিক পেলে তবেই ব্লগিং থেকে আয় করতে পারবেন।

ব্লগিং করার আগে আপনাকে ভাবতে হবে আপনি কোন জিনিস নিয়ে ব্লগিং করবেন। অর্থাৎ ব্লগিং করার জন্য অনেক ধরনের নিস আছে, সেই নিস গুলি আপনাকে সিলেক্ট করতে হবে আগে।

ব্লগ থেকে ইনকাম করার অনেক ধরনের উপায় আছে তবে জনপ্রিয় উপায় কি হলো Google Adsense ।

আপনি আপনার ওয়েবসাইটে যখন অনেক ব্লগ লিখে ফেলবেন এবং তার সাথে সাথে অনেক ট্রাফিক আপনার ওয়েবসাইটে আসা শুরু করবে তখনই আপনি এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন গুগলের কাছে। আর অ্যাডসেন্স এপ্রুভ হয়ে গেলে আপনি আপনার সাইটে এড চালিয়ে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইন ইনকাম করার উপায়

2. ইউটিউব থেকে অনলাইন ইনকাম করার উপায়

অনলাইন ইনকাম করার উপায় আরও একটি লাভজনক মাধ্যম হলো ইউটিউব। আপনি খেয়াল করলে দেখতে পাবেন আপনারই পরিচিত কিংবা আপনার পাশের বাড়ির ছেলেটা মেয়েটা বর্তমানে ইউটিউব থেকে অনেক টাকা ইনকাম করছে। তাই আপনিও চাইলে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারেন।

এর জন্য শুধুমাত্র আপনাকে একটি ইউটিউব একাউন্ট খুলতে হবে। যার জন্য কোন টাকা লাগে না, সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

তবে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে কোন একটা নির্দিষ্ট টপিকের উপর এই আপনাকে ভিডিও আপলোড করতে হবে। আর আপনি যদি বিভিন্ন একাধিক টার্গেট নিয়ে ভিডিও আপলোড করেন তাহলে আপনার ভিডিও ইউটিউব রাগ করবেনা ফলে আপনার দর্শক তৈরি হবে না।
সেই জন্য আপনি একটি মাত্র টার্গেট প্রকাশ করে তাতে আপনি আপনার নিজস্ব দর্শক তৈরি করতে পারেন।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার অসংখ্য উপায় আছে। শুধুমাত্র কিছু জিনিস জানলেই আপনি ইউটিউব থেকে ইনকাম শুরু করতে পারবেন। তাই চিন্তা করে লাভ নেই আপনি খুব সহজেই এই ইউটিউব থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

3. Domain Flipping থেকে ইনকামের উপায়

Domain Flipping এটি এমন একটি অনলাইন ইনকাম করার মাধ্যম যা আপনি খুব সহজেই করতে পারবেন। তবে সঠিক জ্ঞান যদি আপনার না থাকে তাহলে আপনি অনেক বড় লস এর সম্মুখীন হতে পারেন।

Domain Flipping মানে আপনাকে অনেক কম টাকায় বিভিন্ন Domain কিনে রাখতে হবে যা আপনি পরে বিক্রি করবেন বেশি দামে।
অর্থাৎ আপনাকে আগে থেকেই একটা আন্দাজ করে ঠিক করে নিতে হবে যে কোন Domain টা ভবিষ্যতে দাম বাড়বে। ডমিন মূলত ব্যবহার করা হয় ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য। তাই সঠিক ডমিন কেনার জন্য অনেকেই বসে থাকে, সঠিক ডমিন পাওয়া যায় না মার্কেটে, কারণ সেই Domain অলরেডি অন্য কেউ কিনে রেখে দিয়েছে।
আপনাকে শুধু করতে হবে এমন কিছু জমিন কিনে রাখতে হবে যার ভবিষ্যতে দাম বাড়বে, পড়ে সেই Domain গুলো বেশি দাম দিয়ে আপনি বিক্রি করে দেবেন এবং ইনকাম করবেন অনেক অনেক টাকা।

Domain Flipping

4. Graphic designing করে অনলাইন ইনকাম করার উপায়

Graphic designing বর্তমান সময়ে অনেক জনপ্রিয় অনলাইন ইনকাম করার উপায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর জন্য আপনাকে শিখতে হবে গ্রাফিক্স ডিজাইন।
গ্রাফিক্স ডিজাইন এ কি কি জিনিস হয় তা আমরা সবাই জেনে থাকি। পোস্টার থেকে হ্যান্ডবিল, ফ্লেক্স থেকে বিজ্ঞাপন, অনলাইন গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে মার্কেটে।
তাই আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে থাকেন তাহলে আপনার জন্য সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে বর্তমান গ্রাফিক্স ডিজাইন মার্কেট।

বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে ওয়েবসাইট ডিজাইন থেকে শুরু করে ইনস্টাগ্রাম পোস্ট ডিজাইন পর্যন্ত সমস্ত কাজে গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের দরকার পড়ে।

আপনার মোবাইলে Canva App ব্যবহার করেও আপনি এই কাজটি শুরু করতে পারবেন। এছাড়া অনেক অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যা আপনি আপনার প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন সেখান থেকে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ইন্টারনেটে আপলোড করতে পারেন বিভিন্ন সাইটে।
আর গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার জন্য বর্তমানে ইউটিউব এর থেকে বড় শিক্ষক আর হয় না তাই আপনি বিভিন্ন ইউটিউব ভিডিও দেখে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন শুধুমাত্র শেখার ইচ্ছাটা থাকলেই আপনি শিখতে পারবেন।

আরো পড়ুন নতুন ব্যবসা- পেরেক তৈরির ব্যবসা

5. ভিডিও এডিটিং করে ইনকাম করার উপায়

ভিডিও এডিটিং বর্তমান সময়ের একটি লাভজনক কাজের মধ্যে একটা।কারণ বর্তমান সময়ে অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল খুলে ভিডিও এডিট করার লোক পায়না সেখানে আপনি যদি ভিডিও এডিটিং কাজটি শিখে রাখেন তাহলে ইউটিউব ভিডিও সহ বিয়ে বাড়ি অন্নপ্রাশন এবং pre-wedding ভিডিও এই ধরনের কাজগুলো আপনি করতে পারবেন।

কারণ বর্তমান সময়টা ভিডিও কনটেন্ট এর যুগ। মানুষ সব জিনিস ভিডিও দেখে শিখতে চাই । এখন পড়াশোনা থেকে সমস্ত খেলাধুলার যাবতীয় জিনিস ভিডিও থেকেই মানুষ শেখে। তাই আপনি যদি ভিডিও এডিটর হিসেবে জনপ্রিয়তা লাভ করতে চান তাহলে ভিডিও বানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে এখন থেকেই ছাড়ুন। দেখবেন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে আপনার কাছে কত অর্ডার আসা শুরু হয়ে গেছে এবং আপনি সেই অর্ডার গুলি নিয়ে ভিডিও এডিট করে অনলাইনের মাধ্যমে তাদেরকে পাঠিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অনেক বড় বড় ভিডিও এডিটর রয়েছে যারা মাত্র পাঁচ মিনিটের ভিডিও ক্লিপের জন্য 100 ডলার চার্জ করেন। তাই আপনিও এত চার্জ না করলেও অল্প চার্জ করেও অনেক অর্ডার পেয়েছে যাবেন।

6. ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে ইনকাম করার উপায়

ফ্রিল্যান্সিং জিনিসটা কি?

আপনি যে ধরনেরই কাজ করে থাকুন না কেন সেই সব কাজগুলি যদি আপনি কোন কোম্পানির আন্ডারে না করে নিজে থেকে একক ভাবে বা গ্রুপ ভাবে করতে চান তাহলে সেই পদ্ধতিটা কি বলা হয় ফ্রিল্যান্সিং।
বর্তমান সময়ে আপনি যে ধরনের কাজেই দক্ষ হয়ে থাকুন না কেন, সেই কাজগুলি যদি আপনি এককভাবে ইন্টারনেটের মাধ্যমে শুধুমাত্র করতে চান তাহলে সেটা ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটিং এর মধ্যে পড়ে যাবে।

আপনি যে ধরনের কাজ করতে পারেন না কেন সেই কাজগুলি আপনি অনলাইনে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেট রয়েছে যেমন- FIVERR,UpWork ইত্যাদি। এই ধরনের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেট ওয়েবসাইটে আপনি আপনার কাজ বা আপনার সার্ভিস বিক্রি করতে পারেন। এছাড়া আপনি চাইলে সরাসরি সোশ্যাল মিডিয়া অর্থাৎ ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম ইউটিউব এই ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া গুলিতে আপনি পোস্ট আপলোড করে সেখান থেকে ক্লায়েন্ট খুঁজে কাজ শুরু করতে পারেন।
ফ্রিল্যান্সিংয়ে অনেক কাজ রয়েছে এবং অনেক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে তাই আপনি এখনো ঘরে চুপচাপ বসে না থেকে আপনার ফোনটা নিন এবং শুরু করে দিন আপনার যে বিষয়ে দক্ষতা রয়েছে সেই বিষয়ে ফ্রিল্যান্সিং বিজনেস।

7. Affiliate Marketing করে ইনকাম করার উপায়

অনলাইন ইনকাম করার উপায় মধ্যে অন্যতম মাধ্যম হলো Affiliate Marketing।
অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং জিনিসটা কি সেটা আমরা অনেকেই জানি, আবার জানি না অনেকেই। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং টা হচ্ছে এমন একটি জিনিস যেখানে আপনি অন্য কোম্পানির কোন প্রোডাক্ট বাস সার্ভিস আপনি সেল করবেন এবং সেখান থেকে কমিশন পাবেন।

অন্যের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস কে আপনার ওয়েবসাইটের লিংক করবেন এবং সেই লিঙ্কে ক্লিক করে যখন অন্য কোন ব্যক্তি সেই প্রোডাক্টটি কিনবে তখনই আপনি কমিশন পেয়ে যাবেন।

Clickbank, digistore24 নামিদামি অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম রয়েছে এই ওয়েবসাইট দুটির মধ্য যেখান থেকে আপনি বিভিন্ন প্রোডাক্ট এবং সার্ভিসের হিরিং কালেক্ট করে আপনার ওয়েবসাইটে দিয়ে প্রমোট করবেন। এবং পেয়ে যাবেন অনেক কমিশন সেইসব সার্ভিস এবং প্রোডাক্ট এর দামের ওপর।

এছাড়া আপনি সেই সব পোডাক গুলির লিংক ইউটিউব ইনস্টাগ্রাম কিংবা ওয়েবসাইটের সেল করতে পারবেন।

Affiliate Marketing

8. Website Flipping করে অনলাইন ইনকাম করার উপায়

Website Flipping সম্পূর্ণ অন্য জিনিস এটি Domain Flipping মত নয়। এখানে আপনাকে একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে কিছুটা কাজ করার পর সেটা বিক্রি করতে হবে। এখানে একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ আপনাকে প্রথমে তৈরি করতে হবে সেখানে বেশ কিছু পোস্ট অথবা অনেকটা কাজ আপনাকে করতে হবে। তারপর আপনি চাইলে সেই ওয়েবসাইট বা ব্লগ টা বিক্রি করতে পারেন।
তবে বিক্রি করার আগে আপনার ওয়েবসাইটটি যেন Google AdSense approved হয় সেইটা দেখে নেবেন।

অনেক মানুষ আছে যারা খুব বেশি পরিশ্রম শুরুর দিকে পড়তে চায় না তাই তারা অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভ ওয়েবসাইট কিনতে পছন্দ করে।

তাই আপনি নিজের ব্লগ অথবা ওয়েবসাইট টি ভালো করে তৈরী করুন যাতে সেটি আপনাকে টাকা ইনকাম করার একটি মাধ্যম হতে পারে। এই ধরনের সাইট গুলি তৈরি করার পড়ে আপনি বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ অথবা ইনস্টাগ্রাম গ্রুপে জানাতে পারেন সেখান থেকে বিভিন্ন মানুষজন আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করে ওয়েবসাইট কিনে নেবে।

9. প্রোডাক্টের অনলাইন মার্কেটিং

বিভিন্ন ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি আছে যারা বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট তৈরি করে থাকে কিন্তু তারা সেই প্রোডাক্ট গুলি অনলাইনে বিক্রি করে না। আপনি চাইলে সেই সব কোম্পানির কাছ থেকে প্রোডাক্ট কিনে নিজস্ব ওয়েবসাইটে অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন। এতে সেই কোম্পানির কাছ থেকে অল্প দামে প্রোডাক্ট কিনে আপনি কিছুটা লাভ রেখে অনলাইনে বিক্রি করলে আপনার অনেক টাকা ইনকাম হবে, কোন প্রোডাক্ট নিজে না তৈরি করে।

10. ই-কমার্স বিজনেস করে টাকা ইনকাম করুন

বর্তমান সময়ে ই-কমার্স বিজনেস খুব জনপ্রিয় বিজনেস হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনি পৃথিবীর যে প্রান্তেই থাকুন না কেন, সেইখান থেকে আপনি যেখানে ব্যবসা করতে চান সেইখানেই ব্যবসা করতে পারেন শুধুমাত্র অনলাইনের মাধ্যমে।
এখানে শুধুমাত্র একটা ওয়েবসাইট তৈরি করতে হয় এবং বিভিন্ন প্রোডাক্ট এই ওয়েবসাইটে রাখতে হয় যখন কোন মানুষ এই প্রোডাক্ট গুলি কিনবে সেই প্রোডাক্ট গুলি তাদের কাছে পৌঁছে যাবে কোন পরিচিত ওয়েবসাইটের সেলসম্যান এর হাত ধরে আপনি শুধু মাঝখানের মিডলম্যান হয়ে অর্ডার গুলি সেই ওয়েবসাইট থেকে নিয়ে আপনি বিক্রি করবেন নিজের স্বপ্ন আউটলেট দোকান না করে।

অনলাইনে ইনকাম করার আরও অনেক রাস্তা রয়েছে এবং উপায় রয়েছে। তার মধ্যে কয়েকটা মাত্র দেয়া হয়েছে আর্টিকেল হিসেবে আজকে, আপনারা পড়ে যদি এই ব্যবসা গুলি করতে চান তাহলে করতে পারেন।
তবে মনে রাখবেন শুধুমাত্র ঘরে চুপ করে বসে না থেকে বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে কিছু করার জন্য খুব সহজলভ্য টাকা ছাড়াই কাজ করার উপায় এবং মাধ্যম হিসেবে অনলাইনে ইনকামের পথ প্রশস্ত করুন।

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

ব্যবসা করুন মাত্র 600 টাকা দিয়ে

একটা মেশিন দিয়ে 5টি ব্যবসা

Leave a Comment