অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা শুরু করুন আজই | Start an online grocery store business today wow 1

মুদিখানা দোকান ব্যবসা তো বহু যুগ যুগ ধরে হয়ে আসছে। কিন্তু বর্তমানে আপনি যদি অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা শুরু করেন তাহলে আপনি আপনার মুদিখানার ব্যবসা কে আরো ত্বরান্বিত করতে পারবেন। আবার আপনি চাইলে শুধুমাত্র অনলাইনের মাধ্যমেই নতুন করে শুরু করতে পারেন অনলাইন মুদিখানা দোকান ব্যবসা।

বর্তমানে আমরা সকলেই জানি অনলাইন ব্যবসা রমরমা চলছে। আমাদের সকলের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র থেকে শুরু করে দামি দামি বিলাসবহুল জিনিসপত্র অনলাইনের মাধ্যমে পাওয়া যাচ্ছে। আমরা এখন যে ফোন নিয়ে সবাই চলাফেরা করি সেই ফোন দিয়েই অনলাইন ব্যবসা করা যায় সেটা আমরা হয়তো অনেকেই জানি না। বর্তমানে তবুও আমরা এই ফোন দিয়ে বিভিন্ন জিনিস অর্ডার করি এবং অর্ডার করা জিনিসটা আমাদের বাড়ির দরজায় চলে আসে।
বর্তমানে কর্মব্যস্ততার সময়ে অনেকেরই সময় হয়না রোজগার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুলি দোকানে গিয়ে কেনার। তাই তারা চাই তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুলি যদি তাদের বাড়ির দরজায় চলে আসে শুধুমাত্র অর্ডার করেই তাহলে ভীষণ ভালো হয়। আর এখান থেকেই শুরু হয় অনলাইন মার্কেটিং এর দুনিয়া।

বর্তমান সময়ে ছোট বাচ্চা থেকে বয়স্ক মানুষ পর্যন্ত অনলাইনে কেনাকাটার মধ্য অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তাই আপনি যদি অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আপনার জন্য এই সময়টা উপযুক্ত একটি সময়। তবে এখনো পর্যন্ত মুদিখানার জিনিসপত্র অনলাইনে কিছু কিছু বড় ওয়েবসাইট নিয়ে আসলেও নতুন করে মুদিখানা ব্যবসায়ীরা এই বিষয়টা নিয়ে ভাবছে না। তাই আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত হল মুদিখানা দোকান ব্যবসা করে অনলাইন মুদিখানা দোকান ব্যবসা কে ত্বরান্বিত করা। কিন্তু হয়তো আপনি ভাবছেন যে কিভাবে মুদিখানা দোকান ব্যবসা কে অনলাইনের মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে নিয়ে যাবেন, তার জন্য সমস্ত তথ্য প্রমাণ সহ এই পোস্টটা তৈরি করা হলো। তাই ভালো করে মন দিয়ে দেখবেন যে কিভাবে অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করা যায়।

Online grocery store business
অনলাইন মুদিখানা দোকান ব্যবসা

অনলাইন গ্রোসারি ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন?

অনলাইন গ্রোসারি ব্যবসা শুরু করার জন্য নির্দিষ্ট বেশকিছু জিনিস আপনাকে মেলে চলতে হবে। বর্তমানে যেহেতু সমস্ত জিনিস অনলাইনে পাওয়া যায় তাই অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করা যায়। মানুষের কাছে এখন ইন্টারনেট অনেক সহজলভ্য হয়ে গেছে তাই সেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনাকে অনলাইন মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে হবে।

অবশ্যই পড়ুন- মুরগির খামার ব্যবসা

মুদিখানা দোকানের ওয়েবসাইট তৈরি

সবচেয়ে প্রথমে আপনাকে অনলাইনে মুদিখানা দোকানের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। বর্তমানে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা খুব সহজ ব্যাপার চাইলে আপনিও পারবেন। তবুও যদি আপনি ভালো মানের একটি ওয়েবসাইট বানাতে চান তাহলে ওয়েব ডিজাইনারদের দিয়ে একটি অনলাইনে মুদিখানা দোকানের ওয়েবসাইট বানাতে পারেন। তবে অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে যে ওয়েবসাইট কিন্তু সস্তা থেকে দামি পর্যন্ত হতে পারে।

অর্থাৎ একটা ওয়েবসাইট কেমন ধরনের হবে তার ওপর নির্ভর করবে ওয়েবসাইট এর দাম। বর্তমানে আমরা যখন কোন জিনিস গুগোল এ সার্চ করি সেটা গুগলের কত নম্বরে আসবে সেটা নির্ভর করে ওয়েবসাইটের দামের ওপর। অর্থাৎ অনেক ওয়েবসাইট যেগুলো দামি হয়ে থাকে সেগুলো খুব সহজেই গুগলের প্রথম পৃষ্ঠার প্রথম মাসের মধ্যে চলে আসে। আবার অনেক ওয়েবসাইট তার পোষ্টের উপর নির্ভর করে গুগলের কত নম্বর পেয়েছে থাকবে তার ওপর।

তবে আপনি 2-3 হাজার টাকার মধ্যে একটি ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন। ওয়েবসাইট বানানোর পরে অবশ্যই ওয়েবসাইটটি ডেকোরেশন এর দিকে আপনাকে মনোযোগ দিতে হবে। যেমন প্রত্যেকটা জিনিস যত বেশি সুন্দর হয় ততো আমাদের আকৃষ্ট করে। তেমনি একটা ওয়েবসাইট কতটা সুন্দর হবে তার ওপরে নির্ভর করবে ক্রেতার আকর্ষণটা। একজন ক্রেতা যখন প্রথমে আপনার ওয়েবসাইটটি খুলে দেখবে তখন সে তার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুলির সম্ভার যেমন সেখানে দেখতে পাবে, তেমনই রংচঙে ছবি এবং তার বোধগম্য ভাষার জন্য তাঁকে ততটাই বেশি আকর্ষণ করবে আপনার ওয়েবসাইট। ওয়েবসাইট টা বানানোর সময় অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে ডেকোরেশন এর ব্যাপারটা দক্ষ এবং অভিজ্ঞ কাউকে দিয়ে তৈরি করার। প্রথম দেখাতেই যেন ইম্প্রেশন তৈরি হয় ক্রেতার মধ্যে এই জিনিসটা অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে।

বর্তমানে প্রচলিত যে সকল বড় বড় অনলাইন মুদিখানা দোকান ব্যবসার ওয়েবসাইট রয়েছে তাদেরকে ফলো করে আপনার ওয়েবসাইটটি বানাতে হবে। ওয়েবসাইটে যেন প্রতিটা জিনিসের আলাদা আলাদা মেনু থাকে এই জিনিসটা অবশ্যই দেখবেন। আপনি যেহেতু আপনার ব্যবসাকে অনলাইনের মাধ্যমে করতে চাইছেন তাই খরচের সময় একটুও দ্বিধাবোধ করবেন না বরং প্রথম ধাক্কাতেই ভালো রকম খরচ করে একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা শুরু করুন।

Online grocery store business
অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যাবসায় হোম-ডেলিভারী ব্যবস্থা রাখা

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে, যখন কোন প্রোডাক্ট আপনার ওয়েবসাইট থেকে ক্রেতা কিনবে, তখন সেই প্রোডাক্টটি যেন ঠিক সময়মতো ডেলিভারি করা হয়। বর্তমানে ক্রেতারা একটা ব্যবসায়ীর কাছ থেকে তখনই কোন প্রোডাক্ট কিনে যখন তারা ঠিক সময় মত ডেলিভারি দিতে পারে। তাই অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে ডেলিভারি ঠিক টাইম মতো যেন হয়। এর জন্য আপনাকে একাধিক ডেলিভারি বয় নিযুক্ত করতে হবে।


অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করার যেমন অনেক সুবিধা আছে তেমন কিছু কিছু অসুবিধাও আছে। যেমন ব্যবসার শুরুতে আপনার যদি বেশি আইটেম প্রোডাক্ট ডেলিভারি করার ক্ষমতা না থাকে তাহলে ব্যবসা শুরুর দিকে অল্প প্রোডাক্টের ডেলিভারি অর্ডার নিন। আর আপনার যদি অনেক ডেলিভারি বয় থেকে থাকে তাহলে আপনি একসাথে অনেক বেশি বেশি করে প্রোডাক্ট এর অর্ডার নিতে পারেন। সেই জন্য ওয়েবসাইটটি বানানোর সময় এই সমস্ত বিষয়গুলি মাথায় রেখে, সেই ধরনের ইনফর্মেশন ওয়েবসাইটের মধ্য দিয়েই ওয়েবসাইটটি বানাবেন।

আপনি চাইলে পরবর্তীকালে ব্যবসার বৃদ্ধি পেলে ডেলিভারি চার্জ যুক্ত করতে পারেন। তবে ব্যবসার শুরুতে ডেলিভারি চার্জ না নিয়ে ব্যবসা করলে আপনার লাভ হবে। কারণ কাস্টমার বেশি বৃদ্ধি পাবে এইভাবে ব্যবসা করলে। বর্তমান সময়ে প্রতিটা ওয়েবসাইটি ডেলিভারি চার্জ নিচ্ছে তাই মানুষ অভ্যস্ত হয়ে গেছে।

প্রোডাক্টের প্যাকেজিং

অনলাইনে মুদিখানা ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে প্রোডাক্ট এন্ড প্যাকেজিং এর ওপর গুরুত্ব প্রয়োগ করতে হবে। যখন কোন কাস্টমার অনলাইনে কোন প্রোডাক্ট অর্ডার করবে তখন সেই প্রোডাক্টটা ডেলিভারি দেওয়ার সময় যাতে কোনভাবে নষ্ট না হয়ে যায়, বা বড় কোনো ক্ষতি না হয়, তার জন্য প্রডাক্টিভ সুন্দর করে প্যাকেজিং করে ডেলিভারি দিতে হবে। যদি কোন সময় ডেলিভারি দেওয়ার সময় প্রোডাক্টটি খারাপ হয়ে যায় বা কোনোভাবে নষ্ট হয়ে যায় তাহলে তৎক্ষণাৎ সেই প্রোডাক্ট বদলে নতুন প্রোডাক্ট কাস্টমারের কাছে পাঠাতে হবে। তা না হলে কাস্টমারের হাতে যখন সেই নষ্ট হওয়ার প্রোডাক্ট পৌঁছবে তখন কাস্টমারের কাছে আপনার কোম্পানির ভাবমূর্তি নষ্ট হয়ে যাবে, এবং পরবর্তী সময়ে সেই কাস্টমার আর আপনার মুদিখানা দোকান থেকে কোন কিছু অনলাইনে অর্ডার করবে না।

তাই অবশ্যই অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে হলে প্রোডাক্টের প্যাকেজিং এর ওপর আপনাকে বেশি করে যত্নশীল হতে হবে। সে ক্ষেত্রে যদি প্রোডাক্টের প্যাকেজিং করতে গিয়ে খরচের পরিমাণ বেড়ে যায় এবং আপনার লাভের পরিমাণ টা কমে যায় তবুও আপনাকে প্রোডাক্ট এর প্যাকেজিং ভালো দিতে হবে। মনে রাখবেন ব্যবসা শুরুর দিকে অল্প লাভ রেখে যদি আপনি কাস্টমারের মন জয় করতে পারেন তাহলে অবশ্যই সেই ব্যবসা দীর্ঘস্থায়ী এবং দীর্ঘমেয়াদী হবে। পরবর্তীকালে আপনার ব্যবসা থেকে প্রচুর আয় করতে পারবেন, কারণ প্রচুর কাস্টমার আপনার ব্যবসাতে যুক্ত হয়ে যাবে।

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসার জায়গা নির্ধারণ

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে প্রথমে জায়গা নির্বাচন করতে হবে। ব্যবসা শুরুতে আপনি নির্দিষ্ট কোন একটি জায়গা নির্বাচন করে অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে পারেন। কারন আপনিও জানেন যে যদি আপনার ওয়েবসাইটে বাইরের কোন রাজ্যের মানুষ অর্ডার করে কোন জিনিস নিশ্চয়ই আপনি তাকে সেই জিনিসটা পৌছে দিতে পারবেন না। তাই ব্যবসার শুরুতে নির্দিষ্ট কোনো একটি জায়গার মধ্যেই আপনাকে ব্যবসাটি সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। ব্যবসার শুরুতে আপনি চাইলে আপনার চেনাজানা নির্দিষ্ট একটি এলাকার মধ্যে অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে পারেন।

তবে শহরাঞ্চলের দিকে যদি আপনি অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করেন তবে আপনি বেশি পরিমাণে লাভবান হতে পারেন। এখনো গ্রামের মানুষজন মুদিখানা দোকানে গিয়ে বাজার করতে বেশি পছন্দ করে। তাই তারা অনলাইনে মুদিখানার জিনিসপত্র কেনার থেকে দোকানে গিয়ে কেনা টাই বেশি পছন্দ করে থাকে। তাই ব্যবসার শুরুতে আপনি শহরাঞ্চলের দিকে অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করুন। যেখান থেকে আপনি খুব সহজে ডেলিভারি দিতে পারবেন এবং যেখানকার মানুষজন বেশি বেশি অনলাইনের ওপর আসক্ত হয়ে পড়েছে সেই এলাকা নির্বাচন করে ব্যবসা করতে হবে।

আরো পড়ুন- কুরিয়ার সার্ভিস ব্যবসা কিভাবে শুরু করা যায়

যেহেতু আপনি নতুন করে নতুন ধরনের অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করছেন তাই আপনার সাথে সাথে যে সকল কর্মচারী কাজ করছে তাদের কাজের দিকটাও আপনাকে নজরে রাখতে হবে। শহরে যদি আপনি ব্যবসা করেন তাহলে ডেলিভারি ভ্যান বা ডেলিভারি বাইক আপনাকে সঙ্গে রাখতে হবে যাতে অর্ডার করার সাথে সাথেই ক্রেতার বাড়িতে ডেলিভারি হয়ে যায় মুদিখানার জিনিস পত্র গুলি। মুদিখানা বাজারের ওপর নির্ভর করবে আপনি কিভাবে তাকে ডেলিভারি করবেন তার পদ্ধতিটা, অর্থাৎ অল্প বাজার হলে আপনি বাইকে ডেলিভারি করতে পারেন, আবার যখন অনেক বড় বড় বাজার ডেলিভারি করার থাকবে তখন বাইক এর পরিবর্তে কোন ডেলিভারি ভ্যান এর ব্যবস্থা করতে পারেন।

Grocery store business
মুদিখানা দোকান ব্যবসা

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে কি কি লাইসেন্স লাগে?

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে গেলে বেশ কিছু লাইসেন্স আপনার প্রয়োজন পড়বে। ব্যবসার শুরুতেই আপনাকে একটি ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে।
তারপর আপনাকে জিএসটি লাইসেন্স নিতে হবে যখন আপনার ব্যবসা প্রতি মাসে 3 লক্ষ থেকে 4 লক্ষ টাকা আয় করবে।
যেহেতু আপনি খাবার-দাবার এর জিনিসপত্র নিয়ে ব্যবসা করছেন তাই অবশ্যই আপনাকে একটা FSSAI লাইসেন্সের অনুমতি পত্র জোগাড় করতে হবে।
এছাড়া আপনি যেখানে গোডাউন করে বা দোকান করে ব্যবসা করবেন সেই দোকানের কাগজপত্র আপনার ব্যবসার শুরুতেই দরকার পড়বে।

এই সমস্ত লাইসেন্সগুলো করতে আপনার ব্যবসার শুরুতেই 10 থেকে 15 হাজার টাকার মতো খরচ হবে। যদিও এটা এককালীন খরচ। ব্যবসার শুরুতে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতার থেকে বেশি প্রয়োজন পড়বে সঠিক সহকর্মীর এবং সঠিক জ্ঞানের। তাই অবশ্যই আপনাকে সমস্ত লাইসেন্সগুলো তৈরি করে ব্যবসা করতে হবে।

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসার অ্যাডভার্টাইজমেন্ট কিভাবে করবেন?

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ব্যবসার শুরুতেই অ্যাডভার্টাইজমেন্ট এর ওপরে নজর দিতে হবে। যেহেতু আপনি আপনার মুদিখানা দোকান ব্যবসা অনলাইনের মাধ্যমে করতে চলেছেন তাই অবশ্যই মানুষজনের কাছে পৌঁছানোর জন্য অ্যাডভার্টাইজমেন্ট সর্বপ্রথম ভরসা। এছাড়াও আপনার ওয়েবসাইটটি গুগোল এর রং করানোর জন্য অবশ্যই আপনাকে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করতে হবে গুগলে। এছাড়াও আপনি বর্তমানের জনপ্রিয় ওয়েব সাইটগুলি যেমন ইউটিউব, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এইসব হল ওয়েবসাইটে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করতে হবে। প্রতিটা অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করতে আপনার কমবেশি কিছু টাকা খরচ হবে, তবে সেগুলো সমস্ত টাই ব্যবসার উন্নতির জন্য আপনাকে করতেই হবে।

এছাড়াও আপনি চাইলে আপনি যে এলাকা কেন্দ্র করে ব্যবসা করতে চলেছেন সেই এলাকাতে বিভিন্ন জায়গায় পোস্টার ছাপিয়ে পোস্টারিং করতে হবে। বিভিন্ন ফ্লেক্স ছাপিয়ে প্রতিটা এলাকার মোড়ে মোড়ে ফ্লেক্স গুলি লাগাতে হবে। এছাড়াও আপনি একটা গাড়ি ভাড়া করে মাইকিং করতে করতে এলাকায় এলাকায় প্রচার করতে পারেন আপনার ব্যবসার।
আপনি যদি সঠিকভাবে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করেন তবে আপনার ব্যবসার উন্নতি সাধন সম্ভব। যেহেতু আপনি অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করছেন তাই আপনাকে অবশ্যই অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দিয়ে আপনার ব্যবসাকে বড় করতে হবে। বর্তমানের জনপ্রিয় ওয়েব সাইটগুলি যেমন ফেসবুক ইউটিউব এরাও এদের নিজেদের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট এখনো দিয়ে যায়। এত বড় ওয়েবসাইট হয়ে যাওয়ার পরেও এরা যখন অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দিতে পারে তাহলে আপনাকে আপনার ব্যবসার শুরুতে অবশ্যই অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দিতে হবে।

অবশ্যই পড়ুন- বেকারি ব্যবসা শুরু করুন

অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসায় লাভ কত?

সাধারণ মুদিখানা দোকান ব্যবসায় যে পরিমাণ লাভ হয়ে থাকে তার দ্বিগুন লাভ হতে পারে অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করে। তবে ব্যবসার শুরুতে আপনার লাভের পরিমাণ টা সীমিত থাকতে পারে। কারণ বর্তমানে অনলাইন দুনিয়ার যুগে সমস্ত জিনিস যেমন অনলাইনের মধ্য দিয়ে মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে এবং মানুষও অনলাইনের ওপরে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন তাই অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করলে লাভের পরিমান বেশি থাকবে।

আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে বেশি লাভ রাখতে হলে অবশ্যই আপনার দোকানে যে সমস্ত প্রোডাক্ট গুলি নিয়ে ব্যবসা করবেন সেই সমস্ত প্রোডাক্ট গুলি যেন সরাসরি ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি অথবা চাষীদের কাছ থেকে আসে। এতে করে আপনি অল্প দামে প্রোডাক্ট কিনে বাজারে বিক্রি হওয়া সাধারন প্রোডাক্ট গুলি থেকে কম দামে প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারবেন। সফল অনলাইনে মুদিখানা ব্যবসার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে জানা যায় যে তাদের ব্যবসাতে লাভ হয় 2 লক্ষ থেকে 4 লক্ষ টাকার মতো প্রতিমাসে।

অনলাইনে গ্রোসারি ব্যবসার সমস্যা

প্রত্যেকটা ব্যবসার যেমন লাভজনক এবং সুবিধাজনক দিক থাকে ঠিক তেমনি প্রত্যেকটা ব্যবসার ঝুঁকি থাকে। ঠিক তেমন অনলাইনে গ্রোসারি ব্যবসা বা অনলাইনে মুদিখানা ব্যবসা করার জন্য আপনাকে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে।

  1. ব্যবসার শুরুতে সঠিক বিজ্ঞাপন না দিলে ক্রেতারা আপনার অনলাইন ব্যবসা কে গ্রহন করবে না।
  2. সাধারণ মুদিখানা দোকানের থেকে আপনার অনলাইনে মুদিখানা দোকানে পাওয়া প্রতিটা প্রোডাক্টের দাম যেন কম থাকে।
  3. ব্যবসার শুরুতে অনেক মানুষজন নিন্দামন্দ করলেও সাহসিকতার সাথে ব্যবসা করতে হবে।
  4. ব্যবসার শুরুতে ডেলিভারি দিতে বা প্রোডাক্টের কোয়ালিটির ওপর যদি কোনো ত্রুটি থেকে থাকে তাহলে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে।
  5. ব্যবসা একবার নাম হয়ে গেলে বড় ব্যবসায়ীদের চোখে আপনি শত্রু হয়ে যেতে পারেন।
  6. বড় ব্যবসায়ীরা সব সময় চাইবে আপনার ব্যবসাকে প্রতিহত করতে।

সমস্ত দিক বিবেচনা করে আপনাকে ব্যবসা করতে হবে। প্রতিটা ব্যবসা করতেই ঝুঁকি নিতে হয়। তাই আপনাকেও অনলাইনে মুদিখানা দোকান ব্যবসা করতে হলে অল্প হলেও ঝুঁকি নিতে হবে। সাহসিকতার সাথে ব্যবসা করুন সফলতা আসবে

নতুন নতুন ব্যবসার আইডিয়া দেখুন-

মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা

ইলেকট্রিক সাইকেলের ডিলারশিপ ব্যবসা

Leave a Comment